ক্লাসের চেয়ে প্রশ্ন ফাঁসে আগ্রহ ছিল শিক্ষার্থীদের: মাহবুবুর রহমান - এইচএসসি/আলিম - Dainikshiksha

ক্লাসের চেয়ে প্রশ্ন ফাঁসে আগ্রহ ছিল শিক্ষার্থীদের: মাহবুবুর রহমান

আকতারুজ্জামান ও জয়শ্রী ভাদুড়ী |

রাজধানীর সামসুল হক খান স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ ড. মাহবুবুর রহমান মোল্লা বলেছেন, গত এসএসসিতে ১৩টি পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁস হয়েছিল। আমরা যখন ছাত্রদের বলেছি, এইচএসসিতে প্রশ্ন ফাঁস হবে না, পরীক্ষার্থীরা এ কথা শুনে হাসত। কারণ তারা প্রশ্ন ফাঁসের মওকা নিয়ে পরীক্ষার হলে গিয়েছিল। ক্লাসের চেয়ে প্রশ্ন ফাঁসে আগ্রহ ছিল অনেক শিক্ষার্থীর। এইচএসসি পরীক্ষার সময় কোনো প্রশ্ন ফাঁস না হওয়ায় পাসের হার কমে গেছে। গতকাল এসব কথা বলেন তিনি। এইচএসসির ফল বিপর্যয়ের কারণ হিসেবে এ অধ্যক্ষ আরও বলেন, গত কয়েক বছরে প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ায় পরীক্ষার কোনো ভীতি ছিল না পরীক্ষার্থীদের।

কিন্তু হঠাৎ করেই প্রশ্ন ফাঁসের প্রেক্ষাপট পরিবর্তন হয়েছে। সরকারের কঠোর নীতির কারণে কোথাও প্রশ্ন ফাঁস হয়নি। এ ছাড়া এইচএসসির ইংরেজি পরীক্ষা কঠিন হওয়ায় বিজ্ঞান, মানবিক, ব্যবসায় নেতিবাচক ফল এসেছে। বিজ্ঞান বিভাগে পদার্থ দ্বিতীয়পত্রের প্রশ্ন একটু জটিল হওয়ায় ছাত্ররা একটু খারাপ করেছে। ঢাকার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আইসিটি বিষয়ে ছাত্ররা ভালো করলেও গ্রামের ছাত্র-ছাত্রীরা আইসিটিতে ভালো করতে পারেনি। কারণ আইসিটির প্রয়োজনীয় শিক্ষক নেই গ্রামাঞ্চলে। অন্য বিভাগের শিক্ষকরা সেখানে আইসিটি পড়ান। মানবিকের ছাত্ররা গাণিতিক বিভিন্ন টার্মের কারণে বিজ্ঞান বিভাগ ছাড়লেও তাদের আইসিটি পড়তে হয়েছে। এই আইসিটি তাদের কাছে বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ ছাড়া পরীক্ষায় আইসিটির নৈর্ব্যক্তিক পরীক্ষা একটু কঠিন হওয়ায় ফলাফলে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।

 সব মিলিয়ে পরীক্ষার পরিবেশ পরিবর্তন, প্রশ্নপত্র কঠোর আর প্রশ্ন ফাঁস না হওয়ায় ফলাফল নিম্নমুখী হয়েছে।

ড. মাহবুবুর রহমান মোল্লা আরও বলেন, ফাঁস হওয়া প্রশ্ন দেখে কৃত্রিমভাবে পাস আর জিপিএ-৫ পাওয়ার চেয়ে এবারের পাসের হার ও এ প্লাস কম হলেও সন্তুষ্ট আমরা। আমরা চাই এ ধারাবাহিকতা বজায় থাকুক। পরীক্ষার এমন পরিবেশ থাকলে ছাত্র-ছাত্রীরা লেখাপড়ার মধ্যে থাকবে। লেখাপড়ার মান ফিরে আসবে।

 

সৌজন্যে: বাংলাদেশ প্রতিদিন

সব দপ্তর পরিদর্শনে যাবেন শিক্ষামন্ত্রী ও উপমন্ত্রী - dainik shiksha সব দপ্তর পরিদর্শনে যাবেন শিক্ষামন্ত্রী ও উপমন্ত্রী ৩য় দফায় শিক্ষক নিয়োগের কার্যক্রম শুরু - dainik shiksha ৩য় দফায় শিক্ষক নিয়োগের কার্যক্রম শুরু উপবৃত্তি : ডাচ-বাংলার অদক্ষতায় গাইবান্ধায় শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি - dainik shiksha উপবৃত্তি : ডাচ-বাংলার অদক্ষতায় গাইবান্ধায় শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি বৃত্তি কোটা বণ্টনে জেএসসি উত্তীর্ণদের তথ্য চেয়েছে অধিদপ্তর - dainik shiksha বৃত্তি কোটা বণ্টনে জেএসসি উত্তীর্ণদের তথ্য চেয়েছে অধিদপ্তর শিক্ষা ক্যাডারের জামাতীরা ভালো পদে, প্রগতিশীলরা মফস্বলে - dainik shiksha শিক্ষা ক্যাডারের জামাতীরা ভালো পদে, প্রগতিশীলরা মফস্বলে প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৫ মার্চ শুরু - dainik shiksha প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৫ মার্চ শুরু অধ্যক্ষ নেই সদ্য সরকারি ৯৫ কলেজে, কার্যক্রম ব্যহত - dainik shiksha অধ্যক্ষ নেই সদ্য সরকারি ৯৫ কলেজে, কার্যক্রম ব্যহত জালিয়াতি করে এমপিও ছাড়ের চেষ্টা: পাঁচ দুর্নীতিবাজ কর্মচারী চিহ্নিত - dainik shiksha জালিয়াতি করে এমপিও ছাড়ের চেষ্টা: পাঁচ দুর্নীতিবাজ কর্মচারী চিহ্নিত ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া শিক্ষার খবর সবার আগে পেতে ‘দৈনিক শিক্ষা ব্রেকিং নিউজ’ ফেসবুক পেজে লাইক দিন - dainik shiksha শিক্ষার খবর সবার আগে পেতে ‘দৈনিক শিক্ষা ব্রেকিং নিউজ’ ফেসবুক পেজে লাইক দিন please click here to view dainikshiksha website