please click here to view dainikshiksha website

জলাবদ্ধতায় স্কুলশিক্ষার্থীদের ভোগান্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক | আগস্ট ১৬, ২০১৭ - ৬:২০ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

মিরপুর বনফুল গ্রিনবার্ড স্কুলে পরীক্ষা চলছিল। বৃষ্টি টের পায়নি শিক্ষার্থীরা। দুপুর ১২টায় পরীক্ষা শেষ করে গেটের বাইরে এসেই দেখে পানি। প্রধান সড়ক জলাবদ্ধ হয়ে পড়ায় অনেক শিক্ষার্থীর অভিভাবক এসে পৌঁছাননি।

স্কুলের বাইরে এসে মাকে দেখতে পেল না প্রথম শ্রেণির ছাত্রী প্রজ্ঞা। চোখেমুখে ফুটে উঠেছে উদ্বেগ। মা কখন আসবেন? প্রহরী তাকে স্কুল ফটকের ভেতরে আনার চেষ্টা করলেন। কিন্তু সে যাবে না। মা যদি এসেই তাকে দেখতে না পায়! প্রায় ১০ মিনিটের মাথায় মা যখন পৌঁছালেন, আনন্দ ছড়িয়ে পড়ল প্রজ্ঞার অভিব্যক্তিতে।

প্রজ্ঞার মা জানালেন, রাস্তায় পানি থাকায় বেশির ভাগ রিকশাচালক আসতে চাচ্ছিলেন না। কেউ কেউ দ্বিগুণ ভাড়া চেয়েছেন। পরে পানি মাড়িয়েই মেয়েকে নিতে এসেছেন। তিনি বলেন, সামান্য বৃষ্টিতে এমন জলাবদ্ধতা আর কত দিন সহ্য করতে হবে?

বুধবার ( ১৬ আগস্ট) সকাল সোয়া ১০টা থেকে মাঝারি ধরনের টানা ৪৫ মিনিট বৃষ্টি হয়েছে। রাজধানীর অন্যান্য স্থানে জলাবদ্ধতা হোক না হোক, মিরপুরের অনেক এলাকা তলিয়ে ছিল। এতে বিশেষত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা পড়ে দুর্ভোগে।

বনফুল গ্রিনবার্ড স্কুল অ্যান্ড কলেজের মতো মিরপুর ১৩ নম্বর সেকশনে আরও দুটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। হারমেন মেইনার ও স্কলাস্টিকা। দুপুর সোয়া ১২টা বাজে। স্কুলের সামনে থেকে পানি নামেনি তখনো। মিরপুর ১১ নম্বরের বাসিন্দা ব্যবসায়ী সৈয়দ সুমন হারমেন মেইনারে পড়া ছেলেকে নিতে এসেছেন। তিনি জলাবদ্ধতা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ছয় মাস আগে এখানে চওড়া পাইপের ড্রেনেজ লাইন করা হয়েছিল। তারপরও পানি জমে থাকে কেন?

প্রধান সড়কে পানির ওপরে দাঁড়িয়ে অনেক গাড়ি। শম্বুক গতিতে চলছে। অনেক অভিভাবক সড়কের পাশেই ফাস্ট ফুডের দোকানে অপেক্ষা করছেন। বইয়ের দোকানেও অভিভাবকদের ভিড়। ১৪ নম্বর সেকশনে শহীদ পুলিশ স্মৃতি স্কুলের সামনে সবচেয়ে বেশি যানজট। কারণ, স্কুল ছুটি হয়েছে।

অন্যদিনের মতোই আজ সকালের বৃষ্টিতে পানি জমেছিল মিরপুর ১০ নম্বর থেকে শুরু করে কাজীপাড়া, শেওড়াপাড়া প্রধান সড়কে। মণিপুর স্কুলের সামনেও জলাবদ্ধতা ছিল দীর্ঘ সময়।

ঢাকা ওয়াসার পরামর্শক এ কে এম শহীদউদ্দিন বলেন, রাস্তা খোঁড়াখুঁড়িসহ নির্মাণকাজের কারণে মিরপুরের অনেক রাস্তায় ক্যাচ পিক (যেটি বৃষ্টির পানি ড্রেনেজ লাইনে পৌঁছে দেয়) বন্ধ হয়ে থাকায় পানি নামতে দেরি হয়। তারপরও গোড়ান চটবাড়ি পাম্প স্টেশনের সাহায্যে পানিনিষ্কাশন করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


আপনার মন্তব্য দিন