চলতি দায়িত্বে থাকা প্রধান শিক্ষকদের পদোন্নতি শিগগিরই - স্কুল - Dainikshiksha

চলতি দায়িত্বে থাকা প্রধান শিক্ষকদের পদোন্নতি শিগগিরই

ঢাবি প্রতিনিধি |

গ্রেটেশন লিস্ট অনুযায়ী যে সব সহকারী শিক্ষককে প্রধান শিক্ষক হিসেবে চলতি দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে তাদের দ্রুত প্রধান শিক্ষক হিসেবে পদোন্নতি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান।

মন্ত্রী শনিবার (১৩ অক্টোবার) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক মিলনায়তনে (টিএসসি) সহকারী শিক্ষক থেকে প্রধান শিক্ষক পদে চলতি দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকদের দেওয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।
 
গণশিক্ষামন্ত্রী বলেন, চট্টগ্রাম ও বান্দরবান ছাড়া ইতোমধ্যে সারাদেশে ১৭ হাজার সহকারী শিক্ষককে প্রধান শিক্ষক হিসেবে চলতি দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। চট্টগ্রাম ও বান্দরবান জেলায় ৫শ শিক্ষককে শিগগিরই প্রধান শিক্ষককের চলতি দায়িত্ব দেওয়া হবে।

প্রধান শিক্ষকের স্বল্পতার কারণে নেতৃত্বহীনভাবে দীর্ঘদিন যাবত বিদ্যালয়গুলো পরিচালিত হয়ে আসছিল উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, এতে লেখাপড়ায় বিঘ্ন হচ্ছিল। প্রধান শিক্ষকদের পদ দিতীয় শ্রেণিতে উন্নীত হওয়ায় ও নিয়োগবিধি না থাকায় সহকারী শিক্ষকদের পদোন্নতি দেওয়া যাচ্ছিল না। সার্বিক বিষয় বিবেচনা করে গ্রেটেশন লিস্ট অনুযায়ী সহকারী শিক্ষকদের চলতি দায়িত্বে প্রধান শিক্ষক হিসেবে পদায়ন করা হয়।

মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বলেন, মন্ত্রিসভায় নিয়োগবিধি অনুমোদিত হয়েছে। এক-দু’মাসের মধ্যে চলতি দায়িত্বে প্রধান শিক্ষকদের প্রধান শিক্ষক হিসেবে পদায়ন করা হবে।

 
মন্ত্রী শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে বলেন, সরকার ঘোষণা করেছে দেশকে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালে উন্নত বিশ্বের সারিতে উপনীত করবে। এ স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে হলে আজকের শিশুকে মানসম্মত শিক্ষা দিয়ে উপযুক্ত করে গড়ে তুলতে হবে।

বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পদক ও পদোন্নতি বাস্তবায়ন পরিষদের আহ্বায়ক মো. আব্দুল হকের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির হিসেবে বক্তৃব্য রাখেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. আবু হেনা মোস্তাফা কামাল।

 
বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. আতিকুর রহমান আতিক ও সাধারণ সম্পাদক মো. আবুল কাসেম বক্তব্য রাখেন।

‘শিক্ষকদের অবসর-কল্যাণ সুবিধার তহবিল বন্ধ করে পেনশন চালু করতে হবে’ - dainik shiksha ‘শিক্ষকদের অবসর-কল্যাণ সুবিধার তহবিল বন্ধ করে পেনশন চালু করতে হবে’ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রথম ধাপের পরীক্ষা ১০ মে - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রথম ধাপের পরীক্ষা ১০ মে এসএসসির ফল ৫ বা ৬ মে - dainik shiksha এসএসসির ফল ৫ বা ৬ মে চাঁদা বৃদ্ধির পরও ২১৬ কোটি টাকা বার্ষিক ঘাটতি : শরীফ সাদী - dainik shiksha চাঁদা বৃদ্ধির পরও ২১৬ কোটি টাকা বার্ষিক ঘাটতি : শরীফ সাদী একাদশে ভর্তির নীতিমালা জারি, আবেদন শুরু ১২ মে - dainik shiksha একাদশে ভর্তির নীতিমালা জারি, আবেদন শুরু ১২ মে সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি - dainik shiksha সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website