চাঁদ দেখতে অত্যাধুনিক যন্ত্র কেনা হচ্ছে - বিবিধ - Dainikshiksha

চাঁদ দেখতে অত্যাধুনিক যন্ত্র কেনা হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক |

অবশেষে চাঁদ দেখা নিয়ে জটিলতা এড়াতে উন্নত প্রযুক্তি অবলম্বনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ জন্য অত্যাধুনিক যন্ত্র কেনার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। থিওডোলাইট জাতীয় এসব যন্ত্রের প্রতিটির দাম পড়বে প্রায় ৫০ লাখ টাকা। গতকাল সোমবার জাতীয় সংসদ ভবনে ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। এবার ঈদুল ফিতরের আগে শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা নিয়ে জটিলতার বিষয়ে বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। 

কমিটির সভাপতি রুহুল আমীন মাদানীর সভাপতিত্বে গতকালের বৈঠকে অংশ নেন সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমন, মনোরঞ্জন শীল গোপাল, মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী, ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লাহ, এইচএম ইব্রাহিম, তাহমিনা বেগম ও রত্না আহমেদ। ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন না। তার পক্ষে কমিটির বিভিন্ন প্রশ্নের ব্যাখ্যা দেন মন্ত্রণালয়ের সচিব আনিছুর রহমান। যন্ত্র কেনার সিদ্ধান্তের কথা তিনিই কমিটিকে অবহিত করেন।

বৈঠক সূত্র জানায়, কমিটির একাধিক সদস্য এবারের ঈদুল ফিতরের চাঁদ দেখা নিয়ে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে মন্ত্রণালয়ের কৈফিয়ত চান। ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর অনুপস্থিতিতে সচিব আনিছুর রহমান কমিটিকে জানান, এবার ঈদ চাঁদবিষয়ক সিদ্ধান্ত ঘোষণার আগে ৪০-৪৫ জন আলেমের পরামর্শ নেওয়া হয়েছে। প্রথম ঘোষণার আগে কোথাও চাঁদ দেখার খবর মেলেনি। আলেম-ওলামারা তখন মত দেন, সৌদি আরবে চাঁদ দেখার সঙ্গে এ দেশের ঈদের সম্পর্ক নেই। দেশে চাঁদ দেখা সাপেক্ষে ঈদ করতে হবে। এ কারণে প্রথম ঘোষণাটি দেওয়া হয়েছিল। পরে ধর্মীয় বিধান অনুযায়ী বিশ্বাসযোগ্য ব্যক্তি চাঁদ দেখতে পেয়েছেন। এ কারণে পরের দিন ঈদ উদযাপনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। আলোচনার এক পর্যায়ে সচিব জানান, চাঁদ দেখার জন্য থিওডোলাইট জাতীয় যন্ত্র কেনা হবে। প্রতিটির দাম পড়বে ৫০ লাখ টাকার মতো।

বৈঠক শেষে রুহুল আমীন মাদানী সাংবাদিকদের বলেন, চাঁদ দেখার জন্য টেলিস্কোপ থাকলেও তা আধুনিক নয়। চাঁদ দেখা নিয়ে বিতর্ক এড়াতে মন্ত্রণালয়কে সতর্ক থাকার পাশাপাশি ভবিষ্যতে এ ধরনের পরিস্থিতি এড়াতে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এ জন্য উন্নত প্রযুক্তির টেলিস্কোপ ব্যবহারের প্রস্তাব দিয়েছে কমিটি। মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তারা আধুনিক যন্ত্র কিনবে। 

রুহুল আমীন মাদানী আরও জানান, আসন্ন হজ নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। সুষ্ঠুভাবে কার্যক্রম সম্পন্ন করার সুপারিশ করা হয়েছে। এবার ইমিগ্রেশন হবে ঢাকায়। বিমানের ফ্লাইট নিয়েও সমস্যা হবে না বলে আশা করা হচ্ছে। 

চলতি দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকদের ভাতা দেয়ার আদেশ জারি - dainik shiksha চলতি দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকদের ভাতা দেয়ার আদেশ জারি এইচএসসির ফল প্রকাশ হতে পারে ২১ জুলাই - dainik shiksha এইচএসসির ফল প্রকাশ হতে পারে ২১ জুলাই বরিশাল বোর্ডে কর্মচারীদের দুই গ্রুপের হাতাহাতি - dainik shiksha বরিশাল বোর্ডে কর্মচারীদের দুই গ্রুপের হাতাহাতি রায় অমান্য করে মাছুমকে টাইমস্কেল: বরিশাল বোর্ড কর্মচারীদের বিক্ষোভ - dainik shiksha রায় অমান্য করে মাছুমকে টাইমস্কেল: বরিশাল বোর্ড কর্মচারীদের বিক্ষোভ ৩০ জুলাইয়ের মধ্যে তুলতে হবে উচ্চ মাধ্যমিকের উপবৃত্তি - dainik shiksha ৩০ জুলাইয়ের মধ্যে তুলতে হবে উচ্চ মাধ্যমিকের উপবৃত্তি প্রকল্পের ৬৩ কর্মচারীকে রাজস্বখাতে পদায়ন - dainik shiksha প্রকল্পের ৬৩ কর্মচারীকে রাজস্বখাতে পদায়ন শিক্ষকের বেতের আঘাতে চোখ হারাল মাদরাসাছাত্র - dainik shiksha শিক্ষকের বেতের আঘাতে চোখ হারাল মাদরাসাছাত্র জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স ভর্তির যোগ্যতা নির্ধারণ - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স ভর্তির যোগ্যতা নির্ধারণ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website