please click here to view dainikshiksha website

কোথাও একটু ভুল বোঝাবুঝি হচ্ছে: ঢাবি প্রক্টর

ঢাবি প্রতিনিধি | নভেম্বর ১৭, ২০১৭ - ৭:১৮ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

রাত আটটার মধ্যে টিএসসির চায়ের দোকান বন্ধ ও ১০টার মধ্যে ছাত্রদের হলে প্রবেশের বিষয়ে প্রক্টরের দেওয়া বক্তব্যকে ভুলভাবে ব্যাখ্যা করা হচ্ছে বলে দাবি করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এম কে গোলাম রব্বানী।

শুক্রবার (১৭ নভেম্বর) বিকালে তিনি বলেন,‘রাত আটটার মধ্যে টিএসসিতে চায়ের দোকান বন্ধ হয়ে যাচ্ছে বলে আমি এবং উপাচার্য অবহিত হয়েছি। কিন্তু আমরা চাই, অন্তত ৯টা- ১০টা পর্যন্ত দোকান খোলা থাকবে। কারণ, আমাদের ছেলেমেয়েরা এ সময় পর্যন্ত বাইরে থাকে।’

প্রক্টর গোলাম রব্বানী বলেন, ‘গত কয়েকদিন আগে রাত ১১টার দিকে ছাত্রদের সঙ্গে যেসব কথা হয়েছে, সে বিষয়ে কিছু বলতে চাই না। কারণ, সেদিন তাদের সঙ্গে একেবারেই ইনফরমাল কথা হয়েছিল। কোনও নিষেধাজ্ঞা অথবা কোনও নোটিশ দেওয়া হয়নি। ওইসব শিক্ষার্থীদের মধ্যে বহিরাগত ছেলেমেয়েরাও ছিল। তাদের নিরাপত্তার স্বার্থে বাসায় চলে যাওয়ার জন্য বলা হয়েছিল। বাকি ছাত্ররা তাদের পরিচয় দিয়েছিল তারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের। তাদেরও বলা হয়েছিল, ‘তোমরা হলে যাও। হলের আশেপাশে আড্ডা দাও-চা খাও, কোনও সমস্যা নেই।’ ওই পরিস্থিতিতে নিরাপত্তার স্বার্থে কথাটি তাদের বলা হয়েছিল। কিন্তু আমরা চাই- শিক্ষার্থীরা রাত অন্তত ১১টা-১২টা পর্যন্ত আড্ডা দিক।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের কনসার্ন হলো বহিরাগতদের বিষয়ে। আমরা চাই, ক্যাম্পাস বহিরাগত মুক্ত হোক। তবে রাতে তারা কতক্ষণ থাকতে পারবে, সে ব্যাপারে কোনও টাইম ফ্রেম বলা হয়নি। খুব স্বাভাবিকভাবে ৮টা-৯টার মধ্যে তাদের ক্যাম্পাস ছেড়ে যাওয়া উচিত। কিন্তু শিক্ষার্থীরা মনে করছে, আমরা তাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছি।এর প্রতিবাদও করছে তারা। আমার মনে হচ্ছে একটু ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হচ্ছে।’

উল্লেখ্য, শিক্ষার্থীদের অভিযোগ- সম্প্রতি রাত ১১টার দিকে ঢাবি’র টিএসসি এলাকায় কয়েকজন শিক্ষার্থীকে হলে গিয়ে আড্ডা দিতে বলেন প্রক্টর। এছাড়া রাত ৮টার মধ্যে চায়ের দোকান বন্ধেরও নোটিশ দেওয়া হয়েছে। এর প্রতিবাদ জানিয়ে বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) সারারাত টিএসসিতে আড্ডা দিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। তারা ওই আড্ডা নাম দিয়েছেন- Tea Party after 8pm at TSC’।

এ বিষয়ে ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক লিটন নন্দী বলেন, ‘কিছুদিন পর পর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন অদ্ভুত আচরণ করছে। হঠাৎ রাত ৮টার মধ্যে টিএসসির কার্যক্রম বন্ধের নোটিশ দিচ্ছে। আবার প্রক্টোরিয়াল বডি হঠাৎ রাত ৮টার মধ্যে টিএসসির চায়ের দোকান বন্ধ করে দিচ্ছে। এটা তো রীতিমত ছাত্রদের স্বাধীনতা ও উন্মুক্ত জ্ঞান আদান-প্রদানের পথকে রুখে দিচ্ছে। আমরা এর প্রতিবাদ জানাই।’

সংবাদটি শেয়ার করুন:


আপনার মন্তব্য দিন