উচ্চ মাধ্যমিকে দুই পাবলিক পরীক্ষার পরিকল্পনা - কলেজ - দৈনিকশিক্ষা

উচ্চ মাধ্যমিকে দুই পাবলিক পরীক্ষার পরিকল্পনা

নিজস্ব প্রতিবেদক |

উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে দুটো পাবলিক পরীক্ষা নেয়ার পরিকল্পনা করছে সরকার।  প্রাথ-প্রাথমিক থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যন্ত  শিক্ষা ব্যবস্থায় বড় ধরণের পরিবর্তনের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন শুরু করেছে সরকার। শিক্ষার্থীরা বিজ্ঞান নাকি মানবিক নাকি বাণিজ্য পড়বে তা ঠিক হবে উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণিতে । এর আগে ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত সবাইকে অভিন্ন দশটি বিষয় পড়তে হবে। এই পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ২০২৫ খ্রিষ্টাব্দ থেকে উচ্চ মাধ্যমিকে দুটো পাবলিক পরীক্ষা নেবে।

জানতে চাইলে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের  একজন সদস্য দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, পরিকল্পনা পাস হলে ২০২৫ খ্রিষ্টাব্দ থেকে একাদশ শ্রেণিতে গিয়ে একজন কোন শাখায় (বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা, মানবিক) পড়বে তা ঠিক হবে। তখন উচ্চ মাধ্যমিকের ছয়টি বিষয়ে ১২টি পত্র থাকবে। এর মধ্যে বাংলা, ইংরেজি  এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি --এ তিন বিষয় সবার জন্য বাধ্যতামূলক হবে। এর সঙ্গে একজন শিক্ষার্থী তার পছন্দের তিনটি বিষয় নেবে, যার প্রতিটির জন্য তিনটি পত্র থাকবে।

তিনি বলেন, উচ্চ মাধ্যমিকে দুটো পরীক্ষা হলেও বাস্তবে শিক্ষার্থীদের ওপর চাপ কমবে। এখন উচ্চ মাধ্যমিকে যে কয়টি বিষয়র পরীক্ষা একসঙ্গে হয় সেগুলোই একাদশ  ও দ্বাদশে ভাগ করে হবে। 

বোর্ডের অপর এক কর্মকর্তা বলেন, বইয়ের সংখ্যাও এখনকার চেয়ে কমবে। বিষয়বস্তু বদালাবে। আর এসএসসি পরীক্ষা হবে শুধু দশম শ্রেণির পাঠ্যসূচির ভিত্তিতে। একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে দুটি পাবলিক পরীক্ষা হবে, যার ভিত্তিতে এইচএসসির ফল প্রকাশ করা হবে।

এসব প্রস্তাব ও পরিকল্পনা নিয়ে প্রাক-প্রাথমিক থেকে উচ্চমাধ্যমিক স্তরের শিক্ষাক্রম পরিমার্জনের কাজ করছে  এনসিটিবি। পরিমার্জিত শিক্ষাক্রম অনুযায়ী প্রথম, দ্বিতীয় ও ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা আগামী বছর নতুন পাঠ্যবই পাবে। পর্যায়ক্রমে অন্যান্য শ্রেণিতে নতুন শিক্ষাক্রমে নতুন বই দেয়া হবে। আগামী মার্চের মধ্যে শিক্ষাক্রম চূড়ান্ত করে পর্যায়ক্রমে ২০২৫ খ্রিষ্টাব্দে গিয়ে উচ্চমাধ্যমিক পর্যন্ত পুরোপুরি শিক্ষাক্রম বাস্তবায়িত হবে।

এনসিটিবির কর্মকর্তারা বলেন, কিছু বিষয় প্রায় চূড়ান্ত  হয়েছে। আর কিছু পরিকল্পনার মধ্যে আছে। শিক্ষাবিদ ও এনসিটিবির কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যক্তিদের নিয়ে গঠিত কমিটির মাধ্যমে শিক্ষাক্রম পরিমার্জন হচ্ছে। সর্বশেষ ২০১২ খ্রিষ্টাব্দে প্রাথমিক থেকে উচ্চমাধ্যমিক স্তরের শিক্ষক্রম পরিবর্তন করা হয়েছিল।

বিশ্ব এক হলেই শুধু করোনা মোকাবেলা সম্ভব : জাতিসংঘ - dainik shiksha বিশ্ব এক হলেই শুধু করোনা মোকাবেলা সম্ভব : জাতিসংঘ মহামারিতেও দপ্তরিদের কাছ থেকে আদায় করা হচ্ছে ঋণের টাকা - dainik shiksha মহামারিতেও দপ্তরিদের কাছ থেকে আদায় করা হচ্ছে ঋণের টাকা মৃতদের শরীর থেকে করোনা ভাইরাস ছড়ায় না : ডব্লিউএইচও - dainik shiksha মৃতদের শরীর থেকে করোনা ভাইরাস ছড়ায় না : ডব্লিউএইচও সংসদ টিভিতে ক্লাসের নতুন রুটিন প্রকাশ - dainik shiksha সংসদ টিভিতে ক্লাসের নতুন রুটিন প্রকাশ সমাপনী জুনিয়র পরীক্ষা এখনই বাতিল ঘোষণা করুন - dainik shiksha সমাপনী জুনিয়র পরীক্ষা এখনই বাতিল ঘোষণা করুন জুন পর্যন্ত কিস্তি না আদায় নিশ্চিতে ৯ সদস্যের মনিটরিং সেল - dainik shiksha জুন পর্যন্ত কিস্তি না আদায় নিশ্চিতে ৯ সদস্যের মনিটরিং সেল শিক্ষকদের বৈশাখী ভাতার ২০ শতাংশ অসহায় মানুষের কল্যাণে - dainik shiksha শিক্ষকদের বৈশাখী ভাতার ২০ শতাংশ অসহায় মানুষের কল্যাণে ১০ এপ্রিল সরকারকে করোনা শনাক্তের কিট দেবে গণস্বাস্থ্য - dainik shiksha ১০ এপ্রিল সরকারকে করোনা শনাক্তের কিট দেবে গণস্বাস্থ্য ‘প্রধানমন্ত্রীর গৃহীত পদক্ষেপে মানুষ নিরাপদ থাকার চেষ্টা করছে’ - dainik shiksha ‘প্রধানমন্ত্রীর গৃহীত পদক্ষেপে মানুষ নিরাপদ থাকার চেষ্টা করছে’ ছুটি বাড়ল ১১ এপ্রিল পর্যন্ত - dainik shiksha ছুটি বাড়ল ১১ এপ্রিল পর্যন্ত টিভিতে পাঠদান : সারাদেশের শিক্ষকরাই সুযোগ পাবেন - dainik shiksha টিভিতে পাঠদান : সারাদেশের শিক্ষকরাই সুযোগ পাবেন করোনা সন্দেহ হলে যা করতে হবে - dainik shiksha করোনা সন্দেহ হলে যা করতে হবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন please click here to view dainikshiksha website