কল্যাণ ট্রাস্ট থেকে আর্থিক সুবিধা নেননি অধ্যক্ষ শাহজাহান সাজু - সমিতি সংবাদ - Dainikshiksha

কল্যাণ ট্রাস্ট থেকে আর্থিক সুবিধা নেননি অধ্যক্ষ শাহজাহান সাজু

নিজস্ব প্রতিবেদক |

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক ও কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্টের আওতাধীন অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক কর্মচারীদের হাতে কল্যাণ সুবিধার টাকা পৌছে দিতে অফিস থেকে কোনো আর্থিক সুবিধা নেননি ট্রাস্টের সদস্য সচিব অধ্যক্ষ মো. শাহজাহান আলম সাজু।  মঙ্গলবার (২২ জানুয়ারি)  দৈনিকশিক্ষা ডটকমে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ দাবি করা হয়।

 স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের মিডিয়া সেল প্রধান প্রফেসর মো সাজিদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. শাহজাহান আলম সাজু তিন মেয়াদে শিক্ষক কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্টের সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করেন। এসময় তিনি দেশের প্রায় প্রতিটি জেলা সফর করেছেন। মুক্তিযোদ্ধা, গুরুতর অসুস্থ, কন্যাদায়গ্রস্থ শিক্ষকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে এমনকি হাসপাতালে গিয়ে অসুস্থ শিক্ষকের হাতে কল্যাণ সুবিধার চেক তুলে দিয়ে সারাদেশে প্রসংশিত হয়েছেন তিনি।

কল্যাণ ট্রাস্টে আইন অনুযায়ী অফিসের কাজে ঢাকার বাইরে গেলে কিংবা অবস্থান করলে সরকারি বিধি অনুযায়ী কল্যাণ ট্রাস্টের সদস্য সচিব ভিআইপি পদ মর্যাদায় টিএ/ডিএ ও অন্যান্য সুযোগ সুবিধা পেয়ে থাকেন। কল্যাণ ট্রাস্টের সদস্য সচিব তিন মেয়াদে ৯ বছর এই দায়িত্ব থাকাকালীন সারাদেশে ব্যাপক কর্মকাণ্ডে লিপ্ত থাকলেও তিনি অফিস থেকে কোন আর্থিক সুবিধা গ্রহণ করেন নি। টাকার অংকে এর পরিমাণ হবে সাত থেকে আট লাখ টাকা।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়,কল্যাণ ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠার পর ১৯৯০ থেকে ২০০৮ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত ১৮ বছরে কল্যাণ সুবিধা দেয়া হয়েছে ২৭৯ কোটি । অধ্যক্ষ শাহজাহান সাজু সদস্য সচিব থাকাকালীন সময়ে গত ৯ বছরে ১ লাখ শিক্ষক কর্মচারীর মধ্যে প্রায় ২ হাজার কোটি টাকা প্রদান করেছেন।

উল্লেখ্য, গত ১২ জানুয়ারি কল্যাণ ট্রাস্টের সদস্য সচিব অধ্যক্ষ মো. শাহজাহান আলম সাজুর চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়।

করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় ২২ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২ হাজার ৩৮১ - dainik shiksha করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় ২২ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২ হাজার ৩৮১ দাখিলের ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন যেভাবে - dainik shiksha দাখিলের ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন যেভাবে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পাস ৮২ দশমিক ৮৭ শতাংশ - dainik shiksha এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পাস ৮২ দশমিক ৮৭ শতাংশ দাখিলে পাস ৮২ দশমিক ৫১ শতাংশ - dainik shiksha দাখিলে পাস ৮২ দশমিক ৫১ শতাংশ এসএসসি ভোকেশনালে পাস ৭২ দশমিক ৭০ শতাংশ - dainik shiksha এসএসসি ভোকেশনালে পাস ৭২ দশমিক ৭০ শতাংশ ১০৪টি প্রতিষ্ঠানে কেউ পাস করতে পারেনি - dainik shiksha ১০৪টি প্রতিষ্ঠানে কেউ পাস করতে পারেনি এসএসসির ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন ৭ জুনের মধ্যে - dainik shiksha এসএসসির ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন ৭ জুনের মধ্যে এখনই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলছে না : প্রধানমন্ত্রী - dainik shiksha এখনই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলছে না : প্রধানমন্ত্রী ৬ জুন থেকে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির প্রক্রিয়া শুরুর প্রস্তাব - dainik shiksha ৬ জুন থেকে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির প্রক্রিয়া শুরুর প্রস্তাব নন-এমপিও শিক্ষকদের তালিকা তৈরিতে ৯ নির্দেশ - dainik shiksha নন-এমপিও শিক্ষকদের তালিকা তৈরিতে ৯ নির্দেশ কলেজে ভর্তি : দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে - dainik shiksha কলেজে ভর্তি : দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছুটি বাড়ল ১৫ জুন পর্যন্ত - dainik shiksha বিশ্ববিদ্যালয়ের ছুটি বাড়ল ১৫ জুন পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি ১৫ জুন পর্যন্ত, ৩১ মে থেকে অফিস-আদালত খুলছে - dainik shiksha শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি ১৫ জুন পর্যন্ত, ৩১ মে থেকে অফিস-আদালত খুলছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website