কলেজছাত্র হত্যা মামলার ৫ আসামী গ্রেফতার, বিচার দাবি শিক্ষার্থীদের - বিবিধ - দৈনিকশিক্ষা

কলেজছাত্র হত্যা মামলার ৫ আসামী গ্রেফতার, বিচার দাবি শিক্ষার্থীদের

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি |

ময়মনসিংহে পূজা মণ্ডপের সামনে প্রতিমা বিসর্জনের আগে ছুরিকাঘাতে এক কলেজছাত্র নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) নগরীর গোলপুকুর পাড় এলাকায় রাত সাড়ে ৯টার দিকে হত্যাকাণ্ডের এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কলেজছাত্রের বাবা একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ মামলার এজাহারভুক্ত ৫ জন আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে দৈনিক শিক্ষাডটকমকে নিশ্চিত করেছেন কোতয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহমুদুল ইসলাম। আর কমার্স কলেজের ২য় বর্ষের ছাত্র শাওন ভট্টাচার্য্যকে হত্যার বিচার দাবি করে সকালে নতুন বাজার কলেজের সামনে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করেছে শিক্ষার্থীরা।

ওসি মাহমুদুল ইসলাম জানান, এ মামলার এজহারভুক্ত আসামী মাহিন, আকাশ, রাকীব, হৃদয়সহ ৫জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে গোলপুকুরপাড় পূজা মন্ডপে প্রতিমা বিসর্জনের প্রস্তুতির সময় কে বা কারা শাওনের বুকে ছুড়িকাঘাত করে পালিয়ে যায়। প্রতিমা বিসর্জনের আগে নাচানাচির এক পর্যায়ে বন্ধুদের মাঝে কথা কাটাকাটির জেরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে ধারনা করা হচ্ছে। স্থানীয়রা আহত শাওনকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে আসেন জেলা পুলিশ সুপার শাহ মো. আবিদ হোসেন।

নিহত কলেজ ছাত্রের বাবা শুভাশীষ ভট্টাচার্য দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, কারা কেন আমার ছেলেকে হত্যা করেছে আমি কিছুই জানি না। আমি আমার ছেলের হত্যাকারীদের বিচার চাই। আর কথা বলতে গিয়ে বারবার কান্নায় ভেঙ্গে পড়েছিলেন নিহত শাওনের মা।

এদিকে কমার্স কলেজের ২য় বর্ষের ছাত্র শাওন ভট্টাচার্য্যকে হত্যার প্রতিবাদে নতুন বাজার কলেজের সামনে সকাল ১১টায়  ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করেছে বিক্ষুব্ধ সহপাঠীরা। এতে কয়েকশত শিক্ষার্থী অংশ নেন। শিক্ষার্থীরা অবিলম্বে শাওন হত্যাকারীদের খুঁজে বের করে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। 

এমপিওভুক্তির তালিকায় প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন - dainik shiksha এমপিওভুক্তির তালিকায় প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ - dainik shiksha মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ মারধরে অসুস্থ হলে আবরারকে অন্য রুমে নিয়ে গিয়ে পেটাই : রবিন - dainik shiksha মারধরে অসুস্থ হলে আবরারকে অন্য রুমে নিয়ে গিয়ে পেটাই : রবিন কী আছে শিক্ষক গোকুল দাশের লাইব্রেরিতে, কেন বিক্রির বিজ্ঞাপন? - dainik shiksha কী আছে শিক্ষক গোকুল দাশের লাইব্রেরিতে, কেন বিক্রির বিজ্ঞাপন? ৪২ শতাংশই অন্য চাকরি না পেয়ে শিক্ষকতায় এসেছেন - dainik shiksha ৪২ শতাংশই অন্য চাকরি না পেয়ে শিক্ষকতায় এসেছেন ডিগ্রি ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত - dainik shiksha ডিগ্রি ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website