জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ভর্তি নীতিতে বঞ্চিত কারিগরির শিক্ষার্থীরা - বিশ্ববিদ্যালয় - Dainikshiksha

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ভর্তি নীতিতে বঞ্চিত কারিগরির শিক্ষার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক |

বক্তৃতা-বিবৃতিতে কারিগরি শিক্ষাকে প্রাধান্য দেওয়া হলেও কারিগরি শিক্ষার্থীরা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চশিক্ষার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এ বছরও কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করা ৯৭ হাজার ১৪ শিক্ষার্থী উচ্চশিক্ষা থেকে বঞ্চিত হওয়ার শঙ্কায় রয়েছে। 

জানা যায়, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি নীতিমালা নিয়ে সোমবার (১৩ আগস্ট) বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। এতে মূলত কত জিপিএ এবং কোন বছরের পাস করা শিক্ষার্থীরা ভর্তি হতে পারবে, তা চূড়ান্ত হবে।

সূত্র জানায়, ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পেয়েছে ২০১৪ ও ২০১৫ খ্রিস্টাব্দের এসএসসি পাস এবং ২০১৬ ও ২০১৭ খ্রিস্টাব্দে এইচএসসি পাস করা শিক্ষার্থীরা। সাধারণ কলেজে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পাস করা যায় মাত্র দুই বছরে। ফলে তাদের জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিতে কোনো বাধা নেই। অথচ কারিগরি বোর্ডের অধীনে ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে সময় লাগে চার বছর। অথচ এই সার্টিফিকেট এইচএসসির সমমান। ফলে কোনো শিক্ষার্থী যদি ২০১৪ খ্রিস্টাব্দে এসএসসি পাস করে ডিপ্লোমায় ভর্তি হয়, সে পাস করে বের হবে ২০১৮ খ্রিস্টাব্দে। ফলে ওই শিক্ষার্থীর পক্ষে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চশিক্ষার সুযোগ নেই।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতকপূর্ব শিক্ষাবিষয়ক স্কুলের ডিন (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক নাসির উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, ‘কাল (আজ সোমবার) আমাদের ভর্তি নীতিমালা বিষয়ক বৈঠক রয়েছে। চলতি শিক্ষাবর্ষে যেন ২০১৪ খ্রিস্টাব্দের এসএসসি পাস করা শিক্ষার্থীরাও ভর্তি হতে পারে সে বিষয়ে আমরা ভাবছি। আর ভর্তির ন্যূনতম যোগ্যতা ও প্রফেশনাল কোর্সে ভর্তিতে কোন বিষয় থাকতে হবে, তা বৈঠকেই সিদ্ধান্ত হবে।’

জানা যায়, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে তিন ধরনের কোর্স রয়েছে। সেগুলো হলো সাধারণ অনার্স, ডিগ্রি পাস ও প্রফেশনাল অনার্স। তবে কারিগরি ব্যাবহারিকনির্ভর শিক্ষা। আর জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেশনাল কোর্সও ব্যাবহারিকনির্ভর। ফলে কারিগরি থেকে পাস করা শিক্ষার্থীদের পছন্দ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেশনাল অনার্স। কিন্তু গত বছর সেখানে তাদের ভর্তিরই সুযোগ ছিল না।

অথচ গত শিক্ষাবর্ষের আগে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়েই এসএসসি পাস করার পর পাঁচ বছর পর্যন্ত অনার্সে ভর্তির সুযোগ থাকত। ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষে ২০০৮ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত এসএসসি পাস করা শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ পেয়েছে। ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে তা কমিয়ে ২০১১ খ্রিস্টাব্দ, ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে ২০১৩ খ্রিস্টাব্দ এবং ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে তা কমিয়ে ২০১৪ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত এসএসসি পাস করা শিক্ষার্থীদের ভর্তির সুযোগ রাখা হয়।

জানা যায়, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় দিন দিন ভর্তির খ্রিস্টাব্দ কমিয়ে আনায় প্রফেশনাল কোর্সে শিক্ষার্থী কমতে থাকে। ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষে প্রফেশনালে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১০ হাজারের কাছাকাছি থাকলেও গত শিক্ষাবর্ষে তা কমে দাঁড়ায় মাত্র দুই হাজার ৮০০ জনে। এ ছাড়া সাধারণ অনার্স কোর্সে জিপিএ ২ পেলে ভর্তির সুযোগ থাকলেও প্রফেশনাল কোর্সে ভর্তির ন্যূনতম যোগ্যতা রাখা হয় ২.৫০। এ ছাড়া প্রফেশনাল কোর্সে ভর্তিতেও বিষয়ের বাধ্যবাধকতা রাখা হয়েছে। দেখা যাচ্ছে, বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পাস করলে তাকে গণিত, পদার্থের মতো বিষয় থাকতে হবে। অথচ দেখা গেছে, প্রফেশনাল কোর্সে এ বিষয়গুলোই নেই। একইভাবে ব্যবসায় শিক্ষা ও মানবিক থেকে প্রফেশনাল কোর্সে আসা শিক্ষার্থীদেরও বিষয়ের বাধ্যবাধকতা রাখা হয়েছে। এতে শিক্ষার্থীদের এ কোর্সে আগ্রহ থাকলেও তারা ভর্তির সুযোগই পাচ্ছে না।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেশনাল কোর্সে বিবিএ, কম্পিউটার সায়েন্স, ইলেকট্রনিকস অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং, ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্টের মতো বিষয় থাকলেও কর্তৃপক্ষের  সিদ্ধান্তে শিক্ষার্থী পাওয়া যাচ্ছে না।

এইচএসসির টেস্ট পরীক্ষার ফল ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকাশের নির্দেশ - dainik shiksha এইচএসসির টেস্ট পরীক্ষার ফল ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকাশের নির্দেশ ১ জুলাই থেকে পাঁচ শতাংশ ইনক্রিমেন্ট কার্যকরের আদেশ অর্থ মন্ত্রণালয়ের - dainik shiksha ১ জুলাই থেকে পাঁচ শতাংশ ইনক্রিমেন্ট কার্যকরের আদেশ অর্থ মন্ত্রণালয়ের বিজয় দিবসে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার নির্দেশ - dainik shiksha বিজয় দিবসে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার নির্দেশ স্ত্রীর মৃত্যুতে আজীবন পেনশন পাবেন স্বামী - dainik shiksha স্ত্রীর মৃত্যুতে আজীবন পেনশন পাবেন স্বামী বদলে যাচ্ছে বাংলা বর্ষপঞ্জি - dainik shiksha বদলে যাচ্ছে বাংলা বর্ষপঞ্জি ২০ হাজার টাকায় শিক্ষক নিবন্ধন সনদ বিক্রি করতেন তারা - dainik shiksha ২০ হাজার টাকায় শিক্ষক নিবন্ধন সনদ বিক্রি করতেন তারা অকৃতকার্য ছাত্রীকে ফের পরীক্ষায় বসতে দেয়ার নির্দেশ - dainik shiksha অকৃতকার্য ছাত্রীকে ফের পরীক্ষায় বসতে দেয়ার নির্দেশ আইডিয়াল স্কুলে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু - dainik shiksha আইডিয়াল স্কুলে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু নির্বাচনের সঙ্গে পেছাল সরকারি স্কুলের ভর্তি - dainik shiksha নির্বাচনের সঙ্গে পেছাল সরকারি স্কুলের ভর্তি শিক্ষকদের অন্ধকারে রেখে দেড় লাখ কোটি টাকার প্রকল্প! - dainik shiksha শিক্ষকদের অন্ধকারে রেখে দেড় লাখ কোটি টাকার প্রকল্প! দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website