এমপিওভুক্তির দাবিতে শিক্ষকদের অনশন অব্যাহত - এমপিও - Dainikshiksha

এমপিওভুক্তির দাবিতে শিক্ষকদের অনশন অব্যাহত

নিজস্ব প্রতিবেদক |

স্বীকৃতিপ্রাপ্ত সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির দাবিতে ননএমপিও শিক্ষকদের আমরণ অনশন কর্মসূচি অব্যহত রয়েছে। শনিবার (৭ জুলাই) কর্মসূচির ১৩তম দিনে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে উত্তর পাশের সড়কে এমপিওভুক্তির দাবিতে অনশনরত আছেন ননএমপিও শিক্ষকরা। ২৮ দিনের অবস্থান কর্মসূচি ও ১৩ দিন ধরে রাজপথে অনশন করলেও দাবি আদায়ে সরকার থেকে এখন পর্যন্ত কোনো সাড়া পাননি তারা। অনশনে  ইতোমধ্যে প্রায় ২ শতাধিক শিক্ষক-কর্মচারী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ২৩ জন এবং অন্যান্য হাসপাতালে ৫০ জন শিক্ষক-কর্মচারী চিকিৎসা নিয়েছেন।

সংগঠনের সভাপতি অধ্যক্ষ গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ ড. বিনয় ভুষণ রায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ফিরে আবার অনশনে যোগ দিয়েছেন। তারা সংকল্প ব্যক্ত করেছেন, মরতে হয় মরব তবুও আর হাসপাতালে যাবো না, স্যালাইনও নেব না। 

সংগঠনের সভাপতি অধ্যক্ষ গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার বলেন, আমরা ১ জুলাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাত চেয়ে এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য দুটি পত্র দিয়েছি। আমাদের অবস্থান হল বরাদ্দকৃত অর্থ অপর্যাপ্ত হলে সকল ননএমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওর আওতায় এনে আংশিক বেতন চালু ও পরবর্তী অর্থবছরে বেতনের সমন্বয়সাধন করা এবং দীর্ঘ ১৫-২০ বছর এমপিওভুক্ত না হওয়া দুর্বল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে সক্ষমতা যাচাই করার উদ্দেশ্যে এমপিওভুক্তির পর ৩ বছর সময় প্রদান ও এসময়কালে সক্ষমতা অর্জনে ব্যর্থ হলে বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহণ। আমরা আশা করি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দ্রুত আমাদের সাক্ষাত দেবেন এবং সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির নির্দেশ দিবেন।

সভাপতি আরও বলেন, স্বীকৃতিপ্রাপ্ত নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য একমাত্র নীতি হবে প্রতিষ্ঠানের একাডেমীক স্বীকৃতি। যাহার মাধ্যমে অতীতে সারা দেশের ২৮ হাজার বেসরকারী শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। আমাদের স্পষ্ট বক্তব্য বর্তমানে ৫ হাজার ২৪২টি স্বীকৃতিপ্রাপ্ত শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান ও পূর্বের এমপিওভুক্তি নীতিতে এমপিওভুক্ত হবে। যাহা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা তাঁর একান্ত সচিব জনাব সাজ্জাদুল হাসানকে পাঠিয়ে তাঁর মাধ্যমে ৫ জানুয়ারী ২০১৮ মেনে নিয়েছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী স্বীকৃতিপ্রাপ্ত নন-এমপিও সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান একযোগে এমপিওভুক্তকরণের যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তা বাস্তবায়নের উপযোগী একটি নীতিমালা প্রত্যাশা করছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আমরণ অনশন চলবে।

১৩তম দিনে আমরণ অনশন কর্মসূচিতে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন, মহান জাতীয় সংসদের রাজশাহী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ ওয়ার্কাস পার্টির সাধারণ সম্পাদক জনাব ফজলে হোসেন বাদশা। তিনি বলেন, আপনাদের দাবি যৌক্তিক, ন্যায্য ও মানবিক। অতিতেও আপনাদের সঙ্গে ছিলাম বর্তমানেও আছি ভবিষ্যতেও থাকবো এবং সুযোগ পেলে মহান জাতীয় সংসদে আপনাদের বিষয়ে জোরালো ভুমিকা রাখবো। অনশনে আরও সংহতি জানান, বাংলাদেশ ওয়ার্কাস পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য জনাব ড. শুশান্ত কুমার। 

বর্তমানে সারাদেশে এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা প্রায় ২৮ হাজার। এগুলোতে শিক্ষক-কর্মচারী আছেন প্রায় ৫ লাখ। তাদের বেতন-ভাতা বাবদ মাসে খরচ হয় প্রায় সাড়ে ৯০০ কোটি টাকা। এর বাইরে স্বীকৃতি পাওয়া ননএমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আছে ৫ হাজার ২৪২টি। এগুলোতে শিক্ষক-কর্মচারী আছেন ৭৫ থেকে ৮০ হাজার। স্বীকৃতির বাইরে আছে ২ হাজারেরও বেশি ননএমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা  অধিদপ্তরের সূত্রমতে, স্বীকৃতিপ্রাপ্ত সব প্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্ত করা হলে এবং ওই সব প্রতিষ্ঠানের প্রায় ৮০ হাজার শিক্ষক-কর্মচারীকে এমপিওভুক্ত করলে মাসে আরও প্রায় দেড়শ কোটি টাকা খরচ হবে। যদিও সরকারের পরিকল্পনা হলো হাজারখানেক প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা।

 

এইচএসসির টেস্ট পরীক্ষার ফল ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকাশের নির্দেশ - dainik shiksha এইচএসসির টেস্ট পরীক্ষার ফল ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকাশের নির্দেশ ১ জুলাই থেকে পাঁচ শতাংশ ইনক্রিমেন্ট কার্যকরের আদেশ অর্থ মন্ত্রণালয়ের - dainik shiksha ১ জুলাই থেকে পাঁচ শতাংশ ইনক্রিমেন্ট কার্যকরের আদেশ অর্থ মন্ত্রণালয়ের বিজয় দিবসে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার নির্দেশ - dainik shiksha বিজয় দিবসে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার নির্দেশ স্ত্রীর মৃত্যুতে আজীবন পেনশন পাবেন স্বামী - dainik shiksha স্ত্রীর মৃত্যুতে আজীবন পেনশন পাবেন স্বামী বদলে যাচ্ছে বাংলা বর্ষপঞ্জি - dainik shiksha বদলে যাচ্ছে বাংলা বর্ষপঞ্জি ২০ হাজার টাকায় শিক্ষক নিবন্ধন সনদ বিক্রি করতেন তারা - dainik shiksha ২০ হাজার টাকায় শিক্ষক নিবন্ধন সনদ বিক্রি করতেন তারা অকৃতকার্য ছাত্রীকে ফের পরীক্ষায় বসতে দেয়ার নির্দেশ - dainik shiksha অকৃতকার্য ছাত্রীকে ফের পরীক্ষায় বসতে দেয়ার নির্দেশ আইডিয়াল স্কুলে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু - dainik shiksha আইডিয়াল স্কুলে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু নির্বাচনের সঙ্গে পেছাল সরকারি স্কুলের ভর্তি - dainik shiksha নির্বাচনের সঙ্গে পেছাল সরকারি স্কুলের ভর্তি শিক্ষকদের অন্ধকারে রেখে দেড় লাখ কোটি টাকার প্রকল্প! - dainik shiksha শিক্ষকদের অন্ধকারে রেখে দেড় লাখ কোটি টাকার প্রকল্প! দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website