এইচএসসি পরীক্ষা ও একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি নিয়ে কিছু কথা - ভর্তি - দৈনিকশিক্ষা

এইচএসসি পরীক্ষা ও একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি নিয়ে কিছু কথা

অধ্যক্ষ আবুল বাশার হাওলাদার |

অনেক প্রতীক্ষিত ও আলোচিত এইচএসসি পরীক্ষাকে করোনাভাইরাস এক অনিশ্চয়তার মধ্যে ঠেলে দিয়েছে। একদিকে পরীক্ষার্থীরা চরম হতাশায় সময় কাটাচ্ছেন, অন্যদিকে শিক্ষাসংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ কিংকর্তব্যবিমূঢ় এবং বিকল্প খুঁজছেন কীভাবে এর সমাধান করা যায়। যে মুহূর্তে মানুষ জীবন বাঁচানোর জন্য লড়াই করছেন ঠিক এই সময়ে এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে জল্পনাকল্পনা শুরু হয়েছে। পরীক্ষার্থীরা পড়ালেখা ভুলতে বসেছেন। পরীক্ষা কখন হবে, আদৌ হবে কী হবে না, সবাই চিন্তায় মগ্ন। ১২ লাখের বেশি পরীক্ষার্থী এখন পরীক্ষার আসনে বসার মতো মানসিক শক্তি ধরে রাখার কাজে ব্যস্ত। তাছাড়া পরীক্ষা নেয়ার অনুকুল পরিবেশ নেই এই মহাদুর্যোগে। কখন সেই মাহেন্দ্রক্ষণ আসবে তা-ও বলা কঠিন।

তবে কী হবে? এভাবেই সময় নষ্ট হবে, না এর একটা সুরাহা হবে? এই সংকটকাল হয়তোবা এক সময় থাকবে না। মানুষের বেঁচে থাকতে হবে, পড়ালেখা চলবে, সবকিছুই স্বাভাবিক হবে। এই বিবেচনায় বিকল্প ভাবতে হবে পরীক্ষার্থীদের মাথার বোঝা ঝেড়ে ফেলার জন্য।

আমার নিতান্ত ব্যক্তিগত ভাবনা থেকে বলছিম এক. কোনো পরীক্ষা না নিয়ে এসএসসির ফল অনুযায়ী সবাইকে উত্তীর্ণ করা। অনেকের কাছে গ্রহণযোগ্য না হলেও এটা হতে পারে। তবে যারা আরও ভালো ফলের আশা করছেন তারা আগামীতে মানোন্নয়ন পরীক্ষায় বসতে পারেন। আর, দুই. অনলাইনে পরীক্ষা হতে পারে। সিলেবাস কমিয়ে শুধুমাত্র এমসিকিউ পরীক্ষা নেয়া যায়। তবে এখানে ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস ও ইন্টারনেট অ্যাক্সেস  শতভাগ নিশ্চিত করতে হবে। তিন. আর প্রচলিত পদ্ধতির পরীক্ষা নিলে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে দুই-তিন দিনে সংক্ষিপ্ত আকারে পরীক্ষা সম্পন্ন করা যেতে পারে।

কোনোক্রমেই পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত পুরো পরীক্ষা নেয়া যাবে না। তাই স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়াতে এসব পদ্ধতি অবলম্বন করা যেতে পারে। যথাযথ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলছি, সময় নষ্ট করা যাবে না। যত শিগগির এইচএসসি পরীক্ষা সম্পন্ন করা জরুরি হয়ে পড়েছে। তা না হলে অনিশ্চিত হয়ে পড়বে লাখ লাখ শিক্ষার্থীর শিক্ষাজীবন। তাছাড়া একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি প্রক্রিয়া আটকে আছে শুধু শুধু। এখনই ভর্তি শুরু করা যায় অনলাইনে। এটা নিয়ে বিলম্ব করার কোনো কারণ নেই। ফরম পূরণ ও টাকা প্রদান অনলাইনেই করতে পারেন। ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে শিক্ষাবছর শুরু হবে এবং বাসায় বসে লেখাপড়া করতে পারবেন শিক্ষার্থীরা। 

এখানে একটি কথা না বললেই নয়, এই চরম সংকটে দেশের শিক্ষাব্যবস্থা থমকে গেছে। যেটুকু চলছে অনলাইন পদ্ধতিতে। আর এই অনলাইন পদ্ধতি পুরোপুরি সফল করতে বাধাসমূহ উত্তরণে তেমন কোনো উদ্যোগ এখনও পরিলক্ষিত হয়নি।  শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর অনলাইনে প্রয়োজনীয় ডিভাইস ও ইন্টারনেট শতভাগ নিশ্চিত করতে হবে। শিক্ষাব্যবস্থায় চলমান  অচলাবস্থা দূর করতে অনলাইন পদ্ধতিই একমাত্র ভরসা। এমনকি পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পরও  এ পদ্ধতি বাদ দেয়া যাবে না। তাই ডিজিটালাইজড শিক্ষা প্রক্রিয়া এখন যুগের দাবি। আর এসব নিশ্চিত করতে সরকারি পদক্ষেপ ছাড়া সম্ভব নয়।

লেখক : অধ্যক্ষ মো. আবুল বাশার হাওলাদার, সভাপতি, বাংলাদেশ শিক্ষক ইউনিয়ন।

জেএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে বিভ্রান্তি না ছড়ানোর আহ্বান শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের - dainik shiksha জেএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে বিভ্রান্তি না ছড়ানোর আহ্বান শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের স্কুল খুললে সীমিত পরিসরে পিইসি, অটোপাস নয় : গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha স্কুল খুললে সীমিত পরিসরে পিইসি, অটোপাস নয় : গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাতীয়করণ: ফের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত সেলিম ভুইঁয়া, কর্মসূচির হুমকি - dainik shiksha জাতীয়করণ: ফের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত সেলিম ভুইঁয়া, কর্মসূচির হুমকি একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করবেন যেভাবে - dainik shiksha একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করবেন যেভাবে please click here to view dainikshiksha website