জনশক্তি তৈরিতে কারিগরি শিক্ষা: এহছানুল হক মিলন - বিবিধ - Dainikshiksha

জনশক্তি তৈরিতে কারিগরি শিক্ষা: এহছানুল হক মিলন

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ও বিএনপির আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক ড. আ ন ম এহছানুল হক মিলন বলেছেন, বাংলাদেশে বিদ্যমান শিক্ষাব্যবস্থায় উচ্চ শিক্ষিতদের চাকরির ক্ষেত্র নেই। ফলে প্রতি বছরই বাড়ছে শিক্ষিত বেকারের সংখ্যা। বেকারত্বের অভিশাপ থেকে ব্যক্তি, সমাজ ও দেশকে মুক্তি দিতে কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই।  শনিবার (৯ ফেব্রুযারি) এক সাক্ষাৎকারে তিনি এসব কথা বলেন। 

সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী বলেন, কারিগরি শিক্ষার মাধ্যমে দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন সম্ভব। উচ্চ শিক্ষিতদের জনশক্তিতে রূপান্তরিত করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে। এই শিক্ষিত শ্রেণিকে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ দিলে তারা পৃথিবীর উন্নত দেশে গিয়ে শিক্ষকতার মতো পেশায় নিজেদের নিয়োজিত করতে পারবে। যেভাবে দক্ষ শ্রমিক তৈরি করা হচ্ছে, সে রকম উচ্চ শিক্ষিতদের খাত অনুযায়ী প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ দিতে হবে।

 

এ জন্য স্কুল, কলেজে বিজ্ঞান, মানবিক, ব্যবসায় শিক্ষা বিষয়ের সঙ্গে কারিগরি শিক্ষার বিষয়টিও যোগ করতে হবে। তিনি বলেন, পেশা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় কারিগরি শিক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে। যেমন চিকিৎসকের ক্ষেত্রে তাদের প্রয়োজনীয় কারিগরি বিষয়ে জানাশোনা থাকতে হবে। আমরা এসএসসি ও এইচএসসিতে আলাদাভাবে কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছিলাম। 

তারা এইচএসসি পাস করে উচ্চশিক্ষার জন্য প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়েও ভর্তি হতে পারত। মাদ্রাসা শিক্ষার কারিকুলামে কারিগরি শিক্ষা যোগ করতে হবে। ১৯৯৫ সালে দেশের ৬৪টি জেলায় কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার যে প্রকল্প চালু হয়েছিল তা এখনো সম্পন্ন হয়নি। সাবেক এই শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশের ২৩টি মন্ত্রণালয় আলাদাভাবে কারিগরি শিক্ষার প্রশিক্ষণ দেয়। 

এই কাজকে একটি মন্ত্রণালয়ের আওতায় আনতে হবে। শিক্ষার প্রতিটি বিষয়ের জন্য আলাদা মন্ত্রণালয় আছে। কিন্তু কারিগরি শিক্ষার ক্ষেত্রে নেই। তাই এ বিষয় নিয়ে ভাবতে হবে। প্রয়োজনে পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপের মাধ্যমে কারিগরি শিক্ষাব্যবস্থাকে এগিয়ে নিতে হবে। তিনি বলেন, শুধু কারিগরি শিক্ষার ব্যবস্থা করলে হবে না, সে অনুযায়ী সিলেবাস এবং শিক্ষক প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে। গতানুগতিক শিক্ষা থেকে বেরিয়ে নতুনভাবে শিক্ষা খাত নিয়ে ভাবতে হবে।

সূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন

‘শিক্ষকদের অবসর-কল্যাণ সুবিধার তহবিল বন্ধ করে পেনশন চালু করতে হবে’ - dainik shiksha ‘শিক্ষকদের অবসর-কল্যাণ সুবিধার তহবিল বন্ধ করে পেনশন চালু করতে হবে’ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রথম ধাপের পরীক্ষা ১০ মে - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রথম ধাপের পরীক্ষা ১০ মে কল্যাণ ট্রাস্টের প্রাথমিক তহবিলের এক কোটি টাকার হদিস নেই - dainik shiksha কল্যাণ ট্রাস্টের প্রাথমিক তহবিলের এক কোটি টাকার হদিস নেই এসএসসির ফল ৫ বা ৬ মে - dainik shiksha এসএসসির ফল ৫ বা ৬ মে সরকারিকৃত ২৯৯ কলেজে পদ সৃজনে সংশোধিত তথ্য ছক প্রকাশ - dainik shiksha সরকারিকৃত ২৯৯ কলেজে পদ সৃজনে সংশোধিত তথ্য ছক প্রকাশ কল্যাণ ট্রাস্টের ৪০ কোটি টাকা এফডিআর করা হয়নি - dainik shiksha কল্যাণ ট্রাস্টের ৪০ কোটি টাকা এফডিআর করা হয়নি আদর্শ না শেখালে সন্তানদের হাতে বাবা-মাও নিরাপদ নন: গণপূর্তমন্ত্রী - dainik shiksha আদর্শ না শেখালে সন্তানদের হাতে বাবা-মাও নিরাপদ নন: গণপূর্তমন্ত্রী চাঁদা বৃদ্ধির পরও ২১৬ কোটি টাকা বার্ষিক ঘাটতি : শরীফ সাদী - dainik shiksha চাঁদা বৃদ্ধির পরও ২১৬ কোটি টাকা বার্ষিক ঘাটতি : শরীফ সাদী কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি নীতিমালা জারি - dainik shiksha কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি নীতিমালা জারি একাদশে ভর্তির নীতিমালা জারি, আবেদন শুরু ১২ মে - dainik shiksha একাদশে ভর্তির নীতিমালা জারি, আবেদন শুরু ১২ মে প্রাথমিকের ৪২৭ শিক্ষকের বদলি - dainik shiksha প্রাথমিকের ৪২৭ শিক্ষকের বদলি সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি - dainik shiksha সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website