please click here to view dainikshiksha website

অবশেষে এমপিওভুক্ত হলেন খালেক উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক সায়মা নিলুফা

নিজস্ব প্রতিবেদক | আগস্ট ৫, ২০১৭ - ৯:০৬ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর এমপিওভুক্ত হতে যাচ্ছেন ময়মনসিংহ সদর উপজেলার মাইজবাড়ী আব্দুল খালেক উচ্চ বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগের সহকারি শিক্ষক সায়েমা নিলুফা।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের গত জুলাই মাসের এমপিও সভায় সায়মা নিলুফাকে এমপিওভুক্ত করানোর সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।

জানা যায়, ওই শিক্ষক ২০০৮ খ্রিস্টাব্দের গণিত/ বিজ্ঞান নিবন্ধন সার্টিফিকেটধারী হন এবং তিনি ২০১৫ খ্রিস্টাব্দের ২রা জানুয়ারি চাকরিতে যোগদান করেন। তবে তিনি ২০১৫ খ্রিস্টাব্দের ৫ই মার্চের নতুন পরিপত্র জারির আগেই চাকরিতে যোগদানের ফলে এমপিও কমিটি তার এমপিওভুক্তির আবেদনটি মঞ্জুরের সিদ্ধান্ত নেয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


পাঠকের মন্তব্যঃ ৮টি

  1. মো:সোহেল রানা ,সহকারী শিক্ষক(কম্পিউটার) ,করিম পাড়া বি ,এম দাখিল মাদ্রাসা ;গাবতলী ''বগুড়া says:

    ict শিক্ষকদের mpo দিন ।আমরা খুব কষ্টে আছি ।আল্লা তুমি আমাদের সমস্ার সমাধান করে দেও।

  2. ওবাইদুল হক says:

    আমি ওবাইদুল হক, পিতা: মো:আলী, মাতা: লেবাছ খাতুন, গ্রাম: সওদাগর ঘোনা, ডাক: চিরিংগা সি,সি-৪৭৪০, উপজেলা: চকরিয়া, জেলা: কক্সবাজার, মোবাইলঃ ০১৮১৩-৩৮৬০২৮, NTRCA কর্তৃক নির্বাচিত ও সুপারিশকৃত হয়ে সর্বোচ্চ নম্বরধারী হিসেবে ও ইংরেজী বিষয়ের ২ জন শিক্ষকের মধ্যে ১ম স্থান অর্জনকারী হিসেবে কিশলয় আদর্শ শিক্ষা নিকেতনে বিগত ১৫/১১/২০১৫ ইং যোগদান করি। কিন্তু ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নুরুল কবির, কিশলয় আদর্শ শিক্ষা নিকেতন, খুটাখালী, চকরিয়া, কক্সবাজার, মোবাইলঃ ০১৭১৮-২৭৭৬৪১/০১৮৩৮-২৫১৩৩৪, পরিচালনা পর্ষদের সিদ্ধান্তকে উপেক্ষা করে এবং আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে আমাকে আমার ন্যায্য প্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত করে বিগত ১৫/০৫/২০১৭ ইং আমার এম,পি,ও’র আবেদন অগ্রায়ন না করে ২য় স্থান অর্জনকারীর আবেদন অগ্রায়ন করেন এবং উনাকে মে মাসের এম,পি,ও তে অন্তর্ভূক্ত করা হয়। তাছাড়া, অন্য ১ জন শিক্ষককে কারিগরি শাখায় নিয়োগ দিয়ে সাধারণ শাখায় এম,পি,ও ভূক্ত করা হয় এবং এক্ষেত্রে তিনি সাবেক শিক্ষক নুরুল আফছারের স্থলাভিষিক্ত হলেও এম,পি,ও’র কপি থেকে সাবেক শিক্ষকের নাম কর্তন করা না করে বিগত ১৫/০৫/২০১৭ ইং উনার এম,পি,ও’র আবেদন অগ্রায়ন করেন এবং মে মাসের এম,পি,ও তে উনাকে অন্তভূক্ত করা হয়।এ বিষয়ে আমি কর্তৃপক্ষের যথাযথ পদক্ষেপ ও হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

  3. মোহাম্মদ আলী মন্ডল (এটম), প্রভাষক (গণিত), রাজারহাট ফাজিল(ডিগ্রী) মাদ্রাসা,কুড়িগ্রাম। says:

    “বিজ্ঞান আশির্বাদ না অভিশাপ” বাংলা রচনা হিসাবে আমরা পড়েছিলাম। বিজ্ঞানের বিভিন্ন ইতিবাচক ও নীতিবাচক আলোচনার পর বিজ্ঞানকে আশির্বাদ হিসাবে উপসংহার টানা হয়। নবম শ্রেণিতে উঠে সবচেয়ে ভাল ছাত্র-ছাত্রীদেরকে শিক্ষক বিজ্ঞান, তারপর বাণিজ্য এবং মানবিক শাখায় পড়ার পরামর্শ দিতেন। বর্তমান শিক্ষা ব্যবস্থায় ” থাক থাক জেঠো আসুক কিংবা ভেজা গামছা বুকে দিয়ে” গ্রাম্য প্রবাদের ন্যায় চলছে। দেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে ১৩/১১/২০১১ ইং এর কালো পরিপত্র জারি করে বিজ্ঞান, ব্যবসা কিংবা আইসিটি…… যেকোনো শাখা/ শ্রেণি/ বিভাগ খোলা হোক না কেনো এমপিও দাবি করা যাবেনা প্রতিষ্ঠানের বেতনে শিক্ষক পরিচালনা করতে হবে। যা প্রায় ৬ বছর যাবৎ চলে আসছে। বেসরকারি প্রতিষ্ঠান নিজে ভাত পায়না শিক্ষক চালাবে কিকরে। তাই বর্তমান শিক্ষা ব্যবসায় জোড় গলায় বলা যায় অভিশাপ অভিশাপ অভিশাপ। আর কেউ বিজ্ঞান পড়োনা, জাতীয় ভাবে বিজ্ঞান শিক্ষাকে তুলে দেয়া হোক। সায়মা নিলুফা ম্যাডামের মত বেতন পেতে বিড়ম্বনার স্বীকার না হোক।

  4. Hasib says:

    Where are we? ১৭ বছর ধরে না খেয়ে আছি।

  5. Kanchan kumar Das says:

    ict শিক্ষকদের mpo দিন । আমরা খুব কষ্টে আছি, পূর্বের স্কুলের MPO নিয়ে বর্তমান স্কুলে নিয়োগ পেয়ে বেতন পাচ্ছিনা ৩৬ মাস।
    এভাবে র কতদিন?

আপনার মন্তব্য দিন