করোনা রোগীদের সেবায় না থাকলেও প্রণোদনা দিলো পরমাণু শক্তি কমিশন - বিবিধ - দৈনিকশিক্ষা

করোনা রোগীদের সেবায় না থাকলেও প্রণোদনা দিলো পরমাণু শক্তি কমিশন

নিজস্ব প্রতিবেদক |

মহামারী ঠেকানো কিংবা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের সেবার সঙ্গে যুক্ত না থাকলেও এই রোগে আক্রান্তদের সেবায় নিয়োজিতদের বিশেষ সম্মানীর পরিপত্রের আলোকে কর্মকর্তাদের প্রণোদনা দিয়েছে দুটি সরকারি প্রতিষ্ঠান। লকডাউনের মধ্যে অফিস করায় বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ এবং বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের কর্মকর্তারা এই প্রণোদনা পেয়েছেন।

কমিশন সভা না করেই ‘অনৈতিকভাবে’ এই প্রণোদনা নিয়ে প্রতিষ্ঠান দুটির মধ্যেই প্রশ্ন উঠেছে।

চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মীদের পাশাপাশি ব্যাংক কর্মকর্তাদের বাইরে অন্যদের প্রণোদনা দেওয়ার বিষয়ে সরকারের কোনো সার্কুলার না থাকায় কয়েকজন কর্মকর্তা প্রণোদনার অর্থ নেননি।

প্রতিষ্ঠান দুটির কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, কর্মকর্তাদের প্রণোদনা হিসেবে এক থেকে দুই মাসের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ দেওয়া হলেও নিচের শ্রেণির কর্মচারীদের তা দেওয়া হয়নি।

কোভিড-১৯ আক্রান্তদের সেবা প্রদানে সরাসরি কর্মরত চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীসহ সরকারের নির্দেশনা বাস্তবায়নে মাঠ প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, সশস্ত্র বাহিনী এবং প্রত্যক্ষভাবে নিয়োজিত সরকারি কর্মচারী দায়িত্ব পালনকালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে তাদের ক্ষতিপূরণ দিতে গত ২৩ এপ্রিল পরিপত্র জারি করে অর্থ বিভাগ।

বেতন গ্রেড ভেদে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত এবং এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলে একেক ধরনের ক্ষতিপূরণ পাবেন সরকারি চারকরিজীবীরা।

গত ৯ জুলাই অর্থ বিভাগ আরেক পরিপত্রে জানায়, কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের সেবা প্রদানে সরাসরি নিয়োজিত চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সরকার এককালীন বিশেষ সম্মানী হিসেবে দুই মাসের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ দেওয়া হবে।

এর বাইরে লকডাউনের মধ্যে যেসব ব্যাংক কর্মকর্তা অফিস করেছেন তাদের প্রণোদনা দিয়েছে সরকার।

পরমাণু শক্তি নিয়ন্ত্রণ কমিশনের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, “প্রণোদনা হিসেবে কাউকে দুই মাসের মূল বেতন, আবার কাউকে এক মাসের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ দেওয়া হয়েছে। টাকার পরিমাণ কম-বেশি হওয়ায় বিষয়টি বাইরে এসেছে, নইলে সবকিছু গোপনই থাকত।”

কর্মকর্তাদের সঙ্গে পরমাণু শক্তি নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান নিজেও এই প্রণোদনার অর্থ নিয়েছেন দাবি করে ওই কর্মকর্তা বলেন, কমিশন সভা করে প্রণোদনার টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়নি। এই প্রণোদনার বিষয়ে কমিশনের সদস্যরা জানেন না। কারণ এই প্রতিষ্ঠান এভাবে প্রণোদনা দিতে পারে না।

“যারা প্রণোদনার টাকা নিয়েছেন, তারা কীভাবে সেই টাকা পেয়েছেন তার কোনো উত্তর দিতে পারছেন না। ফলে টাকা গ্রহণকারীরা বিষয়টি অনেক দিন গোপন রেখেছেন। লকডাউনের মধ্যে অনেক কর্মচারীকে নিয়মিতভাবে অফিস করতে হলেও তাদের কাউকেই প্রণোদনা দেওয়া হয়নি।”

কয়েকজন কর্মকর্তা জানান, তাদের প্রণোদনার টাকা তোলার কথা বললেও তারা নৈতিকতার প্রশ্নে তা তোলেননি। কোরবানির ঈদের আগে এই প্রণোদনা দেওয়া হলেও বার বার তাগাদার পর কয়েকজন ঈদের পর টাকা তুলবেন বলে জানিয়েছিলেন।
 
পরমাণু শক্তি নিয়ন্ত্রণ কমিশনের কর্মচারীদের এই প্রণোদনার টাকা দেওয়া হয়নি বলে তাদের মধ্য থেকে কয়েকজন বেনামে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বলে একজন কর্মচারী জানিয়েছেন।

প্রণোদনার এই অর্থ নিয়ে অধিক আপত্তি উঠলে তা ফেরত দিতে হবে, এমন লিখিত প্রতিশ্রুতি নিয়েই এই টাকা দেওয়া হয়েছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

লকডাউনের মধ্যে অফিস করায় পরমাণু শক্তি নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের কতজন কর্মকর্তাকে প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে, সে বিষয়ে সুস্পষ্ট করে কেউ কোনো তথ্য দিতে পারেননি।

পরমাণু শক্তি নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মো. মোজাম্মেল হক স্বীকার করেছেন, হিসাব শাখাসহ আরও কিছু কর্মকর্তাকে প্রণোদনা হিসেবে টাকা দেওয়া হয়েছে।

বুধবার জিজ্ঞাসায় তিনি বলেন, “মেডিকেল যন্ত্রপাতি আনতে আমরা লাইসেন্স দেই, লকডাউনের মধ্যে অনেকেই এনিয়ে কাজ করেছেন। ওই সময় রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের বিল পরিশোধ নিয়ে কাজ করতে হয়েছে, হিসাব শাখার লোকজন কাজ করেছেন বলে তাদের প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে।”

অর্থ মন্ত্রণালয়ের সার্কুলার অনুযায়ী পরমাণু শক্তি নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তারা প্রণোদনা পান কি না- সেই প্রশ্নে মোজাম্মেল হক বলেন, “আমরা ওই সার্কুলার ধরে প্রণোদনা নেইনি, ওই সার্কুলারের আলোকে প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে।”

নিজের প্রণোদনা গ্রহণ নিয়ে কোনো কথা বলেননি পরমাণু শক্তি নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান।

বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের সদস্য (পরিকল্পনা) মো. আজিজুল হক সাংবাদিকদের বলেন, “চেয়ারম্যান একক সিদ্ধান্তে কিছু কর্মকর্তাকে প্রণোদনা হিসেবে টাকা দিয়েছেন। কোনো অফিসিয়াল ডকুমেন্ট মেইনটেইন করা হয়নি।”

কমিশন সভা করে এই প্রণোদনা দেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি জানিয়ে তিনি বলেন, কমিশনের সদস্য হিসেবে তিনি এ ব্যাপারে কিছু জানেন না।

এ বিষয়ে কথা বলতে বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. সানোয়ার হোসেনকে কয়েকবার ফোন করা হলেও তিনি তা ধরেননি।

১৪ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়ল স্কুল কলেজের ছুটি, পরিস্থিতি বিবেচনায় কিছু প্রতিষ্ঠান খোলার চিন্তা - dainik shiksha ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়ল স্কুল কলেজের ছুটি, পরিস্থিতি বিবেচনায় কিছু প্রতিষ্ঠান খোলার চিন্তা ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার ফল শিগগিরই : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার ফল শিগগিরই : শিক্ষামন্ত্রী ‘আশা করছি এসএসসি পেছাতে হবে না’ - dainik shiksha ‘আশা করছি এসএসসি পেছাতে হবে না’ ভর্তিতে সরাসরি লিখিত পরীক্ষা নেয়ার পক্ষে বুয়েট উপাচার্য - dainik shiksha ভর্তিতে সরাসরি লিখিত পরীক্ষা নেয়ার পক্ষে বুয়েট উপাচার্য পরীক্ষা নেয়ার অনুমতি বাগিয়ে নিলো বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় মালিকরা - dainik shiksha পরীক্ষা নেয়ার অনুমতি বাগিয়ে নিলো বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় মালিকরা মূল্যায়ন করেই শিক্ষার্থীদের এসএসসির জন্য নির্বাচনের পরিকল্পনা - dainik shiksha মূল্যায়ন করেই শিক্ষার্থীদের এসএসসির জন্য নির্বাচনের পরিকল্পনা আলিমের বাংলা ১ম পত্রের পরিমার্জিত সিলেবাস - dainik shiksha আলিমের বাংলা ১ম পত্রের পরিমার্জিত সিলেবাস দশ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নতুন ভবন পাচ্ছে - dainik shiksha দশ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নতুন ভবন পাচ্ছে লক্ষাধিক শিক্ষকের অবৈধ সনদের বৈধতা দিলেন বিদায়ী প্রাথমিক সচিব - dainik shiksha লক্ষাধিক শিক্ষকের অবৈধ সনদের বৈধতা দিলেন বিদায়ী প্রাথমিক সচিব এমপিওবঞ্চিত প্রার্থীদের সুপারিশের আগে অ্যাটর্নি জেনারেল অফিসের মতামত নেবে এনটিআরসিএ - dainik shiksha এমপিওবঞ্চিত প্রার্থীদের সুপারিশের আগে অ্যাটর্নি জেনারেল অফিসের মতামত নেবে এনটিআরসিএ নতুন শিক্ষাবর্ষে স্কুলে ভর্তি : প্রধান শিক্ষকরা পরীক্ষার পক্ষে - dainik shiksha নতুন শিক্ষাবর্ষে স্কুলে ভর্তি : প্রধান শিক্ষকরা পরীক্ষার পক্ষে অনার্স ও পলিটেকনিক শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার জোর প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান শিক্ষামন্ত্রীর - dainik shiksha অনার্স ও পলিটেকনিক শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার জোর প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান শিক্ষামন্ত্রীর please click here to view dainikshiksha website