আবারো ভুল প্রশ্নে এসএসসি পরীক্ষা, শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের বিক্ষোভ - এসএসসি/দাখিল - দৈনিকশিক্ষা

আবারো ভুল প্রশ্নে এসএসসি পরীক্ষা, শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক |

গত বছরের মতো এবারো ভুল প্রশ্ন সরবরাহসহ বেশ কিছু জটিলতার মধ্য দিয়েই দেশজুড়ে শুরু হয়েছে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। কোথাও ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা দেয়ার পর বাড়ী থেকে ডেকে এনে সঠিক প্রশ্নে পরীক্ষা নেয়া হয়েছে। কেউ কেউ কেন্দ্রের সামনে বিক্ষোভ করেছেন। গাইড বই থেকে হুবহু তুলে দেয়া হয়েছে ঢাকা বোর্ডের বাংলা প্রথম পত্রের অধিকাংশ প্রশ্ন, এছাড়া এমসিকিউ অংশে এক প্রশ্নের একাধিক উত্তর রয়েছে। প্রশ্নফাঁসের কোনো জটিলতা না হলেও প্রশ্নপত্র ফাঁসের নামের প্রতারণার অভিযোগে বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। উত্তর তৈরি করে পরীক্ষার্থীদের সরবরাহ করায় পাঁচ শিক্ষককে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এছাড়া, প্রথম দিন সোমবার (৩ ফেব্রুয়ারি) পরীক্ষার জন্য ফরম পূরণ করেও কেন্দ্রে অনুপস্থিত ছিল ৫ হাজার ৪শ ৪৭ জন পরীক্ষার্থী।

মূলত নিয়মিত পরীক্ষার্থীদের পুরনো সিলেবাসে প্রণয়ন করা প্রশ্নপত্র বিতরণ করায় এ বিপত্তি ঘটে। শিক্ষকদের অবহেলায় গতবারের মতোই এবারও এমন বিপত্তি ঘটে। পরীক্ষার্থীরা ক্ষতিগ্রস্থ হবেন এমন আশঙ্কা করে বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকেরা। বারবার এমন ভুলের জন্য দায়ীদের শাস্তি দাবি করেছেন তারা। আর পরীক্ষার্থীরা যেন ক্ষতিগ্রস্থ না হয় সে বিষয়েও সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন তারা।  

আরও পড়ুন: গাইড থেকে হুবহু তুলে দেয়া এসএসসির বাংলা প্রশ্নপত্র, আছে ভুলও

প্রথম দিন সকাল ১০টায় এসএসসিতে বাংলা (আবশ্যিক) প্রথম পত্র ও সহজ বাংলা প্রথম পত্র, দাখিলের কুরআন মাজিদ ও তাজবিদ এবং কারিগরি বোর্ডের অধীনে এসএসসি ও দাখিলের ভোকেশনালে বাংলা-২ (১৯২১) (সৃজনশীল) (নতুন সিলেবাস/পুরাতন সিলেবাস) এবং বাংলা-২ (১৭২১) (সৃজনশীল) (নতুন সিলেবাস/পুরাতন সিলেবাস) বিষয়ের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকালে রাজধানীর তেজগাঁও সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। 

ভুল প্রশ্নে পরীক্ষাসহ নানা অভিযোগ বহু জেলা ও উপজেলায়:

বরিশাল নগরীর হালিমা খাতুন বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে বহু নির্বাচনী পরীক্ষা ভুল প্রশ্নে গ্রহণ করা হয়েছে। বরিশাল থেকে স্টাফ রিপোর্টার এ তথ্য জানিয়েছেন। জানা গেছে, এ ঘটনায় শতাধিক নিয়মিত পরীক্ষার্থী ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের সিলেবাসে অর্থাৎ অনিয়মিত পরীক্ষার্থীদের প্রশ্নে উত্তর লিখতে হয়েছে। পরীক্ষার্থীরা বলেছেন, বহু নির্বাচনী পরীক্ষা ৩০ মিনিটের ও ৩০ নম্বরের। এই পরীক্ষা প্রথমেই দিতে হয়। তবে, প্রশ্ন যে ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের ছিল, হলে বসে তা যাচাইয়ের সুযোগ ছিল না। এজন্য তারা পরীক্ষায় সঠিক উত্তর দিতে পারেনি বলে চিন্তিত।

আবারো ভুল প্রশ্নে এসএসসি পরীক্ষা

নগরীর জগদীশ সরস্বতী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. শাহ আলম জানান, এসব শিক্ষার্থীর ২০১৯-২০ খ্রিষ্টাব্দের সিলেবাসে পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু পরীক্ষার্থীরা প্রশ্ন হাতে পাওয়ার পরে তাদের পাঠ্যক্রমের সঙ্গে প্রশ্নের কোনো মিল পায়নি। পরে জানা যায়, ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের সিলেবাসের প্রশ্নে তাদের পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে।

তেজগাঁও সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যলয় কেন্দ্র পরিদর্শনকালে বক্তব্য রাখছেন শিক্ষামন্ত্রী

এদিকে, লালমনিরহাটে বাংলা প্রথমপত্র পরীক্ষায় একটি কেন্দ্রের ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের সিলেবাসে ১শ ৯৩ পরীক্ষার্থীর পরীক্ষা নেয়া হয়েছে।  পুরনো প্রশ্নে পরীক্ষা নেয়ায় কেন্দ্র সচিবকে বরখাস্ত করা হয়েছে। লালমনিরহাট সদর উপজেলার বড়বাড়ি শহীদ আবুল কাশেম উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। পুরাতন সিলেবাসের অধীনে অংশ নেয়া পরীক্ষার্থীদের আলাদা কক্ষে পরীক্ষা নেয়ার কথা থাকলেও স্কুলটির প্রধান শিক্ষক ও কেন্দ্রের সচিব শফিকুল আলম সে নির্দেশনা মানেননি। ফলে, কেন্দ্রের ১,২,৩,২০ ও ২১ নং কক্ষের মোট ১শ ৯৩ জন পরীক্ষার্থীকে ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের সিলেবাসের প্রশ্নে পরীক্ষা দিতে হয়েছে।  ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের সিলেবাসে প্রস্তুতি নিয়েছিলেন এ ১শ ৯৩ পরীক্ষার্থী।  

আরও পড়ুন: 

এসএসসির প্রথম পরীক্ষায় লেজেগোবরে, তদন্তের নির্দেশ

হাজার বছর আগের সিলেবাসে এসএসসির বাংলা পরীক্ষা!

নকল সরবরাহের দায়ে পাঁচ শিক্ষকের কারাদণ্ড

জেলা প্রশাসক আবু জাফর দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, দায়িত্বের অবহেলার দায়ে কেন্দ্রসচিবসহ কক্ষ পরিদর্শকদের বহিষ্কার করা হয়েছে। পরীক্ষার্থীদের ফলাফলে যাতে প্রভাব না পড়ে তাই বোর্ডের সাথে কথা বলে উত্তরপত্রগুলো আলাদাভাবে পাঠানো হয়েছে। এ কেন্দ্রে নতুন একজনকে কেন্দ্র সচিবের দায়িত্ব দেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। 

যশোরের চৌগাছায় ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের সিলেবাসের প্রশ্নে পরীক্ষা নেয়া হয়েছে। যশোর থেকে আমাদের প্রতিনিধি জানিয়েছেন, ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের সিলেবাসের প্রশ্নে এসএসসি পরীক্ষা নেয়ায়, চৌগাছা সরকারি শাহাদৎ পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র সচিবসহ কেন্দ্র কমিটির ৫ শিক্ষককে পরীক্ষার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে উপজেলা বিআরডিবি কর্মকর্তা আনিছুর রহমানকে নতুন কেন্দ্র সচিবের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদুল ইসলাম।

শেরপুর থেকে প্রতিনিধি জানিয়েছেন, শেরপুরে ভুয়া প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগে মোশাররফ হোসেন শাওন (১৮) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১৪। শহরের চাপাতলী বড় মসজিদ মোড় এলাকা থেকে জামালপুরের র‌্যাব সদস্যরা তাকে গ্রেফতার করে। শাওন শহরের চাপাতলী এলাকার আতাউর রহমানের ছেলে। তাকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের নিয়মিত মামলায় আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

প্রশ্নফাঁসের অভিযোগে ফরিদপুরের বোয়ালমারী পৌরসভার কামারগ্রাম মহিলা কলেজের সামনে থেকে শাহাবুদ্দিন শেখ (২০) নামের এক যুবকে আটক করেছে ফরিদপুর র‌্যাব ৮ এর একটি দল। শাহাবুদ্দিন, উপজেলার গুনবহা ইউনিয়নের গুনবহা গ্রামের মো. সিরাজ শেখের ছেলে। এ ঘটনায় র‌্যাবের ডিএডি (নায়েব সুবেদার) সোহরাব উদ্দিন বাদি হয়ে পাবলিক পরীক্ষা অপরাধ আইন ১৯৮০ এর ৪এর ক ৪ এর খ ধারায় বোয়ালমারী থানায় মামলা করেছেন।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে দায়িত্বরত শিক্ষকদের উদাসীনতার কারণে ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের সিলেবাসের প্রশ্নপত্র দিয়ে পরীক্ষা শুরু করার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অভিভাবক ও পরীক্ষার্থীরা। হলে কর্তব্যরত শিক্ষকদের দায়িত্বহীনতার কারণে ১শ ৩৩জন পরীক্ষার্থীকে ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের সিলেবাসের নৈর্ব্যত্তিক ও সৃজনশীল প্রশ্নপত্র সরবরাহ করা হয়। প্রায় ৩০ মিনিট পরীক্ষা চলার পর ভুল প্রশ্নপত্র সরবরাহের বিষয়টি নজরে এলে, পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের সিলেবাসের প্রশ্ন তুলে নিয়ে, নতুন করে ২০২০ সিলেবাসের প্রশ্নপত্র সরবরাহ করা হয়। বিষয়টি নিয়ে পরীক্ষা কেন্দ্রের বাইরে অবস্থানকারী অভিভাবক এবং পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। তারা পরীক্ষার দায়িত্বে নিয়োজিত কর্মকর্তাদের দায়িত্বহীনতাকে এ জন্য দায়ী করেছেন।

নীলফামারী থেকে আমাদের প্রতিনিধি জানিয়েছেন, ভুল প্রশ্নপত্রের কবলে পড়েছে নীলফামারীর রাবেয়া বালিকা বিদ্যানিকেতন কেন্দ্রের ৯৮ জন এসএসসি পরীক্ষার্থী। পরিস্থিতি সামাল দিতে অতিরিক্ত আড়াই ঘন্টার বেশী সময় দিয়ে তাদের পুনরায় পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী বলেন, বিষয়টি নিয়ে বোর্ডের সাথে কথা বলে পরীক্ষার নির্ধারিত সময়ের ১ ঘণ্টা ২৫ মিনিট পর ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের প্রশ্নপত্র দিয়ে পরীক্ষা নেয়া হয় তাদের। তিনি জানান, বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে, কার ভুলে এমন ঘটেছে। 

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়েও ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। ফল নিয়ে সংশয়ে আছ শিক্ষার্থীরা। এ নিয়ে অভিভাবক মহলে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে। কর্তব্যরত কেন্দ্র সচিবকেই দায়ী করছেন অভিভাবকরা। পরীক্ষার্থী আসিফ জানায়, আমাদেরকে গত বছরের প্রশ্নে পরীক্ষা নেয়ায় তা আমরা দেখতে পেয়ে হল সুপারকে জানালে কিছুক্ষণ পরেই আবার নতুন প্রশ্ন দিয়ে পরীক্ষা নেয়। তাও প্রায় ২০ মিনিট পর।

ময়মনসিংহের গৌরীপুরে টেস্টে অকৃতকার্য দুই পরীক্ষার্থী বিদ্যালয়ের ওয়েবের পার্সওয়াড হ্যাক করে  এসএসসি’র ফরম পূরণের ঘটনায় তোলপাড় চলছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার সেঁজুতি ধর’র নির্দেশে প্রবেশপত্র পেয়ে এ দু’পরীক্ষার্থী পরীক্ষার আসনে বসেছেন। নিশ্চিত করেন গৌরীপুর আর. কে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের কেন্দ্র সচিব মোছাঃ লুৎফা খাতুন। তিনি জানান, ইউএনও’র নির্দেশে তাদেরকে প্রবেশ দেয়া হয়েছে এবং পরীক্ষা দিচ্ছে।

টাঙ্গাইলের বিন্দুবাসিনী উচ্চবিদ্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। 

এদিকে, মেহেরপুর প্রতিনিধি দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানায়, মুজিবনগর উপজেলার দারিয়ারপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৭ শিক্ষার্থীকে ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের প্রশ্ন দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। পরীক্ষার ১০ মিনিট পর শিক্ষার্থীরা বিষয়টি কেন্দ্র থাকা শিক্ষকদের জানালে প্রশ্ন পরিবর্তন করে দেয়া হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন, মুজিবনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উসমান গনি। তিনি জানান, যথাসময়ে পরীক্ষা  শুরু হলে ৭ জন শিক্ষার্থীর হাতে ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের প্রশ্ন বিতরণ করা হয়। বিষয়টি শিক্ষকদের নজরে এলে, সাথে সাথেই তা পরিবর্তন করে দেয়া হয়। পরে পরীক্ষার্থীরা সঠিক প্রশ্নে পরীক্ষা দিয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে দৈনিক শিক্ষার প্রতিবেদক জানিয়েছেন, জেলার আশুগঞ্জে দাখিল পরীক্ষার্থীদের উত্তর সরবরাহ করার দায়ে পাঁচ শিক্ষকের প্রত্যেককে দুই বছরের কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। আশুগঞ্জ ফার্টিলাইজার স্কুল এন্ড কলেজের মাদরাসা কেন্দ্রে এই ঘটনা ঘটে। আশুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. নাজিমুল হায়দার এই ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। সাজাপ্রাপ্তরা হলেন, উপজেলার চরচারতলা ইসলামিয়া আলিম মাদরাসার সহকারী সুপার মো. মাজহারুল ইসলাম (৪২) একই মাদরাসার সহকারী শিক্ষক মোঃ শফিকুল ইসলাম (৩৫), খোলাপাড়া ওমেদ আলী শাহ দাখিল মাদরাসার সহকারী সুপার মো. মহিউদ্দিন (৩৮), তালশহর করিমিয়া ফাজিল মাদরাসার প্রভাষক কবির হোসেন (৪০) ও সরাইল উপজেলার পানিশ্বর মাদেনিয়া গাউছিয়া দাখিল মাদরাসার সহকারী সুপার আব্বাস আলী (৫০)।

আশুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. নাজিমুল হায়দার জানান, পাবলিক পরীক্ষাসমূহ (অপরাধ) আইনের ১৯৮০ এর ধারা ৯ (ক) মোতাবেক প্রত্যেককে দুই বছরের কারাদণ্ড এবং ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। পরীক্ষা কেন্দ্রে এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।  এ ঘটনায় হলসুপার ও কেন্দ্র সচিবকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

বাগেরহাট থেকে প্রতিবেদক জানিয়েছেন, কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় বাগেরহাটের মোংলার চৌরিডাঙ্গা আহমাদিয়া দাখিল মাদরাসার পাঁচ শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারেননি। পরীক্ষা দিতে না পারা শিক্ষার্থীরা হলেন, ওলিউল্লাহ, নিয়াজ মাখদুম, হাফিজুল ইসলাম, বুলবুল হাওলাদার, সুমাইয়া খাতুন।

খুলনা মহানগরীর পৃথক দু’টি স্থানে অভিযান চালিয়ে র‌্যাব- ৬ খুলনার সদস্যরা এসএসসি’র ভুয়া প্রশ্নপত্র ফাঁস ও পরীক্ষার রেজাল্ট পরিবর্তনের গুজব সৃষ্টিকারী প্রতারক চক্রের দুই সক্রিয় সদস্যকে আটক করেছে। সোমবার দুপরে র‌্যাবের পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। খুলনা অফিস থেকে স্টাফ রিপোর্টার এ তথ্য জানিয়েছেন।

অন্যদিকে, পরীক্ষা শেষে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ কক্ষ দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানায়, প্রথম দিনে কেন্দ্রে অনুপস্থিত ছিল পাঁচ হাজার ৪শ ৪৭জন পরীক্ষার্থী। ৫ জন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। ঢাকা বোর্ডে এক হাজার ৮শ ২৫জন, চট্টগ্রাম বোর্ডে ৪শ জন, রাজশাহী বোর্ডে ৬শ ৫৩জন বরিশাল বোর্ডে ৩শ ৫৪জন, সিলেট বোর্ডে ৩শ ৫৮জন, দিনাজপুর বোর্ডে ৪শ ৭০জন, কুমিল্লা বোর্ডে ৪শ ৯৯জন, যশোরে ৫শ ৩৬জন এবং ময়মনসিংহ বোর্ডে ৩শ ৫২জন শিক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিলেন।  চট্টগ্রামে দুজন, বরিশালে একজন, দিনাজপুর বোর্ডে একজন  ও যশোর বোর্ডে একজন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

এদিকে, ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দেও এসএসসি পরীক্ষার প্রথম দিনে নতুন ও পুরনো সিলেবাসের প্রশ্ন বিতরণে তালগোল পাকিয়ে ফেলেছিলেন সারাদেশের অন্তত ২০টি পরীক্ষা কেন্দ্রের সচিব ও কক্ষ পরিদর্শকরা। বাংলা ১ম পত্রে সর্বশেষ সেশনের পরীক্ষার্থীকে পুরনো সিলেবাসের প্রশ্ন আর পুরনো সেশনের পরীক্ষার্থীকে নতুন সিলেবাসের প্রশ্ন দেয়ায় ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। অনেক কেন্দ্রে ভুল বুঝতে পেরে সময় বাড়িয়ে নতুন প্রশ্ন দিয়ে আবার পরীক্ষা নেয়া হয়েছিল। অনেক পরীক্ষার্থী সে সুযোগ পাননি। কর্তৃপক্ষের এমন ভুলের কারণে ভোগান্তিতে পড়ে বিপুলসংখ্যক পরীক্ষার্থী।

অপরদিকে, টাঙ্গাইলের ৭৮টি কেন্দ্রে ৩ নম্বর সেটের (সোয়াত) প্রশ্নপত্র দিয়ে পরীক্ষা হলেও শহরের বিন্দুবাসিনী সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে ১ নম্বর সেটের (কাশ্মীর) প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা নেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় সন্ধ্যায় পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকেরা কেন্দ্রের সামনে বিক্ষোভ করেন।

২০২১ খ্রিষ্টাব্দের সরকারি ছুটির তালিকা চূড়ান্ত - dainik shiksha ২০২১ খ্রিষ্টাব্দের সরকারি ছুটির তালিকা চূড়ান্ত ধানমন্ডি উচ্চ বিদ্যালয়ে পুনঃনিয়োগ বিজ্ঞপ্তি - dainik shiksha ধানমন্ডি উচ্চ বিদ্যালয়ে পুনঃনিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দশ স্কুল স্থাপন প্রকল্পের পরিচালক হওয়ার তদবিরে শিক্ষা ভবনের বিতর্কিতরাই! - dainik shiksha দশ স্কুল স্থাপন প্রকল্পের পরিচালক হওয়ার তদবিরে শিক্ষা ভবনের বিতর্কিতরাই! দশ দাবিতে আন্দোলনে যাচ্ছেন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা - dainik shiksha দশ দাবিতে আন্দোলনে যাচ্ছেন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের আবেদন করবেন যেভাবে - dainik shiksha প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের আবেদন করবেন যেভাবে পূজায় সংসদ টিভিতে ক্লাস বন্ধ ২৯ অক্টোবর পর্যন্ত - dainik shiksha পূজায় সংসদ টিভিতে ক্লাস বন্ধ ২৯ অক্টোবর পর্যন্ত আগামী বছর সব প্রাইমারি স্কুলে দুই বছরের প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা - dainik shiksha আগামী বছর সব প্রাইমারি স্কুলে দুই বছরের প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা উচ্চ আদালতের রায় উপেক্ষা করে শিক্ষকদের হয়রানির অভিযোগ - dainik shiksha উচ্চ আদালতের রায় উপেক্ষা করে শিক্ষকদের হয়রানির অভিযোগ please click here to view dainikshiksha website