ইদ আনন্দবঞ্চিত দপ্তরি কাম প্রহরীরা - স্কুল - Dainikshiksha

ইদ আনন্দবঞ্চিত দপ্তরি কাম প্রহরীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক |

জুলাই ও আগস্ট মাসের বেতনসহ ইদ বোনাস তুলতে না পারায় ইদ আনন্দ থেকে বঞ্চিত হয়েছেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অধিকাংশ দপ্তরি কাম প্রহরী। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের উদাসীনতা ও পিনকোড জটিলতায় তারা বেতন-বোনাস তুলতে পারছেন না বলে দৈনিক শিক্ষার কাছে অভিযোগ করেছেন। বৃহস্পতিবার (১৬ আগস্ট) দপ্তরি কাম প্রহরীদের জুলাই ও আগস্ট মাসের বেতনসহ ইদ বোনাস প্রদানের আদেশ জারি করে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। বেতন-বোনাস তুলতে না পারায় ১৯ ও ২০ আগস্ট বিভিন্ন উপজেলায় মানববন্ধন করে দপ্তরি কাম প্রহরীরা।

প্রাথমিক শিক্ষক অধিকার সুরক্ষা ফোরামের আহ্বায়ক মো. সিদ্দিকুর রহমান দৈনিকশিক্ষাকে বলেন, চলতি মাসের ১৬ তারিখে অধিদপ্তর থেকে ৩৭ হাজার দপ্তরি কাম প্রহরীর জুলাই ও আগস্ট মাসের বেতন ও ইদ বোনাসের টাকা ছাড়ের আদেশ জারি করা হয়। যার ফলে স্বল্প সময়ের মধ্যে তাদের বেতন ও বোনাস প্রদান করা সম্ভব নয়।

অপরদিকে প্রাথমিক শিক্ষকদের ইদুল ফিতর ও ইদুল আযহার ছুটি ৫ দিন। ইদের আগের দিন ছুটি শুরু হওয়ায় শিক্ষকদের বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। কিন্তু উচ্চবিদ্যালয় ও পিটিআই ইনস্টিটিউটের শিক্ষকদের ইদের ছুটি ১৫ দিন।

সিদ্দিকুর রহমান  আরও বলেন, প্রাথমিক শিক্ষকদের ৭৫ দিন ছুটি সঠিকভাবে বণ্টন না করায় শিক্ষকরা শ্রান্তি বিনোদন ভাতা ৩ বছরের পরিবর্তে ৪-৫ বছর পর পেয়ে থাকেন। কেবল মুসলমানদের দুটি ইদ উৎসবের ক্ষেত্রেই এই কৃপণতা। দপ্তরি কাম প্রহরীদের বেতন ও ইদ বোনাস না পাওয়ায়  দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তিনি।

বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কর্মচারী কেন্দ্রীয় কল্যাণ সমিতির সেক্রেটারি মো. নাসির উদ্দিন মোল্লা দৈনিকশিক্ষাকে বলেন, আমরা সরকারের সর্বনিম্ন পর্যায়ের কর্মচারী হওয়ায় উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা আমাদের অবহেলা করেন। যখন বরাদ্দ থাকে তখনও আমাদের বেতন ১০ বা ২০ তারিখে দেয়া হয়।  বেতন বোনাস না পাওয়ায় আমরা ইদের আনন্দ থেকে বঞ্চিত হয়েছি যা আমাদের জন্য দুঃখজনক ঘটনা। 

ঢাকার এসএসসি’র প্রশ্নে ভুলকারী যশোরের ২০ শিক্ষকের শাস্তি - dainik shiksha ঢাকার এসএসসি’র প্রশ্নে ভুলকারী যশোরের ২০ শিক্ষকের শাস্তি কারিগরি শিক্ষার উন্নয়নে শ্রম বাজারের সাথে সঙ্গতি রেখে কারিকুলাম প্রণয়ন করতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha কারিগরি শিক্ষার উন্নয়নে শ্রম বাজারের সাথে সঙ্গতি রেখে কারিকুলাম প্রণয়ন করতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী প্রাণসহ ৫ কোম্পানির নিষিদ্ধ পণ্য বিক্রি, সাত প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা - dainik shiksha প্রাণসহ ৫ কোম্পানির নিষিদ্ধ পণ্য বিক্রি, সাত প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা কলেজের নবসৃষ্ট পদে এমপিওভুক্তির নির্দেশনা - dainik shiksha কলেজের নবসৃষ্ট পদে এমপিওভুক্তির নির্দেশনা একাদশে ভর্তি নিশ্চায়ন করবেন যেভাবে - dainik shiksha একাদশে ভর্তি নিশ্চায়ন করবেন যেভাবে একাদশে ভর্তিতে সর্বোচ্চ ফি ১০ হাজার টাকা - dainik shiksha একাদশে ভর্তিতে সর্বোচ্চ ফি ১০ হাজার টাকা নেপালে স্কুলে চীনা ভাষা শিক্ষা বাধ্যতামূলক! - dainik shiksha নেপালে স্কুলে চীনা ভাষা শিক্ষা বাধ্যতামূলক! জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া সহকারী অধ্যাপক স্কেল পেলেন কারিগরির ১৩ প্রভাষক - dainik shiksha সহকারী অধ্যাপক স্কেল পেলেন কারিগরির ১৩ প্রভাষক শিক্ষক নিবন্ধন: এগ্রিকালচারাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ের নতুন সিলেবাস দেখুন - dainik shiksha শিক্ষক নিবন্ধন: এগ্রিকালচারাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ের নতুন সিলেবাস দেখুন please click here to view dainikshiksha website