please click here to view dainikshiksha website

আইসিটি শিক্ষকদের কষ্টকথা-২

মো. জসিম উদ্দিন | আগস্ট ১৭, ২০১৭ - ১১:৫১ পূর্বাহ্ণ
dainikshiksha print

নিজের জমানো টাকা পয়সা যা ছিল আজ সব শেষ। আর কত ধার-দেনা করে চলব। বছরের পর বছর বিনা বেতনে চাকরি করছি, আমার যা কিছু হারাবার সব কিছু হারিয়ে ফেলেছি। এমনকি আমার মা, বাবা, ভাই, বোন থাকতেও তারা আমাকে দুরে সরিয়ে দিচ্ছে এই এমপিও না হওয়ার কারণে। এখন ভিক্ষা ছাড়া আমার আর কোন উপায় নেই। আইসিটি শিক্ষক হওয়াটাই কি আমার অপরাধ ছিল ?

আমার পরিবার আমাকে গত বছর বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে। আমার যাবার মত আর কোন রাস্তা নেই। আমাকে এখন কেউ দুইটা টাকাও ধার দেয় না। আমি ঈদে বাড়ি যাব, কিন্তু কাদের কাছে যাব, তাদেরকেই বা কী দিব। আমি খুব অসহায় হয়ে পড়েছি। সবার কাছে আমি আমার প্রাণ ভিক্ষা চাচ্ছি। আমি কিছুদিনের মধ্যেই আত্মহত্যা করতে চাই। আইসিটি শিক্ষকদের বেতন না পাওয়ার জন্য আমি এই পথ বেছে নিলাম। ঈদের পর ঈদ আসতেই থাকে, কিন্তু আইসিটি শিক্ষকদের বেতন এমপিও শীটে আসেনা। এ কেমন স্বাধীন দেশ। একই স্কুলে চাকরি করে সবাই বেতন পায়, আর আমি বেতন পাই না।

আমার স্কুলের অফিস সহকারিসহ  সবাই আমাকে ভয় দেখায়, আমি এখনও কেন ঈদের উৎসব বোনাসের শীট তৈরি করি নাই । আসলে তখন খুব কষ্ট  লাগে মনের ভিতরে। আর কত স্কুল ও শিক্ষদের কাজ বিনা বেতনে করে দিব। স্কুল থেকে কিছু টাকা সরকারি বিধি মোতাবেক পাবার কথা থাকলেও স্কুল কর্তৃপক্ষ আমাকে সেটা দিচ্ছে না। তাদেরকে প্রশ্ন করলে বলে স্কুলে থাকলে থাকেন, আর না থাকলে চলে যান। আমারতো আর যাবার জায়গা নেই। এখন মৃত্যুই  আমার একমাত্র সমাধান । আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী না, তবে যারা আমার বেতন নিয়ে ছিনিমিনি করছে তাদের জন্য আমি মরলাম।

সরকার  কোচিং বন্ধ করে একটা ভালো কাজ করেছে, কোচিং করলে চাকরি থাকবে না এমন প্রজ্ঞাপন ইতিমধ্যে জারি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।  কিন্তু আমি কী করে টাকা উপার্জন করব ? না পারব প্রাইভেট পড়াতে, না পারব চুরি করতে। আবার স্কুল থেকে বেতন দিবে না। এখন আপনারাই বলেন আমি কি করবো? স্কুলের এত কাজ করে কী লাভ হচ্ছে আমার বরং প্রতিনিয়ত কষ্ট পাচ্ছি।

আইসিটি শিক্ষকদের এমপিওর ব্যবস্থা করুন। আর যদি করতে না পারেন তাহলে তাদেরকে চাকরি থেকে বহিষ্কার করুন। আপনারা আপনাদের প্রতিষ্ঠান চালান, আমাদেরকে কেন রেখে কষ্ট দিচ্ছেন। আমার কথাগুলোর দ্বারা কেউ যদি  কোন রকমের কষ্ট পান, তাহলে  আমাকে ক্ষমা করবেন।

মো. জসিম উদ্দিন: সহকারি শিক্ষক  (কম্পিউটার), নারায়ণগঞ্জ ।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


পাঠকের মন্তব্যঃ ৬৩টি

  1. tarik says:

    Santona debar moto vasa jana nai.100% sotto kotha moron akmatro poth.

  2. মোসা: সাহিনা আক্তার, শরাফতি উচ্চ বিদ্যালয়, বরুড়া, কুমিল্লা says:

    সম্মানিত সম্পদক স্যার, আপনার সুদৃষ্টি কামনা করছি। আপনি একটু মাননীয় অর্থমন্ত্রীকে এবং মাননীয় অর্থমন্ত্রীকে জিঙগাসা করে দেখেন কবে নাগাদ আইসিটি শিক্ষকদের এমপিও দিবে এবং আদৌ দিবে কি না। Please স্যার আইসিটি শিক্ষকদের মানবেতর জীবন-যাপন থেকে রক্ষা করুন। Please sir.

  3. munni khatun says:

    are kosto pata china please mpo din kosto pata

  4. মোঃ আঃ রাজ্জাক says:

    আমিও আপনার মত

  5. md. billal hossain says:

    জানিনা কথাগুলোর উত্তর কে দিবে?

  6. মোফাজ্জল হোসেন says:

    স্যার আপনাকে ধন্যবাদ জানাই ভিতরের কষ্টের কথাগুলো প্রকাশ করার জন্য। শিক্ষা মন্ত্রী ও অর্থ মন্ত্রী এদের কারণেই ডিজিটাল শিক্ষা দিন দিন রসাতলে যাচ্ছে।

  7. শহিদুল ইসলাম,প্রভাষক,মনজুর কাদের মহিলা কলেজ,পাবনা says:

    ১৩.১১.১১এর পরিপএের কারনে যাদের এমপিও হচ্ছেনা,তাদের সবার একই অবস্থা। কালো পরিপএ তোলে দেওয়া হোক।

  8. মানিক মোহাম্মদ(রাসেল) says:

    ভাই, আপনার লেখা পড়ে কাঁদিনি।কেননা চোখের সকল অশ্রু মনে হয় শেষ হয়ে গেছে।আপনারা নিয়োগ পেয়ে বেতন পাচ্ছেন না।আর আমরা সবর্শেষ ১২ তম আইসিটি নিবন্ধন সনদ তোলার সাথে সাথে তা বাতিল করা হলো।১ মাসও ব্যবহার করতে পারি নি।অভিযোগ ৬ মাস প্রশিক্ষণ প্রাপ্তরা কম্পিউটার জানে না।অথচ,দেশের সকল আইসিটি শিক্ষক ৬ মাস মেয়াদী প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত।তাহলে আমরা কেন অচল?কেন মামলা, কেন এই অপেক্ষা?অবাক লাগে সবর্শেষ ১৪ তম সাকুর্লারেও(পদার্থ,রসায়ন,জীব) বিদ্যায় স্নাতক সহ ৬ মাস মেয়াদী কম্পিউটার প্রশিক্ষণ প্রাপ্তদের প্রভাষক (কম্পিউটার) পদে আবেদন করার সুযোগ দেওয়া হয়েছে এবং ২০১৬ সালে এনটিআরসিএ তাদের প্রভাষক পদে নিয়োগ দিয়েছে।অথচ এই ৬ মাস মেয়াদী কম্পিউটার প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত নিবন্ধনধারী গণ ডিপ্লামাধারীদের চেয়ে বেশি নম্বর পেয়েও স্কুলে সহকারী শিক্ষক (কম্পিউটার) পদে নিয়োগে অহেতুক জটিলতা তৈরি কেন করা হলো?যেহেতু কলেজে ৬ মাস মেয়াদী দের নিয়োগ দেওয়া হয়েছে তবে স্কুলে কেন নয়?পদার্থ, রসায়নে ম্নাতক ও অন্য বিষয়ের স্নাতকদের কম্পিউটার জ্ঞানে পাথর্ক্য নেই।কিন্তু নিয়োগে কেন এই অবিচার?কম্পিউটার অপারেটর ও কম্পিউটার শিক্ষক এক নয়।অপারেটর অশিক্ষিত লোকও হতে পারে।স্মার্টফোন আজকাল রিকশা ওয়ালা ভাইও ব্যবহার করে।তাই,আমাদের দাবি আইসিটি শিক্ষক দের বেতন দিন, আমাদের নিয়োগের রেজাল্ট দিয়ে নিয়োগ দিন।প্রশিক্ষণ দিয়ে আমাদের দক্ষ করে তুলুন।আমরা পারব ইনশাআল্লাহ ডিজিটাল বাংলা বিনির্মাণ ত্বরান্বিত করতে।

  9. harun,Raipura, Narsingdi says:

    জসিম স্যার আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। স্যার কামারের দোকানে কুরআন পাঠ করলে কোন লাভ হবে না।কারণ তারা আজ না কাল দিচ্ছে দিবে এ কথা বলে এপর্যন্ত ছয় বছর পার করে দিয়েছে ।শিক্ষা মন্ত্রী বলে প্রক্রিয়াধীন, অর্থমন্ত্রী বলে টাকা নাই,প্রধান শিক্ষক বলে থাকলে থাকেন না থাকলে চলে যান। এখন আমাদের অবস্থা মরা ছাড়া কোনো উপায় নাই।

  10. moni says:

    আমিও মারা যাব।ভাই আপনার যে অবব্থা আমার ও সে অবব্থা। এমপিও না পাইলে মারা যাব। দায়ী থাকবে অথমন্তী ও শিক্কা মন্তি।মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনি আমাদের mpo বিষয় কথা বলেন। তারাতারি ব্যবস্তা নিন।জীবন ভিক্কা চাই আমাদের বাচান।

  11. মোহাম্মদ দ্বীন ইসলাম says:

    স্যার আপনাকে নন এমপিও আইসিটি শিক্ষকদের পক্ষ হতে হাজার হাজার ধন্যবাদ। আমাদের সকলের মনে একই দুঃখ। কিন্তু স্যার আমরা কার কাছে যাব। আল্লাহ যদি নিজ হাতে দয়া করে তবে যদি বেতন পাই। তা ছাড়া মনে হয় সরকার আমাদের কথায় কোন কান দিবেনা।

  12. খুব ভাল লিখেছেন। আপনাকে হাজার সালাম ভাই। says:

    খুব ভাল লিখেছেন। আপনাকে হাজার সালাম ভাই। আমি ও একজন আইসিটি শিক্ষক।

  13. মো:জোবায়ের says:

    আমি খোজ নিয়ে দেখেছি প্রায় সবার ই এক অবস্থা।

  14. আমাদেরকে এমপিও দিন। আমরা ডিজিটাল বাং লা দিবো। says:

    এর পরের লাইন কেবলই চোখের জল

  15. মোঃএজারুল হক। says:

    দায়িত্ববান কর্মকর্তারা বসে বসে লম্বা লম্বা লেকচার দেয় আর শিক্ষা ক্ষেএে অসামান্য অবদানের জন্য পুরস্কার নেয় আবার বলে ডিজিটাল বাংলাদেশ যে দেশে ডিজিটাল শিক্ষকের বেতন নাই সেটা আবার কিসের ডিজিটাল?

  16. মো: আবু সাঈদ says:

    ভাই আমরা যারা আইসিটি তে নিবন্ধন করেছি তারা মানুষ না তাদের কোন ইচ্ছে থাকা যাবে না। এটা অপরাধ। সহকারী শিক্ষক কম্পিউটার এর রিটের রায় হয়ে গেছে একমাস আগে এখনো ফলাফল দিলো না এনটিআরসিএ ফলাফল তো আগেই রেডিকরা আছ তাইলে প্রকাশ করতে এত গরিমসি কেন??? এদের জীবন যৌবন সব শেষ করে তারপর ফলাফল দিবে। পরিবার ও সমাজের কাছে আর কত ছোট হতে হবে। কেউ বলবেন কি???

  17. raihan hossain says:

    এমপিও ভুক্ত প্রতিষ্ঠানে সরকারি বিধি মোতাবেক প্যাটার্ন ভুক্ত পদে নিয়োগ পেয়ে কম্পিউটার/ict শিক্ষকদের বেতনভাতা না দেয়া টা অত্যন্ত বেদনার,
    এক ই কাজ করে কেও বছর এর পর বছর বেতন কেন পায় না???

  18. মোঃএজারুল হক। says:

    শিক্ষা ক্ষেএে কতগুলো কালো পরিপএ জারি করে তথা আই সি টি শিক্ষকের সাথে তামাসা চালাচ্ছে।

  19. মোঃ আশরাফুল হক প্রভাষক, দুহুলী টেকনিক্যাল এন্ট বিজনেস ম্যানেজম্যান্ট কলেজ, লালমনিরহাট says:

    ভাই কিছুই করার নেই! আল্লাহর কাছে সাহায্য প্রার্থনা কর।

  20. Md.Jowel Rana says:

    আপনার সাথে আমিও আছি ।এত কষ্ট আর সইতে পারছি না।

  21. beton hin ict says:

    মন্তব্য vi apnar kotha akdom tthik ase. apnar mato amar akoi obosta. ei jibon er ki dam. amader koster janno sarker daee. tini chile amader mpo dite paren. sobai tar shathe dekha kori.

  22. মোঃ শহিদুল ইসলাম,সহকারি শিক্ষা,কলাপাড়া।মোবা ০১৭১২৪২৬৩২২ says:

    আমার মনে হয়,শিক্ষক দরদী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখহাসিনা বাংলাদেশে যে আইসিটি শিক্ষক প্রত্যেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আছে সেটা জানেন না।আর আমাদের যে শিক্ষা মন্ত্রী আছে সেও সাহসের অভাবে তাকে বুঝিয়ে বলতে পারছে না।তাই সবার উচিৎ বসে না থেকে একযোগে একটা কিছু করা।

  23. মোহাম্মদ আলী মন্ডল (এটম), প্রভাষক (গণিত), রাজারহাট ফাজিল(ডিগ্রী) মাদ্রাসা,কুড়িগ্রাম। says:

    মো: জসিম উদ্দিন ভাই আপনাকে আর কি বলব, কপালের লিখন যায়না খন্ডন। সৃষ্টপদের সকল শিক্ষক এক হয়ে ১৩/১১/২০১১ ইং এর প্রজ্ঞাপন বাতিলের আন্দোলন করুন।

  24. yasin says:

    স্যার আপনাকে ধন্যবাদ জানানোর মত ভাষা হারিয়ে ফেলেছি।আর কয়টা দিন অপেক্ষা করে দেখেন।এই মুহূ্র্তে কঠিন কোন সিদ্ধান্ত নিয়েন না যার জন্য জাতিকে কলঙ্কিত হতে হয়।

  25. মমিনুর রহমান, সহকারি শিক্ষক(আইসিটি)মওলানা কসিমুদ্দিন স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালয়,পাবনা says:

    মানুষ বেচেঁ থেকেও বারবার মরে। সে মরা দুষ্ট প্রকৃতির মানুষের। যা হোক লোকে বলে আমরা তো মানুষ গড়ার কারিগর। যাদেরকে আমরা শিক্ষায় শিক্ষিত করে মানুষ করার দায়িত্ব নিয়েছি তা বিফলে যাওয়ার নয়। শ্রমিকের প্রাপ্য মজুরি দেওয়া উচিত। না হলে জাতি দায় মুক্ত হতে পারবে না। এমপিও আমাদের অধিকার কেননা সরকারি বিধি মোতাবেক যথাযথ সময়ের নিয়ম কানুন মেনে নিয়োগ পেয়েছি। অবিলম্বে সরকারের কাছে ইতিপূরবে নিয়োগকৃত আইসিটি শিক্ষকদের বকেয়াসহ এমপিও ভুক্ত করণের আবেদন জানাচ্ছি।

  26. Ehasnul says:

    এদেশে শিক্ষকের বেতন না।

  27. mohsin says:

    আপনার মন্তব্যsokol bisyer ki valo obosta ogulo ki kaddo chahida nei?

  28. লাইলি says:

    জসিম স্যার, আল্লাহ দিবে,কেন দিবেনা আমরা ict teacher রা কি অপরাধ করেছি।

  29. মোহাম্মদ আলী মন্ডল (এটম), প্রভাষক (গণিত), রাজারহাট ফাজিল(ডিগ্রী) মাদ্রাসা,কুড়িগ্রাম। says:

    ১৩/১১/২০১১ ইং এর প্রজ্ঞাপন :
    সরকার এই মর্মে সিদ্ধান্ত গ্রহন করেছে যে, বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান(স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমুহ) এর শিক্ষক- কর্মচারীদের বেতন-ভাতাদি সরকারি অংশ প্রদান এবং জনবল কাঠামো সম্পর্কিত এমপিও নির্দেশিকা ২০১০ এ যাই থাকুক না কেনো? পূণরাদেশ না দেয়া পর্যন্ত এই আদেশ জারির পর হতে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (স্কুল, কলেজ,মাদ্রাসা ও কারিগরি) অতিরিক্ত শ্রেণি শাখা/ বিভাগ খোলার ক্ষেত্রে উক্ত শ্রেণি শাখা/ বিভাগের বিপরীতে নিযুক্ত শিক্ষকের বেতন- ভাতা সংশ্লিষ্ঠ প্রতিষ্ঠান কর্তৃক বহন করতে হবে। তাদের বেতন- ভাতা সরকার বহন করবেন না।ইতোপূর্বে যে সকল প্রতিষ্ঠানে শ্রেণি শাখা/বিভাগ খোলার অনুমোদন দেয়া হয়েছে। সে ক্ষেত্রে এ আদেশ প্রযোজ্য হবে না।
    ২। উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের অনুমোদনক্রমে এ আদেশ জারি করা হলো যা অবিলম্বে কার্যকর হবে।

  30. মোহাম্মদ আলী মন্ডল (এটম), প্রভাষক (গণিত), রাজারহাট ফাজিল(ডিগ্রী) মাদ্রাসা,কুড়িগ্রাম। says:

    ১৩/১১/২০১১ ইং এর প্রজ্ঞাপন :
    সরকার এই মর্মে সিদ্ধান্ত গ্রহন করেছে যে, বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান(স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমুহ) এর শিক্ষক- কর্মচারীদের বেতন-ভাতাদি সরকারি অংশ প্রদান এবং জনবল কাঠামো সম্পর্কিত এমপিও নির্দেশিকা ২০১০ এ যাই থাকুক না কেনো? পূণরাদেশ না দেয়া পর্যন্ত এই আদেশ জারির পর হতে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (স্কুল, কলেজ,মাদ্রাসা ও কারিগরি) অতিরিক্ত শ্রেণি শাখা/ বিভাগ খোলার ক্ষেত্রে উক্ত শ্রেণি শাখা/ বিভাগের বিপরীতে নিযুক্ত শিক্ষকের বেতন- ভাতা সংশ্লিষ্ঠ প্রতিষ্ঠান কর্তৃক বহন করতে হবে। তাদের বেতন- ভাতা সরকার বহন করবেন না।ইতোপূর্বে যে সকল প্রতিষ্ঠানে শ্রেণি শাখা/বিভাগ খোলার অনুমোদন দেয়া হয়েছে। সে ক্ষেত্রে এ আদেশ প্রযোজ্য হবে না।
    ২। উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের অনুমোদনক্রমে এ আদেশ জারি করা হলো যা অবিলম্বে কার্যকর হবে।
    অবিলম্বে জাতির স্বার্থে, শিক্ষকের স্বার্থে এই প্রজ্ঞাপন বাতিলকরে সৃষ্টপদের সকল শিক্ষকের এমপিও দেয়া হোক।

  31. মোহাম্মদ আলী মন্ডল (এটম), প্রভাষক (গণিত), রাজারহাট ফাজিল(ডিগ্রী) মাদ্রাসা,কুড়িগ্রাম। says:

    ১৩/১১/২০১১ ইং এর প্রজ্ঞাপন :
    সরকার এই মর্মে সিদ্ধান্ত গ্রহন করেছে যে, বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান(স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমুহ) এর শিক্ষক- কর্মচারীদের বেতন-ভাতাদি সরকারি অংশ প্রদান এবং জনবল কাঠামো সম্পর্কিত এমপিও নির্দেশিকা ২০১০ এ যাই থাকুক না কেনো? পূণরাদেশ না দেয়া পর্যন্ত এই আদেশ জারির পর হতে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (স্কুল, কলেজ,মাদ্রাসা ও কারিগরি) অতিরিক্ত শ্রেণি শাখা/ বিভাগ খোলার ক্ষেত্রে উক্ত শ্রেণি শাখা/ বিভাগের বিপরীতে নিযুক্ত শিক্ষকের বেতন- ভাতা সংশ্লিষ্ঠ প্রতিষ্ঠান কর্তৃক বহন করতে হবে। তাদের বেতন- ভাতা সরকার বহন করবেন না।ইতোপূর্বে যে সকল প্রতিষ্ঠানে শ্রেণি শাখা/বিভাগ খোলার অনুমোদন দেয়া হয়েছে। সে ক্ষেত্রে এ আদেশ প্রযোজ্য হবে না।
    ২। উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের অনুমোদনক্রমে এ আদেশ জারি করা হলো যা অবিলম্বে কার্যকর হবে।
    অবিলম্বে জাতির স্বার্থে, শিক্ষকের স্বার্থে এই প্রজ্ঞাপন বাতিলকরে সৃষ্টপদের সকল শিক্ষকের এমপিও দেয়া হোক।
    ১৩/১১/২০১১ইং এর পর আইসিটি, উৎপাদন ব্যবস্থাপনা ও বিপণন, ব্যাংকিং ও ফিন্যান্স, কৃষি,পরিসংখ্যান, ভুগোল,অতিরিক্ত শাখা এবং বিজ্ঞান বিভাগ সহ যত বিষয়ে অনুমোদন পেয়েছে সবাই প্রায় ১০০০০ এরও বেশি শিক্ষক এক পথের পথিক। সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করুন সময় বেশি লাগবে না। ধন্যবাদ জানাই দৈনিক শিক্ষা ডট কমকে, যেখানে সবাই মনের দুঃখ, কষ্ট শেয়ার করতে পারে।

  32. আলামিন সোহেল says:

    ভাই, আপনার লেখা পড়ে কাঁদিনি।কেননা চোখের সকল অশ্রু মনে হয় শেষ হয়ে গেছে।আপনারা নিয়োগ পেয়ে বেতন পাচ্ছেন না।আর আমরা সবর্শেষ ১২ তম আইসিটি নিবন্ধন সনদ তোলার সাথে সাথে তা বাতিল করা হলো।১ মাসও ব্যবহার করতে পারি নি।অভিযোগ ৬ মাস প্রশিক্ষণ প্রাপ্তরা কম্পিউটার জানে না।অথচ,দেশের সকল আইসিটি শিক্ষক ৬ মাস মেয়াদী প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত।তাহলে আমরা কেন অচল?কেন মামলা, কেন এই অপেক্ষা?অবাক লাগে সবর্শেষ ১৪ তম সাকুর্লারেও(পদার্থ,রসায়ন,জীব) বিদ্যায় স্নাতক সহ ৬ মাস মেয়াদী কম্পিউটার প্রশিক্ষণ প্রাপ্তদের প্রভাষক (কম্পিউটার) পদে আবেদন করার সুযোগ দেওয়া হয়েছে এবং ২০১৬ সালে এনটিআরসিএ তাদের প্রভাষক পদে নিয়োগ দিয়েছে।অথচ এই ৬ মাস মেয়াদী কম্পিউটার প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত নিবন্ধনধারী গণ ডিপ্লামাধারীদের চেয়ে বেশি নম্বর পেয়েও স্কুলে সহকারী শিক্ষক (কম্পিউটার) পদে নিয়োগে অহেতুক জটিলতা তৈরি কেন করা হলো?যেহেতু কলেজে ৬ মাস মেয়াদী দের নিয়োগ দেওয়া হয়েছে তবে স্কুলে কেন নয়?পদার্থ, রসায়নে ম্নাতক ও অন্য বিষয়ের স্নাতকদের কম্পিউটার জ্ঞানে পাথর্ক্য নেই।কিন্তু নিয়োগে কেন এই অবিচার?কম্পিউটার অপারেটর ও কম্পিউটার শিক্ষক এক নয়।অপারেটর অশিক্ষিত লোকও হতে পারে।স্মার্টফোন আজকাল রিকশা ওয়ালা ভাইও ব্যবহার করে।তাই,আমাদের দাবি আইসিটি শিক্ষক দের বেতন দিন, আমাদের নিয়োগের রেজাল্ট দিয়ে নিয়োগ দিন।প্রশিক্ষণ দিয়ে আমাদের দক্ষ করে তুলুন।আমরা পারব ইনশাআল্লাহ ডিজিটাল বাংলা বিনির্মাণ ত্বরান্বিত করতে।

  33. মোঃ বাবুল গাজী সহকারি শিক্ষক(গণিত), গলাচিপা ,পটুযাখালী। says:

    ভাইয়েরা আপনাদের কষ্টের কথা শুনে খারাপ লাগছে ।আমরা এম পি ভূক্ত শিক্ষক হিসেবে আপনাদের সাথে আছি। আন্দোলন ছাড়া আর কোন উপায় নেই।কাজেই আন্দোলনে নামুন আমরা আপনাদের সাথে থাকবো।

  34. মোঃ আলাউদ্দিন, সহকারী শিক্ষক says:

    স্যার আপনাকে ধন্যবাদ জানানোর মত ভাষা হারিয়ে ফেলেছি।

  35. মোহাম্মদ আবুল হোসেন says:

    আসুন আমরা সবাই মিলে এক সাথে সচিবালয়ের সামনে অবস্থান করে আত্মহত্যা করি।বিশ্ববাসী জানুক দুনিয়াতে বাংলাদেশ নামে একটি রাষ্ট্র আছে যেখানে টিচার নামের মহত পেশার লোকেরা ছয় বছর বেতন না পেয়ে আত্মহত্যা করেছে।

  36. মোঃ রফিকুল ইসলাম says:

    আইসিটি শিক্ষকের চোখের কান্না দেখার কেউ নেই। হায়রে দুনিয়া।

  37. Rubel says:

    মো: জসিম উদ্দিন ভাই আপনি আমার মনের কথা বলছেন। আমিও আপনার সাথে আছি….

  38. nil kanta karala madhabbati high school biral dinajpur says:

    mpo din moron bachan please …..

  39. MD. MASUD RANA says:

    ধন্যবাদ স্যার আপনাকে আমাদের ও একই

  40. Miss. Purnima (assistant teacher, science) says:

    জসিম ভাই, আমার বুক আর ফাটাবেন না, কথা দিন।

  41. এম.সোলায়মান এম.এ says:

    কম্পিউটারের রেজাল্ট প্রকাশ করতে এতো দেরি ক্যান?

  42. মোঃ আখতারুজ্জামান সহ শি দরসানা দি এস ডিগ্রী মাদরাসা দামুরহুদা , চুয়াডাঙ্গা । says:

    আমাদের বাঁচান

  43. Akteruzzaman.Akter says:

    আপনার মন্তব্য
    শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয় করন করা হলে
    সব সমস্যা দুর হবে ।

  44. সুশীল চন্দ্র মিস্ত্রী,সভাপতি,বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি,কাঠালিয়া,ঝালকাঠি। says:

    দূর্ভাগা জাতির একি কষ্ট, একি লজ্জা। শিক্ষকদের অভূক্ত রেখে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়া কখন সম্ভব নয়। তাই তাদের কষ্ট অনুভব করে অচিরেই এম,পি,ও,বিহিন শিক্ষকদের এম,পি,ও,ভূক্ত করা একান্ত প্রয়োজন।

  45. মুহা.সাইফুল্লহ বিন জাকারিয়া.পিরোজপুর, মঠবাড়ীয়া. মুঠোফোন-01719-482639 says:

    মাননায় প্রধানমন্ত্রী আপনার ইচ্ছা বাংলাদেশকে ডিজিটাল গড়ার, তাকি আইসিটি /কম্পিউটার শিক্ষকদের এমপিও না দিয়ে ডিজিটাল হয়রানি করে? ????????????????????

  46. বিপ্লব বালা says:

    জসিম স্যার কষ্টের কথা কেউ শোনে না, কষ্টের ভাগি কেউ হয় না। আপনি একা নন আরো অনেকে আছি। জসিম স্যার আপনার কষ্টের কথা দৈনিকশিক্ষায় প্রকাশ হয়েছে তবে এমপিওর সাথে জড়িত ব্যক্তিরা এটা পড়বে বলে মনে হয় না। কারণ তাদের সময় কোথায়?

  47. মোহাম্মদ আমজাদ হোসেন says:

    ভাই আপনার মত ১৪শত আইসিটি প্রভাষকও মানবেতর জীবন যাপন করছে।
    আইসিটি শিক্ষকদের দুঃখ শোনারমত কেউ নেই। আহারে আইসিটি।

  48. MD. RAIS UDDIN SARKER, LECTURER, PAKERHAT COLLEGE, KHANSHAMA, DINAJPUR. says:

    মোহাম্মদ আলী মন্ডল ভাই আপনার সাথে আমিও একমত।

  49. মোঃ ছানোয়ার হোসেন, সহকারি শিক্ষক আইসিটি, বাঁশখুর ফাজিল (ডিগ্রি) মাদ্রাসা, পাঁচবিবি, জয়পুরহাট। says:

    মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শেখহাসিনা ২০২১ইং সালের মধ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার ঘোষনা দিয়েছেন তা বাস্তবায়ন করার জন্য অবিলম্বে আইসিটি শিক্ষকদের এমপিওভূক্ত করা আবশ্যক। ১৩/১১/২০১১ইং তারিখটি শিক্ষা বিভাগের এক কালো অধ্যায়। ১৩/১১/২০১১ইং তারিখের পূর্বে কম্পিউটার (ঐচ্ছিক) বিষয়ে যারা নিয়োগ পেয়েছেন তারা এমপিওভূক্ত হয়েছেন। জাতীয় শিক্ষা নীতি ২০১০ এ ষষ্ঠ থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্তু আইসিটি (কম্পিউটার) বিষয়কে আবশ্যক করা হয়েছে। ১৩/১১/২০১১ইং তারিখের পরে সরকারি বিধিমোতাবেক আইসিটি (কম্পিউটার) বিষয়ে নিয়োগ পেয়ে আজও এমপিও ভূক্ত করা হয়নি। “কেউ খাবে কেউ খাবেনা, তা হবেনা তা হবেনা!” আইসিটি শিক্ষক হওয়া যদি আমাদের অপরাধ হয়, তাহলে ফাসি দিন নতুবা অবিলম্বে এমপিও দিন।

  50. উমর says:

    ডিজিটাল দেশের ডিজিটাল শিক্ষক। এই যদি হয় আই সি টি শিক্ষকদের অবস্থা তাহলে তথ্য প্রযুক্তিতে কিভাবে উন্নয়ন করবে দেশ? পাগলের প্রলাপ মাত্র…………………

  51. মো: নুরুজ্জামান,প্রভাষক, গিন্নিদেবী আগরওয়াল মহিলা মহাবিদ্যালয়, রুহিয়া, ঠাকুরগাঁও। says:

    মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী/অর্থমন্ত্রী মহোদয়,
    আইসিটি বিষয়ের নন-এমপিও শিক্ষকদের সরকারি বেতন/ভাতা প্রদানের জোর সুপারিশ করছি। অন্যথায় মরার বিষ দিন,অনাহারে-অর্ধাহারে না থেকে বিষ খেয়ে মৃত্যবরণ করি। এভাবে আর পারছি না,,,,,,

  52. juwel ahmed says:

    ভাই লেখাটি খুবই দুঃখজনক। আমি ১২তম কম্পিউটারে ৬ মাস কোর্স নিবন্ধন প্রাপ্ত্ শিক্ষক। হাইকোর্টে মামলা করে রায় আমাদের পক্ষে আনলাম। ভাবছিলাম নিয়োগ পেয়ে বেকারত্ব দূর করব, কিন্তু আপনার লেখাটি পড়ে নিজেকে খুবই অসহা
    য় মনে হয়। আমাদের কথা শুনার মত কেঊ নেই আমি শিক্ষামন্ত্রীর বাসায় গেলাম এবং এ ব্যাপারে স্যারের সাথে আলাপ করলাম কিন্তু কোনো সমাধান হল না। ভাগ্্যের নির্মম পরিহাস সেখান থেকে খালি হাতে পিরে আসলাম।
    জুয়েল আহমদ বড়লেখা,মৌলভীবাজার

  53. Milon Biswas says:

    vai amar o oi eki obosta swadhin desher nagorik amra othocho amra sob khertrei poradhin. ami age ekta cakrI kortam kintu sekhane kono swadhinota chilona tobe mas sheshe poket vore taka petam tai ektu holeo shanti chilo ekhonto tao nei.

  54. মো: শহিদুল ইসলাম says:

    প্রথমে আল্লাহর শুকর ও সাহায্যে কামনা করে, মাননীয় প্রধান মন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী’ শিক্ষামন্ত্রী সহ সকল মন্ত্রী মহোদয়ের কাছে আকুল আবেদন আপনারা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়িয়েছেন, কিন্তু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সকল শিক্ষকগণ মাস অতিবাহিত হলে তারা সরকারী অনুদান গ্রহণ করে কিন্তু তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির শিক্ষকগন বঞ্চিত হচ্ছে। তাদের কি পরিবার পরিজন নাই, তাদের কি সন্তান-সন্ততি নাই। অথচ তারা না পায় সরকারী অনুদান আর না পায় প্রতিষ্ঠান থেকে কোন অর্থ আমাদের কি আইসিটি শিক্ষক হওয়া পাপ, না শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে ছাত্র/ছাত্রীদের শিক্ষা দেওয়া পাপ, আমাদের কি কোন দিন এমপিও হতে পারবো না। আমরা কিভাবে আমাদের পরিবার চালাবো, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন আপনি আইসিটি শিক্ষকদের এমপিও ব্যবস্থা করুণ।

  55. আনোয়ার,হাটুলিয়া দাখিল মাদ্রাসা ,ঈশ্বরগনজ,ময়মনসিংহ৷ says:

    ict teacher দের দূত mpo দিন৷আর পারছি না৷

  56. md.jahangir alom says:

    আপনার মন্তব্য আসুন সবাই মিলে প্রেস ক্লাবের সামনে আমরন অনশন করি ১৩/১১/১১পরিপত্রটি বাতিলের জন্য।আর সবালই দয়া করে মোবাইল নম্বর দিবেন।

  57. মানিক মোহাম্মদ (রাসেল) says:

    রায় হওয়ার পর রায়ের কপি তুলতে ৩ মাস বা আরো বেশি সময় লাগে।তাই সবাইকে ধৈর্য্য ধরতে হবে।সরকার আপিলে গেলে দৈনিক শিক্ষার মাধ্যমে যোগাযোগ করে সকল আইসিটি নিবন্ধনধারী গণ মোবাইলে কথা বলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সার্বিক সহযোগিতায় অগ্রসর হতে হবে।রীটধারীদের সাহায্য করতে হবে।নিয়োগ পাবে সবাই ,কষ্ট করছেন কয়েকজন ।তা হয় না।একমাত্র আল্লাহই আমাদের সহায়,কারণ আমরা মজলুম। আমাদের দোয়া কবুল হবেই।তাই যারা নিয়োগের পর বেতন পাচ্ছেন না,এবং যারা মামলার কারণে রেজাল্ট পাচ্ছেন না ,নিয়োগ বিলম্ব হচ্ছে তাদের একটাই পথ ।আসুন আমরা তাহাজ্জুদ সহ অন্যান্য নামায পড়ে আল্লাহর কাছে আরও বেশি কাঁদতেই থাকি।তিনি যেদিন দোয়া কবুল করবেন সেদনিই হবে।দেখবেন একদিন আইসিটি শিক্ষক দের বিজয় হবে ইনশাআল্লাহ। হতাশ হয়েছি তারপরও ভরসা মালিক আল্লাহই।
    রেজাল্ট প্রকাশ পেতে একটু সময় লাগবে আইনি বিষয় তো।

  58. মুহাঃ তাহির হোসেন, প্রভাষক সমাজকর্ম says:

    আমরণ অনশন একমাত্ত পথ

  59. মোহাম্মদ সিদ্দিকুর রহমান says:

    আল্লাহ আইসিটি শিক্ষকদের সবাইকে নিয়োগের ব্যবস্থা করে দিন। আমীন।

  60. abdullah al mamun says:

    amoron anoson korta hoba….

আপনার মন্তব্য দিন