কওমি আইন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ৯ বছর স্টাডি করেছেন - মাদরাসা - Dainikshiksha

কওমি আইন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ৯ বছর স্টাডি করেছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক |

কওমি মাদরাসার আইন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৯ বছর স্টাডি করেছেন বলে সংসদে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম-১৫ আসনের সংসদ সদস্য ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী। পাশাপাশি কওমি মাদরাসা, হেফাজতে ইসলাম ও আল্লামা শাহ আহমদ শফীকে নিয়ে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেননের বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদও জানিয়েছেন তিনি।

সোমবার (১১ মার্চ) ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়ার সভাপতিত্বে সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন সরকারদলীয় এ সংসদ সদস্য।

কওমি সনদের স্বীকৃতি বিষয়ে নদভী বলেন, ‘এই সংসদে দাওরায়ে হাদিসকে মাস্টার্স সমমান দিয়ে আইন পাস হয়েছে। আমরা সব সংসদ সদস্য একমত হয়ে আইন পাস করেছি। তারপরও এটার ওপর কথা বলা কোনো রকম কাম্য নয়। আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা এমন কোনো সিদ্ধান্ত নেন না, যত দিন পর্যন্ত উনি ফিজিবিলিটি স্টাডি না করেন।

উনি কওমি মাদরাসার আইনটা ৯ বছর ধরে স্টাডি করেছেন। ৯ বছর স্টাডি করার পরে দেওবন্দের উসুলে হাস্তেগানা তথা ৮ নীতিমালার ওপর ভিত্তি করে এ আইন পাস করেছেন। তারপর এটা নিয়ে কথা বলা কাম্য নয়। কেন পাস করেছেন? ইনসাফ কায়েম করার জন্য, আদল কায়েম করার জন্য। ২০ হাজার কওমি মাদরাসায় ২০ লাখ কওমি শিক্ষার্থী। তাদের প্রতি ইনসাফ করেছেন। আল্লাহ আদল করতে বলেছেন। আদলকারীরা তাকওয়াবান। প্রধানমন্ত্রী তাকওয়ার কারণে এ স্বীকৃতি দিয়েছেন '

চট্টগ্রামের সাতকানীয়া-লোহাগাড়া থেকে নির্বাচিত এই এমপি উপমহাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে দেওবন্দী আলেমদের অবদানের কথা তুলে ধরে বলেন, ভারতবর্ষের স্বাধীনতা সংগ্রামে ওলামায়ে দেওবন্দ ব্যাপক অবদান রেখেছেন। যার কারণে ভারতের হিন্দু, বৌদ্ধসহ সবাই দেওবন্দি আলেমদের সম্মান করেন।

ব্রিটিশ সরকারের হাতে ধ্বংস হওয়া ইসলামি শিক্ষাব্যবস্থাকে রক্ষা করতেই দেওবন্দ, সাহারানপুর ও নদওয়াতুল ওলামা প্রতিষ্ঠা হয়েছে। দেওবন্দীদের উপমহাদেশের সকলেই শ্রদ্ধা ও ভক্তি করেন।

আওয়ামী লীগের সঙ্গে দেওবন্দী আলেমদের সম্পর্ক অনেক পুরোনো জানিয়ে আবু রেজা নদভী বলেন, মাওলানা ভাষানী, মাওলানা আবদুর রশিদ তর্কবাগিশ উভয়ে দেওবন্দে পড়াশোনা করেছেন। বঙ্গবন্ধুও মাওলানা শামসুল হক ফরীদপুরী ও মাওলানা আতহার আলীর সঙ্গে সম্পর্ক রাখতেন বলে আমরা সকলে জানি।

আমাদের প্রিয়নেত্রী শেখ হাসিনাও আল্লামা শফীর সঙ্গে আধ্যাত্মিক সম্পর্ক রাখেন। তাই কওমি মাদরাসা বিষয়ে এমন মন্তব্য আমাদের আহত করে।

আইন পাস হওয়ার পর সংসদে এমন আলোচনা অনভিপ্রেত জানিয়ে আবু রেজা নদভী বলেন, 'কওমি মাদরাসার দাওরায়ে হাদিসকে মাস্টার্স সমমান মর্যাদা দিয়ে এই সংসদে আইন পাস হয়েছে। আইন পাস হওয়ার পর এ ধরনের মন্তব্য আমাদের একটু আহত করেছে। কারণ আমিও কওমি সন্তান।'

কওমি মাদরাসার সনদ স্বীকৃতিতে জামায়াত ছাড়া সবাই খুশি হয়েছে জানিয়ে নদভী বলেন, 'এ স্বীকৃতিতে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীসহ সবাই খুশি হয়েছেন, পুরো মুসলিম বিশ্ব খুশি হয়েছেন, মুসলিম বিশ্বের আলেমরা খুশি হয়েছেন। শুধু একটা দল খুশি হন নাই, সেটা হলো জামায়াতে ইসলামী। কওমি স্বীকৃতিতে তারা খুশি হতে পারে নাই।’

১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনের প্রিলিমিনারি ৩০ আগস্ট - dainik shiksha ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনের প্রিলিমিনারি ৩০ আগস্ট স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের মে মাসের এমপিওর চেক ব্যাংকে - dainik shiksha স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের মে মাসের এমপিওর চেক ব্যাংকে ম্যানেজিং কমিটির শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে সংসদীয় কমিটিতে বিতর্ক - dainik shiksha ম্যানেজিং কমিটির শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে সংসদীয় কমিটিতে বিতর্ক প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ: ৫ দিন আগে অ্যাডমিট না পেলে যা করবেন - dainik shiksha প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ: ৫ দিন আগে অ্যাডমিট না পেলে যা করবেন নতুন সূচিতে কোন জেলায় কবে প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা - dainik shiksha নতুন সূচিতে কোন জেলায় কবে প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা বিশ্ববিদ্যালয় র‍্যাংকিং নিয়ে যা বললেন ড. জাফর ইকবাল - dainik shiksha বিশ্ববিদ্যালয় র‍্যাংকিং নিয়ে যা বললেন ড. জাফর ইকবাল সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি - dainik shiksha সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website