ইতালি ফেরত চবি শিক্ষককে নিয়ে আতঙ্ক - বিশ্ববিদ্যালয় - দৈনিকশিক্ষা

ইতালি ফেরত চবি শিক্ষককে নিয়ে আতঙ্ক

চবি প্রতিনিধি |

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) এক শিক্ষককে ইতালি থেকে পিএইচডি অর্জন শেষে বিভাগের যোগদানের সুযোগ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। পাঁচ বছর ধরে ওই শিক্ষক ইতালিতে একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি গবেষণায় নিযুক্ত ছিলেন। গত ৫ মার্চ তিনি দেশে ফিরেন। এরপর থেকেই তিনি ক্যাম্পাসে অবস্থান শুরু করেন।

গত ৮ মার্চ বিভাগের সভাপতি বরাবর যোগদানপত্র জমা দেন। বিভাগীয় সভাপতি সুমন গাঙ্গুলির এই যোগদানপত্র রেজিস্ট্রার বরাবর প্রেরণ করেন। কিন্তু ইতালি ফেরত এই শিক্ষকের স্বাস্থ্য পরীক্ষা না করেই যোগদানের সুযোগ করে দেয়ায় বিশ্ববিদ্যালয় বিজ্ঞান অনুষদ জুড়ে শুরু হয় আতঙ্ক।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ইতালি ফেরত ওই শিক্ষক বলেন, আমি যে এলাকায় ছিলাম, ওটা কোয়ারেন্টামযুক্ত ও করোনাভাইরাসমুক্ত ছিল। এছাড়া এ ভাইরাসের সংক্রমণের কোনো লক্ষণ দেখা না যাওয়ায় আমি কোনো ধরনের শারীরিক পরীক্ষা করেনি। তিনি বলেন, বাংলাদেশে আসার সময় বিমানবন্দরে প্রয়োজনীয় ফরমও পূরণ করেছি। গত ৮ তারিখ বিভাগে যোগদানের পর রাতে বিভাগের সভাপতি আমাকে আপাতত বাড়িতে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। তাই বর্তমান আমি গ্রামের বাড়িতে অবস্থান করছি।

এদিকে বিজ্ঞান অনুষদের কয়েকজন শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী জানান, ওই শিক্ষক কয়েকদিন ধরে রসায়ন বিভাগ, পদার্থ বিভাগ, গণিত বিভাগসহ বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত বেশ কিছু বিভাগের সেমিনারসহ বিভিন্ন জায়গায় যাতায়াত করেন। তিনি বিমানবন্দরে কোনো ধরনের স্বাস্থ্য পরীক্ষার সম্মুখীন হননি বলেও তার সহকর্মীদের জানিয়েছেন। এদিকে ওই শিক্ষকের যোগদানকে কেন্দ্র করে বিজ্ঞান অনুষদের ল্যাব, সেমিনার ব্যবহারকারী শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

কয়েকজন শিক্ষার্থী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ইতালিতে পাঁচ বছর থেকে বাংলাদেশে আসার সময় এই পরিস্থিতিতে তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা জরুরি ছিল। কিন্তু কোনো ধরনের পরীক্ষা ছাড়াই তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘোরাফেরার ওপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা উচিত ছিল বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের।

ওই বিভাগের কয়েকজন শিক্ষক জানান, আমাদের সহকর্মী ইতালি থেকে পিএইচডি সম্পন্ন করে বিভাগে যোগদান করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের উচিত এ ধরনের পরিস্থিতিতে বিদেশ ফেরত শিক্ষক, গবেষকদের জন্য সরকারের বিশেষ নির্দেশনা থাকা জরুরি। কারণ শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের পাশে থেকেই যাবতীয় কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে থাকেন।

যোগদানের বিষয়ে উচ্চশিক্ষা ও গবেষণা শাখার ডেপুটি রেজিস্ট্রার মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, তিনি ৮ মার্চ বিভাগে যোগদান করেছেন। কিন্তু স্বাস্থ্যসংক্রান্ত কোনো ছাড়পত্র বা কাগজপত্র যোগদানপত্রে সংযুক্ত ছিল না। যদিও শিক্ষা ছুটি থেকে কোনো শিক্ষক ফিরে এসে যোগদান করলে স্বাস্থ্যসংক্রান্ত ছাড়পত্র লাগে না। কিন্তু এ ধরনের বিশেষ পরিস্থিতিতে সরকারিভাবে ছাড়পত্র নেয়ার ব্যবস্থা থাকা জরুরি।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. আবু তৈয়ব বলেন, আমরা ইতালি ফেরত শিক্ষকের যোগদানের বিষয়টি জানতে পেরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের নজরে আনি। ওই শিক্ষককে আমরা ১৫ দিনের জন্য কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দিয়েছি। এছাড়া করোনাভাইরাসের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনকে আমরা কিছু প্রস্তাবনাও দিয়েছি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক সূত্র জানায়, বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিদিনই বিশ্বের বিভিন্ন রাষ্ট্র থেকে শিক্ষক ও গবেষকরা যাওয়া আসা করছেন। তাদের নিয়ে কোনো ধরনের সতর্কতামূলক উদ্যোগ এখনও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন গ্রহণ করেনি। এসব শিক্ষকরা সরাসরি সভা, সেমিনার, ক্লাস, পরীক্ষা, সিম্পোজিয়ামে অংশ নেয়। এই শিক্ষকদের খুব কাছাকাছি থেকেই হাজার হাজার শিক্ষার্থী এসবে অংশ নেয়। শিক্ষার্থীদের প্রধান বাহন শাটল ট্রেন রয়েছে সবচেয়ে ঝুঁকিতে। কারণ ছোঁয়াচে এই ভাইরাস আক্রান্তদের কাছ থেকে মুহূর্তেই ছড়িয়ে পড়তে পারে সুস্থ শিক্ষার্থীদের মধ্যে। কারণ শাটল ট্রেনে গাদাগাদি করে প্রতিদিন গড়ে ১৫ থেকে ২০ হাজার শিক্ষার্থী যাতায়াত করে। ফলে তাদের অসতর্কতার কারণে একজন শিক্ষার্থীও যদি আক্রান্ত হয় তাহলে তা মহামারী আকার ধারণ করতে পারে পুরো বিশ্ববিদ্যালয়জুড়ে।

ছুটি বাড়ল ১১ এপ্রিল পর্যন্ত - dainik shiksha ছুটি বাড়ল ১১ এপ্রিল পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে করোনা পরিস্থিতি মারাত্মক পর্যায়ে পৌঁছাতে পারে : ট্রাম্প - dainik shiksha যুক্তরাষ্ট্রে করোনা পরিস্থিতি মারাত্মক পর্যায়ে পৌঁছাতে পারে : ট্রাম্প জনগণের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর ৪ নির্দেশনা - dainik shiksha জনগণের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর ৪ নির্দেশনা করোনা নিয়ে গুজব : ৮২ ফেসবুক আইডি, ওয়েবসাইট পরিচালককে খুঁজছে পুলিশ - dainik shiksha করোনা নিয়ে গুজব : ৮২ ফেসবুক আইডি, ওয়েবসাইট পরিচালককে খুঁজছে পুলিশ ইবতেদায়ি মাদরাসার তথ্য পাঠাতে ডিসিদের তাগিদ - dainik shiksha ইবতেদায়ি মাদরাসার তথ্য পাঠাতে ডিসিদের তাগিদ করোনার প্রভাবে দীর্ঘমেয়াদী সঙ্কটের মুখে দেশের শিক্ষাব্যবস্থা - dainik shiksha করোনার প্রভাবে দীর্ঘমেয়াদী সঙ্কটের মুখে দেশের শিক্ষাব্যবস্থা করোনা : বন্ধের মধ্যেও চেক নিষ্পত্তি হবে - dainik shiksha করোনা : বন্ধের মধ্যেও চেক নিষ্পত্তি হবে বাড়িওয়ালাদের এক মাসের ভাড়া মওকুফ করার আহ্বান মেয়র আরিফের - dainik shiksha বাড়িওয়ালাদের এক মাসের ভাড়া মওকুফ করার আহ্বান মেয়র আরিফের করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কেমন হতে পারে শিক্ষকের ভূমিকা - dainik shiksha করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কেমন হতে পারে শিক্ষকের ভূমিকা টিভিতে পাঠদান : সারাদেশের শিক্ষকরাই সুযোগ পাবেন - dainik shiksha টিভিতে পাঠদান : সারাদেশের শিক্ষকরাই সুযোগ পাবেন করোনা সন্দেহ হলে যা করতে হবে - dainik shiksha করোনা সন্দেহ হলে যা করতে হবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন please click here to view dainikshiksha website