কারিগরি প্রতিষ্ঠান দ্রুত বাস্তবায়নে যা প্রয়োজন - মতামত - দৈনিকশিক্ষা

কারিগরি প্রতিষ্ঠান দ্রুত বাস্তবায়নে যা প্রয়োজন

প্রকৌশলী রিপন কুমার দাস |

২০০৮ খ্রিষ্টাব্দে আওয়ামীলীগের নির্বাচনী ইশতেহারে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল যে, কারিগরি শিক্ষা প্রসারের লক্ষ্যে সারা দেশের ‘১০০টি উপজেলায় একটি করে টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ স্থাপন’ প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়ন করা হবে। কিন্তু এই প্রকল্পটির কাজ প্রায় দশ বছরেও দৃশ্যমান হয়নি বা শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্রম শুরু করতে পারেনি।

জানা গেছে, উপজেলা পর্যায়ে ৩২৯টি কারিগরি স্কুল ও কলেজ (টিএসসি) স্থাপন করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। ব্যয় হবে ২০ হাজার ৮৮৫ কোটি ৪৬ লাখ টাকা। প্রস্তাবিত প্রকল্পভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোতে ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত সাধারণ শিক্ষার পাশাপাশি কর্মমুখী প্রকৌশল শিক্ষা বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা হবে।

সেই সঙ্গে এসএসসি (ভোকেশনাল) ও এইচএসসি (ভোকেশনাল) কোর্স চালু করার মাধ্যমে দেশব্যাপী কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষার সম্প্রসারণ করা হবে। জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে অনুমোদন পেলে ২০১৯ থেকে ২০২৩ খ্রিষ্টাব্দের ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর। প্রস্তাবিত প্রকল্পটি যাতে আগের মতো জটিলতায় না পড়ে সেজন্য পূর্বেই ভূমি অধিগ্রহণ কার্যক্রম এগিয়ে রাখা হচ্ছে। যাতে প্রকল্পটি অনুমোদন পেলেই বেশ কিছু স্থানে ভবন নির্মাণ শুরু করা যায়।

এক্ষেত্রেও এ প্রকল্পটি ২০২৩ খ্রিষ্টাব্দে সম্পন্ন করা কোনোভাবেই সম্ভব হবে না, পূর্বের অভিজ্ঞতার আলোকে প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে ২০৩৩ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে । তাই প্রস্তাবিত ৩২৯টি টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ স্থাপন করার জন্য যে প্রকল্প গ্রহণ করা হবে তা প্রকল্প শুরুর পর অর্থাৎ ২০২০ শিক্ষাবর্ষ থেকেই ভর্তি কার্যক্রম শুরু করতে হবে। অর্থাৎ স্থায়ী অবকাঠামো নির্মাণের জন্য অপেক্ষা না করে ভাড়া বাড়ি অথবা পাশ্ববর্তী কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অস্থায়ী ভিত্তিতে কমপক্ষে ২টি ট্রেড নিয়ে শ্রেণি কার্যক্রম শুরু করতে পারলে প্রকল্পটি দ্রুত দৃশ্যমানসহ কম সময়ের মধ্যে এর সুবিধা গ্রহণ করে দেশকে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষায় উন্নত করা সম্ভব হবে। সেজন্য প্রাথমিকভাবে অবকাঠামো ও স্বল্প বাজেটের মধ্যে ২টি ট্রেড নির্বাচন করা অত্যন্ত জরুরি। তাই প্রতিটি প্রতিষ্ঠানে বালক ও বালিকাদের উপযোগী তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ট্রেড ও ড্রেসমেকিং (জেনারেল গার্মেন্টস ম্যানুফ্যাকচার) ট্রেড নির্বাচন করা যেতে পারে। 

ভাড়া বাড়িতে অথবা পাশ্ববর্তী কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনার জন্য সরকারি টেক্সটাইল ভোকেশনাল ইন্সটিটিউট (টিভিআই) এর উদাহরণ সামনে আনতে পারি । টিভিআই সমূহ প্রকল্প স্থাপনের সাথে সাথেই ভাড়া বাড়িতে তাদের শ্রেণি কার্যক্রম চালিয়ে নিয়ে আসছেন। ফলে তাদের মূল লক্ষ্য পুরণসহ প্রকল্প ব্যয় অনেকাংশে কমিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছেন। এছাড়া বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই নতুন স্থাপিত সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমূহ তাদের শ্রেণি কার্যক্রম নিজস্ব ভবনে যাওয়ার পূর্বেই অন্য কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভবনে পরিচালিত করেছেন এবং পরবর্তীতে নিজস্ব ভবন তৈরি হওয়ার পর সেখানে শ্রেণি কার্যক্রম স্থানান্তর করছেন।

এক্ষেত্রে বরিশালের নতুন স্থাপিত সরকারি রুপাতলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, সরকারি কাউনিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় এই তিনটি প্রতিষ্ঠানই তাদের নিজস্ব ভবনে যাওয়ার পূর্বে বরিশাল সরকারি জিলা স্কুলে তাদের শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন। তাই প্রস্তাবিত ৩২৯টি টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ যেসব স্থানে স্থাপন করা হবে তার দুই কিলোমিটার দুরত্বের মধ্যে অবস্থিত সরকারি বা বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কয়েকটি কক্ষে শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনা করা সম্ভব। এক্ষেত্রে প্রকল্পের অবকাঠামো নির্মানসহ সকল প্রকার যন্ত্রপাতি গ্রহণ ও প্রকল্পের অন্যান্য কার্যক্রম সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষগণ সঠিক ভাবে তদারকি করতে সক্ষম হবেন এবং দেশে ২০২১ খ্রিষ্টাব্দের মধ্যেই কারিগরি শিক্ষায় ভর্তির হার ২০ ভাগে উন্নীত করে দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করা সম্ভব হবে।

লেখক: ট্রেড ইন্সট্রাক্টর,পটুয়াখালী।

মৃত শিক্ষককেও বদলি করল মন্ত্রণালয় - dainik shiksha মৃত শিক্ষককেও বদলি করল মন্ত্রণালয় please click here to view dainikshiksha website