কলেজে থাকেন না অধ্যক্ষ - কলেজ - Dainikshiksha

কলেজে থাকেন না অধ্যক্ষ

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

মাসের বেশির ভাগ দিন কলেজেই থাকেন না মেহেরপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক শফিউল ইসলাম সরদার। এমন অভিযোগ করেছে প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা। ফলে জেলার ঐতিহ্যবাহী এ বিদ্যাপীঠটি প্রশাসনিক ও শিক্ষাগত দিক দিয়ে দুর্বল হয়ে পড়ছে। তবে অধ্যক্ষের দাবি, প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের কারণেই তাঁকে কলেজের বাইরে থাকতে হচ্ছে।

এমন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে শনিবার সরেজমিনে কলেজে গিয়ে দেখা যায়, অধ্যক্ষ কলেজে নেই। সহযোগী অধ্যাপক আবদুল্লাহ আল আমিন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ঈদের পর থেকে তিনি এখন পর্যন্ত কলেজে যোগ দেননি।

অধ্যক্ষ অধ্যাপক শফিউল ইসলাম সরদার ২০১৭ খ্রিস্টাব্দে ২৩ এপ্রিল মেহেরপুর সরকারি কলেজে যোগ দেন। যোগ দেওয়ার পর থেকেই তিনি মাসের দুই-তৃতীয়াংশ সময় কলেজে আসেন না বলে অভিযোগ রয়েছে।

মেহেরপুর সরকারি কলেজের প্রধান সহকারী সালমা খাতুন জানান, গত ২৬ থেকে ৩০ আগস্ট পর্যন্ত অধ্যক্ষ ছুটি নিয়েছেন। তবে ছুটির কোনো আবেদন মহাপরিচালকের দপ্তরে পাঠানো হয়নি বলে স্বীকার করেন তিনি।

অধ্যক্ষ অধ্যাপক শফিউল ইসলাম সরদার বলেন, ‘আমাকে কলেজের উন্নয়নকাজে ব্যস্ত থাকতে হয়। এ কারণে আমাকে মাঝেমধ্যে ঢাকায় যেতে হয়। তবে আমি আমার ব্যক্তিগত কাজে কখনো কলেজের বাইরে থাকি না।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমি আসার পর কলেজে চারটি বিষয়ে অনার্স খুলেছি। আরো দুটি বিষয় অন্তর্ভুক্তির প্রক্রিয়া চলছে।’

 

সৌজন্যে: কালের কণ্ঠ

ডিগ্রি ভর্তির অনলাইন আবেদন শুরু আজ - dainik shiksha ডিগ্রি ভর্তির অনলাইন আবেদন শুরু আজ বৈশাখী ভাতা ও ইনক্রিমেন্ট কার্যকর জুলাই থেকেই - dainik shiksha বৈশাখী ভাতা ও ইনক্রিমেন্ট কার্যকর জুলাই থেকেই সরকারি হলো আরও ৪ মাধ্যমিক বিদ্যালয় - dainik shiksha সরকারি হলো আরও ৪ মাধ্যমিক বিদ্যালয় ২০ হাজার টাকায় শিক্ষক নিবন্ধন সনদ বিক্রি করতেন তারা - dainik shiksha ২০ হাজার টাকায় শিক্ষক নিবন্ধন সনদ বিক্রি করতেন তারা অকৃতকার্য ছাত্রীকে ফের পরীক্ষায় বসতে দেয়ার নির্দেশ - dainik shiksha অকৃতকার্য ছাত্রীকে ফের পরীক্ষায় বসতে দেয়ার নির্দেশ আইডিয়াল স্কুলে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু - dainik shiksha আইডিয়াল স্কুলে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু নির্বাচনের সঙ্গে পেছাল সরকারি স্কুলের ভর্তি - dainik shiksha নির্বাচনের সঙ্গে পেছাল সরকারি স্কুলের ভর্তি শিক্ষকদের অন্ধকারে রেখে দেড় লাখ কোটি টাকার প্রকল্প! - dainik shiksha শিক্ষকদের অন্ধকারে রেখে দেড় লাখ কোটি টাকার প্রকল্প! একাডেমিক স্বীকৃতি পেল ৪৭ প্রতিষ্ঠান - dainik shiksha একাডেমিক স্বীকৃতি পেল ৪৭ প্রতিষ্ঠান দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website