ছাত্রীকে উত্ত্যক্তের দায়ে যুবকের কারাদণ্ড - বিবিধ - Dainikshiksha

ছাত্রীকে উত্ত্যক্তের দায়ে যুবকের কারাদণ্ড

জয়পুরহাট প্রতিনিধি |

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর সরকারি মুজিবর রহমান কলেজের এক ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করার ঘটনায় ওমর ফারুক (২৮) নামে এক যুবককে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। বুধবার উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সালাহউদ্দিন আহমেদ তাঁকে ওই দণ্ডাদেশ দেন।

ওমর ফারুকের বাড়ি আক্কেলপুর উপজেলার তেমারিয়া গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের আফজাল হোসেনের ছেলে। 

থানা পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, ওই ছাত্রীর বাড়ি একই উপজেলার সোনামুখী ইউনিয়নের একটি গ্রামে। ওমর ফারুক প্রায় তিন বছর ধরে তাঁকে উত্ত্যক্ত করে আসছিলেন। বুধবার ওই ছাত্রী কলেজে পাঠদান করতে আসেন। কলেজ ছুটির পর বাড়ি যাওয়ার জন্য বের হলে ওমর ফারুক তাঁকে উত্ত্যক্ত করছিল। একপর্যায়ে ওই ছাত্রী আক্কেলপুর কলেজ বাজারের মার্কেটের একটি কাপড়ের দোকানে এসে দোকানের মালিককে বিষয়টি খুলে বলেন। ওই সময় ওমর ফারুক মেয়েটির পিছু নিয়ে ওই দোকানের কাছে আসে।

এ সময় জয়নাল নামে এক কাপড়ের দোকানি তাকে চড়থাপ্পর মেরে ওই ছাত্রীর পিছু নিতে নিষেধ করে। এতে ওমর ফারুক দোকান মালিক জয়নালের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে মারপিট করতে থাকে। এ সময় আশপাশের দোকানে থাকা লোকজনেরা এসে ওই উত্ত্যক্তকারীকে ধরে পুলিশে সোপর্দ করেন। পরে পুলিশ ওমর ফারুককে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের হাকিম ইউএনও সালাহউদ্দিন আহমেদ তাঁকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন। 

বুধবার বিকেল ৫টায় থানায় ডিউটি কর্মকর্তার কক্ষে বসে থাকতে দেখা গেছে। এ সময় ওমর ফারুক দাবি করেন, প্রায় তিন বছর ধরে ছাত্রীর সঙ্গে তাঁর প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। তিনি ছাত্রীর সঙ্গে দেখা করতে এসে ফেঁসে গেছেন। 

আক্কেলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কিরণ কুমার রায় বলেন, ছাত্রীকে উত্যক্তের ঘটনায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ওমর ফারুককে ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন। সাজা ভোগের জন্য তাঁকে করাগারে পাঠানো হবে।

একাদশে ভর্তি: ২য় দফার আবেদন শুরু - dainik shiksha একাদশে ভর্তি: ২য় দফার আবেদন শুরু বিসিএসেও তৃতীয় পরীক্ষক চালু - dainik shiksha বিসিএসেও তৃতীয় পরীক্ষক চালু ডিগ্রি ২য় বর্ষ পরীক্ষার ফরম পূরণের সময় বাড়লো - dainik shiksha ডিগ্রি ২য় বর্ষ পরীক্ষার ফরম পূরণের সময় বাড়লো জিপিএ-৫ বিলুপ্তির পর যেভাবে হবে নতুন গ্রেড বিন্যাস - dainik shiksha জিপিএ-৫ বিলুপ্তির পর যেভাবে হবে নতুন গ্রেড বিন্যাস পাবলিক পরীক্ষার গ্রেড: যা আছে আর যা হবে - dainik shiksha পাবলিক পরীক্ষার গ্রেড: যা আছে আর যা হবে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় কঠোর নজরদারির নির্দেশ গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় কঠোর নজরদারির নির্দেশ গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর শিক্ষক নিবন্ধন: ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিষয়ের নতুন সিলেবাস দেখুন - dainik shiksha শিক্ষক নিবন্ধন: ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিষয়ের নতুন সিলেবাস দেখুন সার্টিফিকেট ছাপার আগেই ২ কোটি টাকা তুলে নিলেন ছায়েফ উল্যাহ - dainik shiksha সার্টিফিকেট ছাপার আগেই ২ কোটি টাকা তুলে নিলেন ছায়েফ উল্যাহ রাজধানীর সকল ফার্মেসি থেকে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ এক মাসের মধ্যে সরিয়ে নিতে হবে: হাইকোর্ট - dainik shiksha রাজধানীর সকল ফার্মেসি থেকে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ এক মাসের মধ্যে সরিয়ে নিতে হবে: হাইকোর্ট জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া  - dainik shiksha please click here to view dainikshiksha website