ছাত্রকে যৌন নির্যাতন, নারী অধ্যক্ষ বরখাস্ত - ভারতের শিক্ষা - Dainikshiksha

ছাত্রকে যৌন নির্যাতন, নারী অধ্যক্ষ বরখাস্ত

দৈনিক শিক্ষা ডেস্ক |

দ্বাদশ শ্রেণির এক ছাত্রকে যৌন নির্যাতনের পর শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনে চাপ দেওয়ার অভিযোগে তার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের পাতিয়ালার জেলার মরদানপুরে একটি সরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সম্প্রতি এ ঘটনা ঘটেছে। ভারতীয় দৈনিক হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, নির্যাতনের শিকার ১৭ বছরের ওই কিশোর দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী। ৫২ বছর বয়সী নারী অধ্যক্ষ তাকে প্রায়ই যৌন নির্যাতন করতেন। এমনকি তাঁর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করতে চাপ দিতেন। এ ঘটনা প্রকাশ পাওয়ায় অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে ওঠেন অভিভাবকেরা। পরে এ ঘটনার তদন্ত শুরু হয়। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পরেই অধ্যক্ষকে সাময়িক বরখাস্তের নির্দেশ দেন পাঞ্জাব শিক্ষা অধিদপ্তরের শিক্ষাসচিব কৃষাণ কুমার।

প্রতিবেদনে বলা হয়, অধ্যক্ষ ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিত। তাঁর বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানির ঘটনার তদন্ত করেন শিক্ষা বিভাগের কর্মকর্তা নিশি জালোটা।

যৌন নির্যাতনের শিকার ওই ছাত্রের অভিযোগ, ক্লাস চলাকালীন তাকে ডেকে নিজের কক্ষে পাশে বসাতেন অধ্যক্ষ। এ ছাড়া প্রায় সময় অধ্যক্ষ তাঁর পাতিয়ালার বাসায় নিয়ে যেতেন ওই ছাত্রকে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সম্প্রতি অধ্যক্ষের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ওই ছাত্রের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন তিনি। ওই ছাত্র বিষয়টি অভিভাবককে জানায়। পরে অভিভাবক ও গ্রামবাসী এ ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভ করে অধ্যক্ষের শাস্তি দাবি করেন।

ঘটনার তদন্তকারী কর্মকর্তা নিশি জালোটা বলেন, নির্যাতনের শিকার ছাত্র, তার অভিভাবক, স্কুলের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও সাবেক শিক্ষার্থীদের জবানবন্দি রেকর্ড করে রাখা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে ওই নারী অধ্যক্ষ দোষী বলে প্রমাণিত হয়েছেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের যৌন নির্যাতনের অভিযোগ এটাই প্রথম নয়। গত বছর দ্বাদশ শ্রেণির আরেক ছাত্র তাঁর বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ তুলেছিল। সে সময় শিক্ষামন্ত্রী দলজিৎ সিং চিমার কাছে এ অভিযোগ পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু তখন অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি।

জেডিসি ও ইবতেদায়ি জন্মসনদ অনুযায়ী রেজিস্ট্রেশন বাধ্যতামূলক - dainik shiksha জেডিসি ও ইবতেদায়ি জন্মসনদ অনুযায়ী রেজিস্ট্রেশন বাধ্যতামূলক অর্থাভাবে দুই বোনের লেখাপড়া বন্ধ হওয়ার উপক্রম - dainik shiksha অর্থাভাবে দুই বোনের লেখাপড়া বন্ধ হওয়ার উপক্রম অবসর সুবিধার আবেদন শুধুই অনলাইনে, দালাল ধরবেন না(ভিডিও) - dainik shiksha অবসর সুবিধার আবেদন শুধুই অনলাইনে, দালাল ধরবেন না(ভিডিও) দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website