please click here to view dainikshiksha website

ক্লাস বন্ধ করে স্কুলে গ্রন্থাগারিকের গায়ে হলুদ!

নিজস্ব প্রতিবেদক | আগস্ট ১১, ২০১৭ - ১১:৩৮ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

ক্লাস বন্ধ করে বিদ্যালয়েই গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান করলেন একজন সহকারি গ্রন্থাগারিক। বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার মহিশালবাড়ী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি সহজভাবে নেননি অভিভাবক মহল। এনিয়ে এলাকায় সমালোচনা চলছে। তবে তাতে কান দেননি বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার বিকেলে বিদ্যালয়টির সহকারী শিক্ষক মিজানুর রহমান তার ফেসবুকে গায়ে হলুদের তিনটি ছবি শেয়ার করেন। ছবিগুলো জুড়ে দেন প্রধান শিক্ষক হায়দার আলীর ফেসবুকেও।

ছবির বর্ণনায় ওই শিক্ষক লেখেন, ‘মহিশালবাড়ী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী গ্রন্থাগারিক মো. ইব্রাহিমের আগামীকাল শুভ বিবাহ আল্লাহর অশেষ রহমতে সুসম্পন্ন হইবে। সে লক্ষে আজ অত্র বিদ্যালয়ে গায়ে হলুদের আয়োজন করা হয়।’

এ ছবি প্রকাশ হওয়ার পর পরই ভাইরাল হয়ে যায়। পড়তে থাকে বিরূপ মন্তব্য। প্রকাশিত ছবিগুলোতে দেখা গেছে, বিদ্যালয়ের মাঠে গায়ে হলুদের আয়োজন করা হয়েছে। এর একটি ছবিতে সহকারী গ্রন্থাগারিক মো. ইব্রাহিমের মুখে গামছা ধরে আছেন সহকারী শিক্ষক আশরাফুল হক। পাশে বসে রয়েছেন প্রধান শিক্ষক হায়দার আলী। আশপাশে ঘিরে দাঁড়িয়ে শিক্ষার্থীরা। সেখানে অন্য শিক্ষকরাও ছিলেন। সবার মুখে হাসি।

ওই অনুষ্ঠানে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা মো. ইব্রাহিমকে একে একে মিষ্টিমুখ করান। বিদ্যালয় ভবনের ছাদে দাঁড়িয়ে শিক্ষার্থীদের এ আয়োজন উপভোগ করতে দেখা গেছে।

বিদ্যালয়ে এমন অনুষ্ঠান আয়োজন বিষয়ে জানতে চাইলে প্রধান শিক্ষক হায়দার আলী বলেন, দির্ঘদিন ধরেই সহকারী গ্রন্থাগারিকের বিয়ে হচ্ছিলো না। তার বিয়ের এমন খবরে শিক্ষার্থীরা খুশি হয়ে এ আয়োজন করেছে। বিদ্যালয়ের টিফিন চলাকালীন পাঁচ মিনিটের মধ্যেই ওই অনুষ্ঠান শেষ করা হয়েছে। সমালোচনার বিষয়টি স্বীকার করেন প্রধান শিক্ষক।

এনিয়ে কয়েক দফা যোগাযোগ করেও মুঠোফোনে সংযোগ পাওয়া যায়নি উপজেলা শিক্ষা অফিসার সামশুল কবিরের।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


পাঠকের মন্তব্যঃ ৩৫টি

  1. হুমায়ুন কবীর নাগরপুর টাংগাইল says:

    ধন্যবাদ

  2. মো,ফারুকুল ইসলাম says:

    ধন্যবাদ

  3. মুহা.সাইফুল্লহ বিন জাকারিয়া.পিরোজপুর, মঠবাড়ীয়া. মুঠোফোন-01719-482639 says:

    মনে সুখ থাকলে অনেক কিছু করা যায়, এটাকেই বলে ডিজিটাল বিয়ে, আমরাও (আইসিটি /কম্পিউটার)শিক্ষকগন এভাবে বিয়ে করতে পারতাম কিন্তুু ,কিন্তুু আমাদের মনে সুখ নেই. 4/5 বছর ধরে বিনা বেতনে চাকুরী করতে করতে আর বিয়ের কথা মনে পরেনা, সরকার যদি কম্পিউটার /আইসিটি শিক্ষকদের এমপিওভুক্ত করে আমাদের বিয়ে করার সুযোগ দেয়, তাহলে এভাবে আনন্দ করে বিয়ে করা যায়,এমপিওনাই কি করুম আঞ্চলিক ভাষায় বলতেই হয়.”কিছু করার নাই স্বামী বিদেশ”

  4. আব্দুল হান্নান says:

    এটা শিষ্টাচার বহির্বিত।

  5. শৈবাল পাল দিপু , তারাইল says:

    ভাল কাজের যদি সমালোচনা করেন , তাহলে মন্দ কাজ হবে নাই বা কেন , ভাল কাজের প্রশংশা করুন

  6. Md.Hasan Ali says:

    গ্রন্থাগারিক বলে কথা,,,,

  7. Tuhin reza says:

    এতে সমস্যা কোথায় আমি কিছু বুঝলাম না

  8. Md. Mustafizur Rahman says:

    এখন কি আর আগের যুগ আছে? বর্তমানে ডিজিটাল যুগ তাই যাহা ি কিছু করেন হিসাব কিতাব করেই করতে হবে।

  9. মোঃ হাফিজুর রহমান says:

    অশেষ ধন্যবাদ, সকল শিক্ষককে।

  10. MD.SHAHIDUL ISLAM,Senior Teacher,Chapadaha B.L. High School, GAIBANDHA. says:

    ঙ্কুলে গায়ে হলুদ!

  11. A.F.M.MOKHLESUR RAHMAN says:

    তারপরও তো কপালে বিয়ে জুটল।

  12. পরমানন্দ ঢালী says:

    মনে হয় ঐ প্রতিষ্ঠানের কোনো ছাত্রীকে ভালো বেসেছিলেন ঐ শিক্ষক। কিন্তু তাকে বিয়ে করতে না পেরে অন্যত্র বিয়ে করে তার পুরুষত্বের পূরবাভাষ দেখাচ্ছেন। য-ত স-ব ………..

  13. সজিব says:

    বানচোদ হাসান। নিজের চরকায় তেল দে।

  14. সজিব says:

    হাসান সাহেব আপনার চেয়ে ইব্রাহিম সাহেব কি কম চুলকাতো পারে?

  15. Mowdud Ahmed says:

    librarian বলে এরকম করল।

  16. Md . Nazmul Huda says:

    আপনারা আনন্দঘন একটি মুহূর্তকে এভাবে নেন কেন ?

  17. Gobinda das/shreeramkathi U J K high school says:

    জয় হোক গ্রন্থগারিকলীগের।

  18. মোঃ সাজ্জাদুর রহমান,লক্ষীপুর স্কুল ও কলেজ says:

    নব দম্পতির প্রতি রইল শুভ কামনা।

  19. Md.Shaidur Rahman says:

    এটা কোন রিপোর্ট হল,এর চেয়ে গুরুত্ব পূর্ন রিপোর্ট করলে ভাল হত।

  20. মুসফিকুর রহমান says:

    শিক্ষার সাথে জড়িত ব্যাক্তিদের বোদশক্তি কি দিন দিন লোপ পাচ্ছ ?

  21. Ehasnul says:

    শিক্ষকের বিয়ে তাই এত সমালোচনা! আজ নেতার বিয়ে হলে সবাই খুশি। প্রধান শিক্ষককে ধন্যবাদ।

  22. রবিউল ইসলাম says:

    খুব ভালোই লাগলো।আমাদের গ্রন্থগারিক দেলোয়ার ভাইর ও বিয়ে হচ্ছে না।

  23. Reza SHS says:

    Staff’s celebration! That was not so bad.

  24. মোঃআসাদুজ্জামান সরকার। says:

    কাজটি ঠিক হয়নি।

  25. পবিত্র কুমার রায় সহকারী শিক্ষক(গণিত) বেতুড়া দ্বি-মূখী উচ্চ বিদ্যালয় says:

    সরকারিকরণের মাধ্যমে সমাধান সম্ভব

  26. Dipankar Biswas says:

    Barsha kaler buyer chayte shitkaler biya valo.

  27. নয়ন চন্দ্র দেবনাথ,সুরইঘাট উচ্চ বিদ্যালয়,কানাইঘাট,সিলেট। says:

    এই ধরনের অনুষ্ঠানে মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীকে নিমন্ত্রণ করা উচিত ছিল।
    কারন এটি শিক্ষা পরিবারের অনুষ্ঠান।
    তাই তো সে স্কুল বন্ধ করে গায়ে হলুদের অায়োজন করেছে।
    উনার দাম্পত্য জীবন সুখী হোক।

    শুভ কামনা।

  28. আব্দুল হান্নান মিয়া, সিনিয়র সহকারী শিক্ষক, বন্দর, নারায়ণগন্জ। says:

    ব্যক্তিগত অনুষ্ঠান বিদ্যালয়ে করা নজিরবিহীন।এমন হতে থাকলে সারা দেশের বিদ্যালয়গুলো কমিওনিটি সেন্টারে পরিনত হবে!

  29. গোলাম রসুল নাংগলকোট ডিগ্রি কলেজ says:

    এইটা তো ১০০% বেয়াদপি। বেয়াদপ আর কাকে বলে।

  30. MD.Zamal uddin says:

    শিক্ষার্থীদের এমন একটা আনন্দে অংশগ্রহণ করার সুযোগ দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ অত্র প্রতিষ্ঠানের প্রধানকে । এটা খারাপ কিছু,,,, আমার মনে হয়না । শিক্ষাকে প্রানবন্ত করতে শিক্ষার্থীদের এ রকম অনেক আবদারকে মূল্যায়ন করতে হয় ।

  31. রোজি আক্তার says:

    ঙ্কুলে গায়ে হলুদ! এতো মজার ব্যাপার।

  32. Md. Shahjalal says:

    Dear all negative commenter stop your negative comment.
    Why simply topics to create big topics.One hour not much time in student life that when a student long time abuse on facebook and others social site then responsible parson where ?

    So please stop stop negative view. More than topics have in our area to damage our society as like hiroin, Gaja, Fensidil, ect.Please deeply think how to stop smuggler then develop society.Really we are mad simply topics to create big topics.

আপনার মন্তব্য দিন