এমপিওভুক্ত না করা অমানবিক: অধ্যক্ষ মাজহারুল হান্নান - এমপিও - Dainikshiksha

এমপিওভুক্ত না করা অমানবিক: অধ্যক্ষ মাজহারুল হান্নান

নিজস্ব প্রতিবেদক |

আন্দোলনরত শিক্ষকদের দাবিটি অত্যন্ত যৌক্তিক এবং এত বছরেও তাদেরকে এমপিওভুক্ত না করা অমানবিক বলে মন্তব্য করেছেন প্রবীণ শিক্ষক নেতা অধ্যক্ষ মোহাম্মদ মাজহারুল হান্নান। অবিলম্বে সরকারের উচিত আন্দোলনরত শিক্ষকদের সঙ্গে বৈঠকে বসা। তাদের দাবি মেনে নেয়া।

বেসরকারি শিক্ষকদের বিভিন্ন দাবী-দাওয়া নিয়ে রাজপথে আন্দোলন-অনশনের অভিজ্ঞতাসম্পন্ন মাজহারুল হান্নান শনিবার (৩০ ডিসেম্বর) রাতে দৈনিকশিক্ষার অফিসে আলাপকালে আরো বলেন, শিক্ষকদের দাবীটা অত্যান্ত যুক্তিযুক্ত বলে আমি মনে করি। দীর্ঘদিন শিক্ষকতার অভিজ্ঞতার নিয়ে এটুকুই বলব স্বাধীন সার্বভৌম দেশে প্রথমতো আমরা দেখেছি এক ধরণের বৈষম্য সেটা সরকারি বা বেসরকারি এবং এই বৈষম্যটি দূর করার জন্য আমরা দীর্ঘদিন আন্দোলন করেছি। কিছুটা আমরা অগ্রগতি অর্জন করেছি। মাঝখান থেকে এমন একটা ব্যবস্থা করা হলো যা আর একটি বৈষম্যের সৃষ্টি হলো অর্থ্যাৎ সরকারি-বেসরকারি । বেসরকারির মধ্যে আবার এমপিও, ননএমপিও।

এটাতো কোনভাবেই কাম্য নয়।

তিনি বলেন, সরকার যখন কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে অনুমোদন দেন তখন সেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি যোগ্যতম। সুতরাং তারাও এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মত এমপিও পাবার দাবিদার বা তাদেরকে পেতে হবে। এটাই সাধারণভাবে বোঝা যায়। সেক্ষেত্রে তাদেরকে দীর্ঘদিন বঞ্চিত রাখা এটা সম্পূর্ন অযৌক্তিক এবং অমানবিকও বটে।

‘তো আমি মনে করি যে, আমরা যেখানে সরকারি-বেসরকারি বৈষম্য ক্রমান্বয়ে কমিয়ে নিয়ে আসছি সেখানে বেসরকারির মধ্যে আর একটি বৈষম্য সৃষ্টি করে একটি শিক্ষা ব্যবস্থার পরিবেশকে ঘোলাটে করা হয়েছে। সেজন্য অনতি বিলম্বে যে শিক্ষকরা রাস্তায় নেমেছেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছেড়ে অবস্থান ধর্মঘট করছেন। পরবর্তীতে তারা অনশনে যাচ্ছেন এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক।

দৈনিকশিক্ষার উপদেষ্টা সম্পাদক মাজহারুল হান্নান বলেন, সরকারকে অবিলম্বে শিক্ষকদের সঙ্গে বৈঠক এবং সুপরিকল্পিতভাবে তাদেরকে এমপিওভুক্তি করা উচিত।

এক স্কুলের তিন শিক্ষকের ডাবল চাকরি! - dainik shiksha এক স্কুলের তিন শিক্ষকের ডাবল চাকরি! সনদ বিক্রিতে অভিযুক্ত বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখার বৈধতা দেয়ার উদ্যোগ - dainik shiksha সনদ বিক্রিতে অভিযুক্ত বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখার বৈধতা দেয়ার উদ্যোগ বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি অবমাননার অভিযোগে প্রধান শিক্ষক বরখাস্ত - dainik shiksha বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি অবমাননার অভিযোগে প্রধান শিক্ষক বরখাস্ত প্রাথমিকে ১৮ হাজার শিক্ষক নিয়োগের ফল ২৬ ডিসেম্বরের মধ্যে - dainik shiksha প্রাথমিকে ১৮ হাজার শিক্ষক নিয়োগের ফল ২৬ ডিসেম্বরের মধ্যে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব লাইভে শিক্ষার হাঁড়ির খবর জানুন রাত আটটায় - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব লাইভে শিক্ষার হাঁড়ির খবর জানুন রাত আটটায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দেয়াল ঘেঁষে তৈরি করা মার্কেট অপসারণের নির্দেশ - dainik shiksha শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দেয়াল ঘেঁষে তৈরি করা মার্কেট অপসারণের নির্দেশ এমপিও পুনর্বিবেচনা কমিটির সভা ১৫ ডিসেম্বর - dainik shiksha এমপিও পুনর্বিবেচনা কমিটির সভা ১৫ ডিসেম্বর জেএসসি-জেডিসির ফল ৩১ ডিসেম্বর - dainik shiksha জেএসসি-জেডিসির ফল ৩১ ডিসেম্বর লিফলেট ছড়িয়ে সরকারি স্কুল শিক্ষকদের কোচিং বাণিজ্য, ভর্তির গ্যারান্টি! - dainik shiksha লিফলেট ছড়িয়ে সরকারি স্কুল শিক্ষকদের কোচিং বাণিজ্য, ভর্তির গ্যারান্টি! ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা প্রাথমিক-ইবতেদায়ি সমাপনীর ফল বছরের শেষ দিনে - dainik shiksha প্রাথমিক-ইবতেদায়ি সমাপনীর ফল বছরের শেষ দিনে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া দৈনিকশিক্ষার ফেসবুক লাইভ দেখতে আমাদের সাথে থাকুন প্রতিদিন রাত সাড়ে ৮ টায় - dainik shiksha দৈনিকশিক্ষার ফেসবুক লাইভ দেখতে আমাদের সাথে থাকুন প্রতিদিন রাত সাড়ে ৮ টায় শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন দৈনিক শিক্ষার আসল ফেসবুক পেজে লাইক দিন - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষার আসল ফেসবুক পেজে লাইক দিন please click here to view dainikshiksha website