ছাত্রীদের গা ঘেঁষে কোচিংয়ের লিফলেট বিতরণ, ক্ষুব্ধ অভিভাবকরা - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা

ছাত্রীদের গা ঘেঁষে কোচিংয়ের লিফলেট বিতরণ, ক্ষুব্ধ অভিভাবকরা

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

‘স্কুল গেট অবরোধ করে লিফলেট হাতে দাঁড়িয়ে আছে উঠতি বয়সের ৫/৬ ছেলে। তাদের গা ঘেঁষেই স্কুল থেকে মেয়েদের বের হতে হচ্ছে। সরতে বললেও ছেলেদের কেউ সরছে না। বালিকা স্কুলের গেটের সামনে ছেলেদের কর্মকাণ্ড নিয়ে ক্ষুব্ধ অভিভাবকরা। চট্টগ্রামের অপর্ণাচরণ সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় অভিভাবক কামরুন নাহার অভিযোগ করে বলেন, প্রতিদিন স্কুল ছুটির সময় বিভিন্ন কোচিং সেন্টার থেকে আসা ছেলেরা লিফলেট নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে। তাদের কারণে মেয়েরা স্কুল থেকে বের হতে পারে না। এমনকি সেসব ছেলেদের মধ্যে অনেকেই মেয়েদের গায়েও হাত দেয় বলে অভিযোগ করেন তিনি। মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) দৈনিক পূর্বকোণ পত্রিকায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনে আরও জানা যায়, গতকাল নন্দনকানন এলাকার অপর্ণাচরণ সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে সরেজমিনে দেখা যায়, সায়েন্স কেয়ার, উদ্ভাস, বি.টি কোচিং, চর্যাপদ, অমিত’স ইংলিশ কেয়ারসহ বিভিন্ন কোচিং থেকে লিফলেট নিয়ে আসা ছেলেরা গেটের সামনে দাঁড়িয়ে আছে। তারা স্কুলের সামনে এমনভাবে দাঁড়িয়ে আছে, কোনো শিক্ষার্থী বের হওয়ার জন্য পর্যাপ্ত জায়গা অবশিষ্ট নেই। মেয়েদের স্কুল থেকে বের হতে হলে, দাঁড়িয়ে থাকা সেসব ছেলেদের গা ঘেঁষে বা ঠেলাঠেলি করে বের হতে হবে।

স্কুল ছুটির সময় শিক্ষার্থীদের একাধিক অভিভাবকের সাথে কথা হলে তারা জানান, মেয়েরা স্কুল থেকে বের হওয়ার সময় বিভিন্ন কোচিং সেন্টার থেকে আসা ছেলেরা লিফলেট নিয়ে ঠিক স্কুল গেটের সামনে দাঁড়িয়ে থাকে। মেয়েদের গায়ে হাত দেয়ার মতো অবস্থা। সবাই উঠতি বয়সের ছেলে। তাই হয়তো কেউ কিছু বলছে না ভয়ে। কিছু বললেই আবার কি অঘটন ঘটিয়ে বসে। কিন্তু স্কুল কর্তৃপক্ষের এসবের ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়া উচিত। মেয়েদের নিরাপত্তার বিষয় আছে। স্কুল কর্তৃপক্ষকে এসব দেখতে হবে।

এ সম্পর্কে জানতে চাইলে অপর্ণাচরণ সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষ জারেকা বেগম জানান, মেয়েরা স্কুলে প্রবেশ ও বের হওয়ার সময় হলে বিভিন্ন কোচিং সেন্টার থেকে কিছু ছেলেকে লিফলেট নিয়ে পাঠানো হয়।

ব্যাপারটা আমার নিজের কাজেও বিরক্তিকর মনে হয়। অনেক সময় ভ্যানগুলো রাস্তা বা ফুটপাত দখল করলে আমরা কোতোয়ালী থানার সাহায্য নিয়ে তাদের সরিয়ে দিই। যারা লিফলেট নিয়ে আসে আমরা তাদের বলেছি, একটু দূরে দাঁড়ানোর জন্য। কিন্তু একেকদিন একেক কোচিং বা প্রতিষ্ঠান থেকে ছেলেরা আসে, তাই বললেও কাজ হয় না। তিনি আরও বলেন, আমাদের দারোয়ানকে নির্দেশ দেয়া আছে বাইরের কেউ যাতে স্কুল গেটের সামনে না দাঁড়ায়। এরপরও কেউ কেউ দারোয়ানকে ভয়ভীতি দেখিয়ে এসব কার্যক্রম করে। পরবর্তী সময়ে আমরা দারোয়ানকে আরও কঠোর হতে বলবো। প্রয়োজনে এ ব্যাপারে আমরা কোতোয়ালী থানা পুলিশের সাহায্য নিব।

মাদরাসা শিক্ষকদের জুন মাসের এমপিওর চেক ছাড় - dainik shiksha মাদরাসা শিক্ষকদের জুন মাসের এমপিওর চেক ছাড় স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের জুনের এমপিওর চেক ছাড় - dainik shiksha স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের জুনের এমপিওর চেক ছাড় শিক্ষার্থীর সংখ্যার ভিত্তিতে স্কুলের তথ্য চেয়েছে অধিদপ্তর - dainik shiksha শিক্ষার্থীর সংখ্যার ভিত্তিতে স্কুলের তথ্য চেয়েছে অধিদপ্তর আশ্রয়কেন্দ্র হিসাবে বন্যা দুর্গত এলাকায় স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার নির্দেশ - dainik shiksha আশ্রয়কেন্দ্র হিসাবে বন্যা দুর্গত এলাকায় স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার নির্দেশ তিন শিক্ষকের ডাবল এমপিও : দৈনিক শিক্ষায় প্রতিবেদন প্রকাশের পর অধ্যক্ষকে শোকজ - dainik shiksha তিন শিক্ষকের ডাবল এমপিও : দৈনিক শিক্ষায় প্রতিবেদন প্রকাশের পর অধ্যক্ষকে শোকজ দৈনিক শিক্ষায় প্রতিবেদন প্রকাশের পর : তথ্য গোপন করে নেয়া অনুদানের টাকা ফেরত - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষায় প্রতিবেদন প্রকাশের পর : তথ্য গোপন করে নেয়া অনুদানের টাকা ফেরত জটিলতার দ্রুত সমাধান চান এমপিওবঞ্চিত শিক্ষকরা - dainik shiksha জটিলতার দ্রুত সমাধান চান এমপিওবঞ্চিত শিক্ষকরা প্রভাষকের বিরুদ্ধে ভুয়া সনদে চাকরির অভিযোগ - dainik shiksha প্রভাষকের বিরুদ্ধে ভুয়া সনদে চাকরির অভিযোগ শিক্ষায় বঙ্গবন্ধুর অবদান নিয়ে লেখা আহ্বান - dainik shiksha শিক্ষায় বঙ্গবন্ধুর অবদান নিয়ে লেখা আহ্বান বিনামূল্যে আন্তর্জাতিক মানের ডিজিটাল কনটেন্ট দিচ্ছে টিউটর্সইঙ্ক - dainik shiksha বিনামূল্যে আন্তর্জাতিক মানের ডিজিটাল কনটেন্ট দিচ্ছে টিউটর্সইঙ্ক শিক্ষকদের ফ্রি অনলাইন প্রশিক্ষণ চলছে - dainik shiksha শিক্ষকদের ফ্রি অনলাইন প্রশিক্ষণ চলছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website