আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে ফাইভজি - বিবিধ - Dainikshiksha

আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে ফাইভজি

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

অনেক দিন ধরেই আমরা শুনে আসছি যে, ফাইভজি আমাদের খুব নিকটে। ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি স্মার্টফোনও বাজারে এসেছে ফাইভজি সমর্থযোগ্য। ফাইভজি টেকনোলজি আর আমাদের বর্তমান অবস্থার মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। তবে এটি সম্পষ্ট যে ফোরজি নেটওয়ার্কের চেয়ে ফাইভজি দশগুণ বেশি দ্রুতগামী।

এতে করে ব্যবহারকারীরা মুভি দেখা, অনলাইনে গেম খেলা, বিভিন্ন রকম ডকুমেন্টস ডাউনলোড করতে বিশেষ সুবিধা ভোগ করতে পারবে। শুধু স্পিড নয়, আপনার বাড়ির ব্রডব্যান্ড ও ফাইভজি দ্বারা সম্পূর্ণ রিপ্লেস করে ফেলা সম্ভব। সাথে নতুন এই টেকনোলোজিতে এক সঙ্গে অনেক বেশি ডিভাইস কানেক্টেড রাখা যাবে। রবিবার (২১ জুলাই) ইত্তেফাক পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা যায় । প্রতিবেদনটি লিখেছেন মোজাহেদুল ইসলাম।

সেলফোন টাওয়ার থেকে কেবল শুধু আপনার ফোন নয়, আপনার ল্যাপটপ, পিসি, টিভি, ফ্রিজ, এক কথায় ইন্টারনেট অব থিংকসগুলোকে সহজেই কানেক্টেড রাখা যাবে। এমনকি সেলফ ড্রাইভ কারের মধ্যেও ফাইভজি চিপ লাগানো থাকবে যাতে কারগুলো সরাসরি সেল টাওয়ারের সাথে কানেক্টেড থাকতে পারে।

সামনের দিনে ফাইভজি ব্যবহার করে ওয়্যারলেস ভার্চুয়াল রিয়্যালিটি ডিভাইসগুলো জনপ্রিয়তা পেতে পারবে, তাছাড়া যত বেশি ডিভাইসগুলো অনলাইন হতে শুরু করবে, ফাইভজির প্রয়োজনীয়তা আরো বেশি বেড়ে যাবে। আর ফাইভজির আলট্রা ফাস্ট জিবিপিএস ইন্টারনেট তো রয়েছেই!

ফাইভজি মানেই সম্পূর্ণ নতুন ইনফ্রাস্ট্রাকচার

ফাইভজি প্রদান করার জন্য আপনার সেলফোন প্রোভাইডারকে তাদের নেটওয়ার্ক সিস্টেমের অনেক কিছু পরিবর্তন করতে হবে। থ্রিজি, বা ফোরজি টেকনোলজি হাতে ধরিয়ে দিতে তাদের নেটওয়ার্কিং সিস্টেমে তেমন পরিবর্তন আনার প্রয়োজন পড়েনি, তারা আগের সেল টাওয়ার ব্যবহার করেই টুজি, থ্রিজি, ফোরজি প্রোভাইড করছে। কিন্তু ফাইভজি সম্পূর্ণ আলাদা স্টাইলে কাজ করে।

ফাইভজি যেহেতু আলট্রা হাই-স্পিড ইন্টারনেট প্রদান করতে সক্ষম, তাই মোবাইল অপারেটরদের আরো সূক্ষ্ম রেডিও তরঙ্গ ব্যবহার করতে হবে। আর সায়েন্স অনুসারে রেডিও তরঙ্গদৈর্ঘ্য যত ছোটো হবে ব্যান্ডউইথ স্পিড বাড়বে কিন্তু সিগন্যাল রেঞ্জ কমে যাবে। বর্তমানে ফোরজি সিগন্যালের রেঞ্জ প্রায় ১০ মাইল পর্যন্ত, কিন্তু ফাইভজির সিগন্যাল রেঞ্জ কেবল ১,০০০ ফিট যেটা ফোরজির রেঞ্জের ২% ও নয়। এরমানে ৫জি ঠিকঠাক মতো পরিচালনা করতে অনেক সাব-টাওয়ার ইন্সটল করতে হবে। ফাইভজি সেল টাওয়ার নিয়ে লেখা আর্টিকেলে আরো বিস্তারিত জানতে পারবেন।

চ্যালেঞ্জিং ব্যাপারগুলো নিয়েও ভাবার সময় এসেছে। দেখুন ঠিকঠাক ফাইভজি সার্ভিস দেওয়ার জন্য অপারেটরগুলোকে হাজারো নতুন নতুন টাওয়ার ইন্সটল করতে হবে, বাসার ছাদে কিংবা রাস্তার বৈদ্যুতিক খুঁটির সাথে এই সেল টাওয়ারগুলো হয়তো ইন্সটল করা থাকবে। যেগুলো সেটআপ করতে অপারেটরগুলোর কোটি কোটি টাকা খরচ হয়ে যাবে। এখন অপারেটর’রা ঠিক কতটা ইনভেস্ট করবে সেটাও একটা প্রশ্নের ব্যাপার।

অপরদিকে ফাইভজির সিগন্যাল অত্যন্ত ছোটো এবং মিলিমিটার রেডিও ফ্রিকোয়েনি্স ব্যবহার করার জন্য গ্রাম্য এলাকায় ফাইভজি নিশ্চিত করা অনেক কঠিন হয়ে দাঁড়াবে। আবার সামান্য বড় গাছও ফাইভজির সিগন্যাল ব্লক করতে পারে, সেক্ষেত্রে বাড়ির বেশি অভ্যন্তরীণ কোনো রুমে সিগন্যাল প্রবলেম বেশি দেখা যেতে পারে।

ফাইভজি থেকে ক্যানসারের গুজব

ফাইভজি নেটওয়ার্ক বিস্তারে যখন সারাদেশে টাওয়ার ইন্সটল করা হবে, তখন কমিউনিটি বা সমাজ-সেবকরা বাধা হয়ে এসে দাঁড়াবেন, কেননা ফাইভজি থেকে ক্যানসার ছড়ানোর এক গুজব ছড়িয়ে রয়েছে চারি দিকে।

বিশেষজ্ঞরা এখনো ফোরজি বা ফাইভজি থেকে যে ক্যানসার হতে পারে এই ব্যাপারে নিশ্চিত নন। তবে বাজারে অনেক প্রচলিত গুজব রয়েছে। টেকনিক্যালভাবে ফাইভজিতে নন-আয়োনাইজিং রেডিয়েশন রয়েছে যেটা মানব দেহের কোনই ক্ষতি করতে পারে না।

অনেকেই এটা বিশ্বাস করে ফাইভজি রেডিয়েশন থেকে ক্যানসার হতে পারে। এফসিসির অনুসারে তারা এখনো ফাইভজি সিগন্যালে ক্ষতিকর কিছু খুঁজে পায়নি, কিন্তু তারা এটাও বলেছে তাদের এখনো আরো গবেষণা করতে বাকি রয়েছে।

ফাইভজি ডিভাইস যথেষ্ট নয়

দেশে ফাইভজি আসার পরেও সেটা মাত্র কয়েকটা শহরে বা নির্দিষ্ট কিছু এলাকায় চালু করা হবে, আগেই বলেছি গ্রামীণ এলাকাগুলোতে ফাইভজি প্রোভাইড করা অনেক চ্যালেঞ্জিং ব্যাপার হয়ে দাঁড়াবে। যেখানে আমেরিকার মতো দেশগুলো ফাইভজি প্রোভাইড করতে হিমশিম খেয়ে যাচ্ছে, সেখানে আমাদের দেশের কি হাল হতে পারে ভাবায়ই যায় না।

ধরুন, কোনো মোবাইল অপারেটর সকল প্রয়োজনীয় আপগ্রেড করার মাধ্যমে কোনোভাবে ফাইভজি আপনার বাসা পর্যন্ত বা শহর পর্যন্ত পৌঁছিয়ে দিল, কিন্তু আপনার সেটা ব্যবহার করার জন্য তো একটি ফাইভজি সমর্থনযোগ্য ডিভাইস লাগবে। যদিও বর্তমানে আমাদের ফাইভজি আসবে না, কিন্তু ২০২০ এর দিকেও যদি ফাইভজি আসে সেক্ষেত্রেও খুব বেশি ফাইভজি সমর্থনযোগ্য ডিভাইস হয়তো খুঁজে পাওয়া যাবে না। আর পাওয়া গেলেও দাম কতটা সাধ্যের মধ্যে থাকবে কি না সে ব্যাপারেও প্রশ্ন থেকে যায়।

ফাইভজি মানে সেকেন্ডে ডাউনলোড নয়

আপনার ইন্টারনেট স্পিড গিগাবিট/সেকেন্ড হয়ে যাবে, আর সেকেন্ডের মধ্যেই সব মুভি আর যে কোনো ইন্টারনেট ফাইল ডাউনলোড করে ফেলতে পারবেন —সব সময় ব্যাপারটা কিন্তু এরকম হয় না। প্রথমত, আপনি যে সার্ভার থেকে ফাইল ডাউনলোড করছেন তার ও সেই স্পিড সাপোর্ট থাকতে হবে। যদি আপনার সার্ভার কেবল ১০ এমবিপিএস-এ লিমিটেড হয় সেক্ষেত্রে আপনার ফাইভজি কানেকশন যতই ১ জিবিপিএস+ হোক আপনি মাত্র ১০ এমবিপিএস স্পিড পর্যন্তই ডাউনলোড করতে পারবেন।

ইন্টারনেটে বেশিরভাগ সার্ভারগুলোতেই ব্যান্ডউইথ থ্রোটলিং সেট করা থাকে, যাতে এক সঙ্গে সার্ভারগুলো বেশি ব্যবহারকারী সমর্থন করতে পারে। একটি বিষয় লক্ষণীয় যে, নেটফ্লিক্স থেকেও মুভি ডাউনলোড করার সময় নেটফ্লিক্স ব্যান্ডউইথ থ্রোটলিং সেট করে দেয়, এতে আমার ইন্টারনেট স্পিড থাকার পরেও ডাউনলোড স্পিড কমে যায়।

এছাড়াও, আপনার রাউটার, ওয়াইফাই টেক, পিসির নেটওয়ার্কিং কার্ড, হার্ড ড্রাইভকে — সবাইকে গিগাবিট স্পিড সমর্থন করতে হবে, না হলে আপনি ফাইভজির হাই-স্পিড সম্পূর্ণভাবে ব্যবহার করতে পারবেন না। মানে ফাইভজি ব্যবহার করার জন্য মোটামুটি উচ্চ মাত্রার কনফিগারেশনের ডিভাইজগুলো প্রয়োজনীয় হবে। আর অবশ্যই এই ডিভাইজগুলো কম দামে আসে না।

শিক্ষকদের কোচিং বাণিজ্য বন্ধে কঠোর হচ্ছে নীতিমালা - dainik shiksha শিক্ষকদের কোচিং বাণিজ্য বন্ধে কঠোর হচ্ছে নীতিমালা প্রাথমিকে ৬১ হাজার শিক্ষকের পদ সৃষ্টি হবে - dainik shiksha প্রাথমিকে ৬১ হাজার শিক্ষকের পদ সৃষ্টি হবে দৈনিকশিক্ষার প্রতিবেদনে জাহাঙ্গীরকে ওএসডি - dainik shiksha দৈনিকশিক্ষার প্রতিবেদনে জাহাঙ্গীরকে ওএসডি প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষার রুটিন - dainik shiksha প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষার রুটিন ভিকারুননিসায় ৪৪৩ অতিরিক্ত ভর্তি, সাবেক অধ্যক্ষকে শোকজ - dainik shiksha ভিকারুননিসায় ৪৪৩ অতিরিক্ত ভর্তি, সাবেক অধ্যক্ষকে শোকজ তিন শর্তে অস্থায়ী এমপিও পাচ্ছে ১৭৬৩ প্রতিষ্ঠান, আলাদা পরিপত্র - dainik shiksha তিন শর্তে অস্থায়ী এমপিও পাচ্ছে ১৭৬৩ প্রতিষ্ঠান, আলাদা পরিপত্র প্রাথমিক শিক্ষকদের চাকরি করতে হবে চর এলাকায়, আসছে চর ভাতা - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষকদের চাকরি করতে হবে চর এলাকায়, আসছে চর ভাতা বিএড ৩য়-৫ম সেমিস্টারের ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৫ আগস্ট থেকে - dainik shiksha বিএড ৩য়-৫ম সেমিস্টারের ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৫ আগস্ট থেকে সাত কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ ভর্তির আবেদন শুরু ১০ সেপ্টেম্বর - dainik shiksha সাত কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ ভর্তির আবেদন শুরু ১০ সেপ্টেম্বর এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি পরীক্ষা ৪ অক্টোবর - dainik shiksha এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি পরীক্ষা ৪ অক্টোবর কোন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কবে ভর্তি পরীক্ষা, এক নজরে - dainik shiksha কোন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কবে ভর্তি পরীক্ষা, এক নজরে ঢাবিতে ১ম বর্ষ ভর্তি বিজ্ঞপ্তি - dainik shiksha ঢাবিতে ১ম বর্ষ ভর্তি বিজ্ঞপ্তি শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website