চাকরির মেয়াদ ৫ বছর পূর্ণ হলেই গৃহঋণ - কলেজ - Dainikshiksha

চাকরির মেয়াদ ৫ বছর পূর্ণ হলেই গৃহঋণ

নিজস্ব প্রতিবেদক |

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের অধীনস্ত অধিদপ্তর, দপ্তর, ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং সরকারি শিক্ষকরা গৃহঋণ, গৃহ মেরামত, কম্পিউটার, মোটরগাড়ি ও মোটর সাইকেল বাবদ ঋণ ও অগ্রিম টাকা গ্রহণ করতে পারবেন। তবে এজন্য তাদের চাকরির মেয়াদ ৫ বছর পূর্ণ হতে হবে। আর চলতি ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে এধরনের ঋণ পেতে ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যে আবেদন পাঠানো নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সেবা শাখায় স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের প্রধানের সুপারিশসহ আবেদন সরাসরি পাঠাতে বলা হয়েছে এসব সরকারি কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষকদের। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত চিঠি ইতিমধ্যে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে পাঠানো হয়েছে বলে দৈনিক শিক্ষাকে জানিয়েছে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা। সোমবার (৪ ডিসেম্বর) অধিদপ্তর থেকে চিঠিটি জেলা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে পাঠানো হয়েছে বলে দৈনিক শিক্ষাকে জানিয়েছে অধিদপ্তর সূত্র।

চিঠিতে বলা হয়, চলতি ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের অধীনস্ত অধিদপ্তর, দপ্তর, ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত কর্মকর্তা কর্মচারীদের গৃহঋণ, গৃহ মেরামত, কম্পিউটার, মোটরগাড়ি ও মোটর সাইকেল বাবদ ঋণ ও অগ্রিম বাবদ বরাদ্দকৃত টাকা থেকে ঋণ ও অগ্রিম টাকা প্রদানে আগামী ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যে আবেদন করতে হবে। ৩০ ডিসেম্বর অফিস সময়ের মধ্যে স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের প্রধানের সুপারিশ ও নামযুক্ত সীলসহ ফরোয়ার্ডিং সেন্টারের মাধ্যমে মন্ত্রণালয়ের সেবা শাখায় পাঠাতে হবে। 

এছাড়া উন্নয়ন প্রকল্পের কোন কর্মকর্তা-কর্মচারী অগ্রিম ঋণের আবেদন করতে পারবেন না বলেও দৈনিক শিক্ষাকে জানিয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের একাধিক কর্মকর্তা। অগ্রিম ঋণ পেতে সরকারি চাকরির মেয়াদ ৫ বছর পূর্ণ হতে হবে। সুদসহ গৃহ-নির্মাণ অগ্রিম আদায় না হওয়া পর্যন্ত গৃহ-মেরামত অগ্রিম প্রদান করা হবে না বলেও বলা হয়েছে। 

মূল বেতন ৬ হাজার টাকা হলে মোটর গাড়ির অগ্রিম ঋণ গ্রহণের জন্য আবেদন করতে পারবেন বলেও জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। গৃহ নির্মাণ, মোটর গাড়ি, মোটর সাইকেলের অগ্রিম গ্রহণে ৩০০ টাকার নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে বায়নাপত্র প্রদান করতে হবে। আবেদকারীর বয়স প্রমাণের জন্য ১ম ও ২য় শ্রেণির কর্মকর্তাদের এসএসসির সনদপত্র এবং ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারীদের সার্ভিস বইয়ের ৩য় ও ৪র্থ পাতা এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র কর্মকর্তার নামযুক্ত সীলসহ সত্যায়িত কপি পাঠাতে হবে। এছাড়া প্রত্যয়নপত্রে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের স্মারক নম্বর ও তারিখ অবশ্যই উল্লেখ করতে হবে।  

জারির অপেক্ষায় অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ নিয়োগ যোগ্যতার সংশোধনী - dainik shiksha জারির অপেক্ষায় অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ নিয়োগ যোগ্যতার সংশোধনী প্রাথমিকে সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ড প্রার্থীদের ২০ শতাংশ কোটা - dainik shiksha প্রাথমিকে সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ড প্রার্থীদের ২০ শতাংশ কোটা ১৮২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিও বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু - dainik shiksha ১৮২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিও বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার অপেক্ষায় চাকরিতে প্রবেশের বয়স: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার অপেক্ষায় চাকরিতে প্রবেশের বয়স: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী আরও ৯২ প্রতিষ্ঠানের তথ্য চেয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় - dainik shiksha আরও ৯২ প্রতিষ্ঠানের তথ্য চেয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় শিক্ষকতা ছেড়ে উপজেলা নির্বাচনে শিক্ষক - dainik shiksha শিক্ষকতা ছেড়ে উপজেলা নির্বাচনে শিক্ষক প্রতিষ্ঠান প্রধান ও সুপারিশপ্রাপ্তদের করণীয় - dainik shiksha প্রতিষ্ঠান প্রধান ও সুপারিশপ্রাপ্তদের করণীয় প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৫ মার্চ - dainik shiksha প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৫ মার্চ ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website