জাল সনদ বিক্রেতার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ - বিবিধ - Dainikshiksha

জাল সনদ বিক্রেতার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক |

জাল সনদ বিক্রেতা আমেরিকা বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটির তথাকথিত ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য শহীদ তালুকদারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ থেকে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যানকে অভিযোগটি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। মঙ্গলবার (১১ ডিসেম্বর) উপসচিব জিনাত রেহানা স্বাক্ষরিত চিঠিটি ইউজিসিতে পাঠানো হয়েছে বলে দৈনিক শিক্ষাকে নিশ্চিত করেছে একাধিক সূত্র।

আমেরিকা বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটির বিরুদ্ধে বিএডসহ বিভিন্ন বিষয়ের জাল সনদ বিক্রির অভিযোগ অনেক দিনের। আমেরিকা বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটির তথাকথিত ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য শহীদ তালুকদারের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি টাকার বিনিময়ে জাল সনদ বিক্রি করেন। এমনকি র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) এ সনদ বিক্রির অভিযোগের সত্যতা পেয়েছে।

দৈনিক শিক্ষার অনুসন্ধানে জানা যায়, সনদ বিক্রিসহ নানা অনিয়মের অভিযোগে ২০০৬ খ্রিস্টাব্দের অক্টোবর মাসে আমেরিকা বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয়টি বন্ধ করে দেয় সরকার। সদ্যপ্রয়াত বিএনপি নেতা তরিকুল ইসলামের শ্যালিকা বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডার সমিতির সাবেক সভাপতি নাছরিন বেগম ও তার স্বামী ও অন্যান্য আত্মীয়স্বজনরা এই আমেরিকা বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা ও পরিচালনা করে আসছিলেন।  সনদ বিক্রির অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়া অপরাপর ৪টি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে এটিকেও বন্ধ করে সরকার। কিন্তু ২০১২ ও ২০১৩ খ্রিস্টাব্দের দিকে ফের সনদ বিক্রি শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়টি।   

 ২০১৬ খ্রিস্টাব্দের ১৭ ফেব্রুয়ারি র‌্যাব অভিযান চালিয়ে জাল সনদ বিক্রি করার সময় আমেরিকা বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটির রেজিস্ট্রার মাকসুদা আক্তার ও সহকারী রেজিস্ট্রার সোহাগান জেরিনকে গ্রেফতার করে।  ওইসময় রাজধানীর মালিবাগে আমেরিকা বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি ক্যাম্পাসে অভিযান চালিয়ে বিবিএ, এমবিএ, এলএলবি, ইঞ্জিনিয়ারিং ও ফ্যাশন ডিজাইনসহ বিভিন্ন বিষয়ের, অনার্স, মাস্টার্সের বিপুল সংখ্যক জাল সনদ জব্দ করে র‌্যাব। র‌্যাবের গোয়েন্দা অভিযানে জানা যায়, মাত্র ১৩ হাজার টাকায় স্নাতক সনদ বিক্রি করে প্রতিষ্ঠানটি।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন সূত্রে জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়টি ১৯৯৭ খ্রিস্টাব্দে প্রতিষ্ঠা করা হয়। ২০০৬ খ্রিস্টাব্দের ২২ অক্টোবর এই বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করে দেয় সরকার। এর বিরুদ্ধে ২০১৩ খ্রিস্টাব্দে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ হাইকোর্টে একটি রিট করে। পরে আদালতে রিট আবেদন করে স্থগিতাদেশ নিয়ে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছিল বিশ্ববিদ্যালয়টি। 

একাদশে ভর্তি: ২য় দফার আবেদন শুরু - dainik shiksha একাদশে ভর্তি: ২য় দফার আবেদন শুরু বিসিএসেও তৃতীয় পরীক্ষক চালু - dainik shiksha বিসিএসেও তৃতীয় পরীক্ষক চালু ডিগ্রি ২য় বর্ষ পরীক্ষার ফরম পূরণের সময় বাড়লো - dainik shiksha ডিগ্রি ২য় বর্ষ পরীক্ষার ফরম পূরণের সময় বাড়লো জিপিএ-৫ বিলুপ্তির পর যেভাবে হবে নতুন গ্রেড বিন্যাস - dainik shiksha জিপিএ-৫ বিলুপ্তির পর যেভাবে হবে নতুন গ্রেড বিন্যাস পাবলিক পরীক্ষার গ্রেড: যা আছে আর যা হবে - dainik shiksha পাবলিক পরীক্ষার গ্রেড: যা আছে আর যা হবে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় কঠোর নজরদারির নির্দেশ গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় কঠোর নজরদারির নির্দেশ গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর শিক্ষক নিবন্ধন: ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিষয়ের নতুন সিলেবাস দেখুন - dainik shiksha শিক্ষক নিবন্ধন: ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিষয়ের নতুন সিলেবাস দেখুন সার্টিফিকেট ছাপার আগেই ২ কোটি টাকা তুলে নিলেন ছায়েফ উল্যাহ - dainik shiksha সার্টিফিকেট ছাপার আগেই ২ কোটি টাকা তুলে নিলেন ছায়েফ উল্যাহ রাজধানীর সকল ফার্মেসি থেকে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ এক মাসের মধ্যে সরিয়ে নিতে হবে: হাইকোর্ট - dainik shiksha রাজধানীর সকল ফার্মেসি থেকে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ এক মাসের মধ্যে সরিয়ে নিতে হবে: হাইকোর্ট জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া  - dainik shiksha please click here to view dainikshiksha website