করোনা : বিশ্বব্যবস্থায় ৭৪ বছরের মধ্যে সর্ববৃহৎ সংকট - বিবিধ - দৈনিকশিক্ষা

করোনা : বিশ্বব্যবস্থায় ৭৪ বছরের মধ্যে সর্ববৃহৎ সংকট

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

দুই দেশের যুদ্ধ বা বিশ্বযুদ্ধ—বিবদমান পক্ষগুলো চাইলেই সমাধান সম্ভব। কিন্তু এবার ‘কভিড-১৯’ (করোনা ভাইরাস) বিস্তার নিয়ে বিশ্ব যে সংকটে পড়েছে তার আশু সমাধানের কোনো ইঙ্গিত মিলছে না। জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের বেশির ভাগ এজেন্ডা এখনো করোনা ভাইরাস বড় ইস্যু হিসেবে আসেনি। তবে আগামী দিন বা সপ্তাহগুলোতে আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তায় এবং বিশ্ব ব্যবস্থায় এর বড় প্রভাব ফেলবে। বুধবার (২৫ মার্চ) কালের কণ্ঠ পত্রিকায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা যায়। প্রতিবেদনটি লিখেছেন মেহেদী হাসান।

প্রতিবেদনে আরও জানা যায়, নিরাপত্তা পরিষদের কর্মকাণ্ড বিষয়ে আভাস দেয়া ওয়েবসাইট ‘হোয়াটস ইন ব্লু’ বলছে, অতীতে স্বাস্থ্যসংক্রান্ত বিভিন্ন সংকটের সঙ্গে করোনা ভাইরাসের অন্যতম বড় পার্থক্য হলো করোনা ভাইরাস জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের গত ৭৪ বছরের কাজের ধরনকেই বদলে দিচ্ছে। এই ভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে বলা হচ্ছে। আর এর ফলে গত সপ্তাহে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের সব বৈঠক স্থগিত করতে হয়েছে। এ সপ্তাহে কী হবে তা এখনো স্পষ্ট নয়। তবে গত সপ্তাহে নিরাপত্তা পরিষদ মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্র বিষয়ে গণমাধ্যমের জন্য একটি বিবৃতি দেওয়ার ব্যাপারে অনলাইনে একমত হয়েছে। এ ছাড়া নিরাপত্তা পরিষদের সদস্য দেশগুলো পরীক্ষামূলকভাবে নিজেদের মধ্যে গত সপ্তাহে ভিডিও কনফারেন্স করেছে।

জাতিসংঘ সনদ ও নিরাপত্তা পরিষদের কার্যবিধিতে এ ধরনের পরিস্থিতিতে কী করা হবে সে বিষয়ে খুব স্পষ্ট কিছু বলা নেই। তবে পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে সরাসরি উপস্থিত না হয়ে বৈঠকের পরিবর্তে অন্য কোনোভাবে আলোচনার সুযোগ নিরাপত্তা পরিষদের আছে। করোনা ভাইরাসের প্রভাব নিরাপত্তা পরিষদ তথা জাতিসংঘের কাজের ধরনের ওপরই শুধু নয়, পড়বে বিশ্বশান্তি ও নিরাপত্তায়ও। প্রথমত, নিরাপত্তা পরিষদ অনুমোদিত শান্তিরক্ষা মিশনগুলোতে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষীদের স্বাস্থ্য নিয়ে বড় উদ্বেগ সৃষ্টি হতে পারে। অতীতে এইচআইভি/এইডস ও ইবোলা পরিস্থিতিতে শান্তিরক্ষীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিয়ে নিরাপত্তা পরিষদকে উদ্বিগ্ন হতে দেখা গেছে। শান্তিরক্ষীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে অনেক মিশনের সক্ষমতা বাড়ানো হতে পারে। অন্যদিকে শান্তিরক্ষী সেনা ও পুলিশ প্রেরণকারী দেশগুলো এ বিষয়ে আরো নিশ্চয়তা চাইতে পারে। এ ছাড়া ভ্রমণ বিধিনিষেধ, কোয়ারেন্টিনের আবশ্যিকতা, সীমান্ত ও আঞ্চলিক যোগাযোগের কেন্দ্রগুলো বন্ধ হওয়ার কারণে শান্তিরক্ষা মিশনগুলোকে রেশন পৌঁছানো চ্যালেঞ্জ হতে পারে।

‘হোয়াটস ইন ব্লু’ তার পর্যবেক্ষণে বলেছে, করোনা ভাইরাসকে নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে তা বিশ্বের মানবিক সহায়তা পরিস্থিতিতে উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলবে। করোনা ভাইরাসের কারণে উন্নত দেশগুলোর স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থার ওপর ব্যাপক চাপ পড়ছে। যেসব অঞ্চলে স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থা দুর্বল সেখানে করোনার প্রভাব ভয়াবহ হতে পারে। দক্ষিণ সুদান, সিরিয়া, বাংলাদেশের কক্সবাজারসহ বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়ে এরই মধ্যে উদ্বেগ জানানো হয়েছে।

করোনা ভাইরাসের প্রভাবে বিশ্বে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে বিরূপ প্রভাব পড়ছে। আগামী দিনগুলোতে জাতিসংঘের তহবিলেই বড় ঘাটতি দেখা দিতে পারে। বিগত বছরগুলোতে অনেক দেশই জাতিসংঘকে চাঁদা দিতে দেরি করছে। এ ছাড়া অনেকেই জাতিসংঘের কর্মকাণ্ডে আর্থিক সহায়তা করা থেকে পিছু হটছে। এ অবস্থায় জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ থেকে শুরু করে পুরো সংস্থার সমন্বয়, সদস্য দেশগুলোর মধ্যে নতুন করে সহযোগিতা ও সংকট মোকাবেলার চেষ্টার প্রয়োজনীয়তা দেখা দিতে পারে।

জনগণের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর ৪ নির্দেশনা - dainik shiksha জনগণের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর ৪ নির্দেশনা করোনায় দেশে আরো ১ জন আক্রান্ত, সুস্থ ৪ - dainik shiksha করোনায় দেশে আরো ১ জন আক্রান্ত, সুস্থ ৪ ‘প্রয়োজনে বাইরে গেলে সঙ্গে পরিচয়পত্র রাখুন’ - dainik shiksha ‘প্রয়োজনে বাইরে গেলে সঙ্গে পরিচয়পত্র রাখুন’ করোনা : বন্ধের মধ্যেও চেক নিষ্পত্তি হবে - dainik shiksha করোনা : বন্ধের মধ্যেও চেক নিষ্পত্তি হবে বাড়িওয়ালাদের এক মাসের ভাড়া মওকুফ করার আহ্বান মেয়র আরিফের - dainik shiksha বাড়িওয়ালাদের এক মাসের ভাড়া মওকুফ করার আহ্বান মেয়র আরিফের করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কেমন হতে পারে শিক্ষকের ভূমিকা - dainik shiksha করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কেমন হতে পারে শিক্ষকের ভূমিকা প্রাথমিক শিক্ষকরা মার্চের বেতন সময়মতোই পাবেন - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষকরা মার্চের বেতন সময়মতোই পাবেন ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়তে পারে সাধারণ ছুটি - dainik shiksha ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়তে পারে সাধারণ ছুটি টিভিতে পাঠদান: সারাদেশের শিক্ষকরাই সুযোগ পাবেন - dainik shiksha টিভিতে পাঠদান: সারাদেশের শিক্ষকরাই সুযোগ পাবেন করোনা সন্দেহ হলে যা করতে হবে - dainik shiksha করোনা সন্দেহ হলে যা করতে হবে ক্ষমা চেয়ে রেহাই পেলেন ‘লাল চা’ খাওয়ার গুজব ছড়ানো সেই শিক্ষক - dainik shiksha ক্ষমা চেয়ে রেহাই পেলেন ‘লাল চা’ খাওয়ার গুজব ছড়ানো সেই শিক্ষক কান ধরে দাঁড় করানো সেই প্রবীণদের কাছে ক্ষমা চাইলেন ইউএনও - dainik shiksha কান ধরে দাঁড় করানো সেই প্রবীণদের কাছে ক্ষমা চাইলেন ইউএনও কান ধরিয়ে উঠবস করানো সেই নারী এসিল্যান্ডকে প্রত্যাহার - dainik shiksha কান ধরিয়ে উঠবস করানো সেই নারী এসিল্যান্ডকে প্রত্যাহার সংসদ টেলিভিশনের ক্লাস রুটিন দেখুন - dainik shiksha সংসদ টেলিভিশনের ক্লাস রুটিন দেখুন আরও ১ হাজার স্কুল স্থাপনের উদ্যোগ - dainik shiksha আরও ১ হাজার স্কুল স্থাপনের উদ্যোগ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন please click here to view dainikshiksha website