কোটালীপাড়া শিক্ষা অফিসে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ - বিবিধ - Dainikshiksha

কোটালীপাড়া শিক্ষা অফিসে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি |

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কার্যালয়ে সব কাজের জন্য শিক্ষকদের ঘুষ দিতে হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। অবশ্য শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মাহাবুবুর রহমান দাবি করেছেন, অনেক কাজ করতে হয় বলে শিক্ষকরা খুশি হয়ে তাদের মিষ্টি খাওয়ার জন্য টাকা দেন।

শিক্ষকদের অভিযোগ, টাকা না দিলে তাদের মাসের পর মাস হয়রানি করা হয়। বাধ্য হয়েই তারা টাকা দিয়ে কাজ করিয়ে নেন। হয়রানির ভয়ে তারা নাম বলতে চাননি।

একাধিক প্রধান শিক্ষক অভিযোগ করেন, শিক্ষকদের বেতন-বিলের কাগজপত্র জেলা শিক্ষা অফিসে পাঠাতে শিক্ষক প্রতি ১০ হাজার টাকা দিতে হয়। শিক্ষকের শূন্য পদের তালিকা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠাতেও উপজেলা শিক্ষা অফিসে টাকা দিতে হয়।

উপজেলার হিজলবাড়ী বিনয়কৃষ্ণ উচ্চ বিদ্যালয়ে নতুন নিয়োগ পাওয়া পাঁচ শিক্ষকের কাছ থেকে ৭০ হাজার, হিরণ পঞ্চপল্লী উচ্চ বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষকের কাছ থেকে ৪০ হাজার ও পোলসাইর ত্রিপল্লী উচ্চ বিদ্যালয়ের কম্পিউটার শিক্ষকের কাছ থেকে ১৫ হাজার টাকা নেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ এসেছে।

এছাড়া আরও অনেক প্রতিষ্ঠান থেকে একই ধরনের অভিযোগ এসেছে।

একজন শিক্ষক বলেছেন, আমি নতুন নিয়োগ পেয়েছি। আমার বেতন-বিলের কাগজ দেরিতে পাঠালে তিন মাসের বেতন ৪৮ হাজার টাকা পাব না। এই ভয় দেখিয়ে ওই অফিসের একজন সহকারী আমার কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা নিয়ে বেতন-বিলের কাগজ জেলা শিক্ষা অফিসে পাঠিয়েছেন। সব কাজেই তাদের টাকা দিতে হয়। টাকা ছাড়া এখানে কোনো কাজ হয় না। এখানে শিক্ষকরা জিম্মি হয়ে পড়েছেন।

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মাহাবুবুর রহমান প্রায় আট বছর ধরে এ উপজেলায় কর্মরত রয়েছেন। তিনি অফিস ফাঁকি দিয়ে অনিয়ম-দুর্নীতি ও অর্থ আদায় নিয়েই বেশি ব্যস্ত থাকেন বলে অভিযোগ আছে।

উপজেলার অনেক প্রধান শিক্ষক এই শিক্ষা কর্মকর্তার অপসারণ দাবি করেছেন। তবে মাহাবুবুর রহমান সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

তিনি বলেন, বেতন-বিল জেলা শিক্ষা অফিসে পাঠানোসহ বিভিন্ন ধরনের জটিল কাজ রয়েছে। এসব কাজে অনেক পরিশ্রম করতে হয়। অনেক কাগজ পাঠাতে হয়। এ কারণে অনেক শিক্ষক খুশি হয়েই অফিসের কর্মচারীদের মিষ্টি খেতে কিছু টাকা দিয়ে থাকেন। নানাবিধ কাজে ব্যস্ত থাকায় আমি সার্বক্ষণিক অফিস করতে পারি না।

স্নাতক ছাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি নয়: প্রজ্ঞাপন জারি - dainik shiksha স্নাতক ছাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি নয়: প্রজ্ঞাপন জারি নবসৃষ্ট পদে এমপিও জটিলতা নিয়ে যা বললেন শিক্ষকরা (ভিডিও) - dainik shiksha নবসৃষ্ট পদে এমপিও জটিলতা নিয়ে যা বললেন শিক্ষকরা (ভিডিও) জেএসসি-জেডিসির ১২ নভেম্বরের পরীক্ষাও স্থগিত - dainik shiksha জেএসসি-জেডিসির ১২ নভেম্বরের পরীক্ষাও স্থগিত অনার্স ২য় বর্ষ পরীক্ষার সংশোধিত সূচি - dainik shiksha অনার্স ২য় বর্ষ পরীক্ষার সংশোধিত সূচি এমপিওভুক্তি : ভুল প্রতিষ্ঠানের তালিকা প্রস্তুত - dainik shiksha এমপিওভুক্তি : ভুল প্রতিষ্ঠানের তালিকা প্রস্তুত অতিরিক্ত ক্লাসের নামে স্কুল কক্ষেই চলে কোচিং - dainik shiksha অতিরিক্ত ক্লাসের নামে স্কুল কক্ষেই চলে কোচিং ভোকেশনাল সমাপনী পরীক্ষার সংশোধিত সূচি - dainik shiksha ভোকেশনাল সমাপনী পরীক্ষার সংশোধিত সূচি আলিমের সিলেবাস ও মানবণ্টন দেখুন - dainik shiksha আলিমের সিলেবাস ও মানবণ্টন দেখুন শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website