টয়লেট, হাত ধোয়ার ব্যবস্থা নেই বিশ্বের অর্ধেক স্কুলে - স্কুল - Dainikshiksha

টয়লেট, হাত ধোয়ার ব্যবস্থা নেই বিশ্বের অর্ধেক স্কুলে

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

বিশ্বের অর্ধেক স্কুলেই নেই সুপেয় পানি, টয়লেট ও ভদ্রোচিত হাত-মুখ ধোয়ার ব্যবস্থা। ফলে স্কুলগামী প্রায় ৯০ কোটি শিশু-কিশোরই মৌলিক স্বাস্থ্য সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এতে গুরুতর স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়ছে শিক্ষার্থীরা। বিশেষ করে মেয়ে শিক্ষার্থীরা। এমনকি পড়াশোনার পাঠ চুকাতে বাধ্য হচ্ছে তাদের অনেকেই। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও ইউনিসেফের যৌথ এক গবেষণা রিপোর্টে ভয়াবহ এসব তথ্য উঠে এসেছে। স্কুলে ছাত্রছাত্রীদের সুপেয় পানি পান ও টয়লেট সুবিধা নিয়ে গবেষণাটি বেশ তাৎপর্যপূর্ণ। সোমবার রিপোর্টটি প্রকাশ করা হয়। খবর টেলিগ্রাফের।

রিপোর্টে বলা হয়, বিশ্বের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ প্রাথমিক স্কুল ও মাধ্যমিক স্কুলেই নিরাপদ ও সুপেয়ে পানির ব্যবস্থা নেই। ২০ শতাংশ স্কুলে আদৌ কোনো নিরাপদ পানির ব্যবস্থা নেই। ফলে ৫৭ কোটি শিশু-কিশোর স্বাস্থ্যগতভাবে ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। স্কুলে স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেট সুবিধা পায় না প্রায় ৬২ কোটি ছাত্রছাত্রী। এছাড়া প্রায় ৯০ কোটি শিক্ষার্থী টয়লেট ব্যবহারের পর সঠিকভাবে হাত ধোয়ার সুবিধা তথা সাবান পায় না। স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেটের অভাবে স্কুলে যেতে চায় না ছাত্রছাত্রীরা। এসব কারণে বিশেষ করে মেয়ে শিশুদের ক্ষেত্রে স্কুলে যাওয়ার হার কমে যাচ্ছে।

গবেষণার ফল ও পরিসংখ্যানের মাধ্যমে বিশ্বের নীতিনির্ধারকদের গুরুত্বপূর্ণ বার্তা ও হুশিয়ারি দিয়েছেন গবেষকরা। গবেষণা প্রকল্পের প্রধান গবেষক ও সমন্বয়ক বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কর্মকর্তা ড. রিক জনসন বলেন, এসব মৌলিক সুবিধা ছাড়া ভালো মানের শেখার পরিবেশ অসম্ভব। স্কুলে যদি টয়লেট না থাকে, শিশুরা সেখানে না-ও যেতে পারে। তারপরও যখন তারা স্কুলে যাচ্ছে, তা একরকম বাধ্য হয়েই যাচ্ছে।

জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন কর্মসূচির অধীনে ২০৩০ সালের মধ্যে প্রত্যেক শিশুর জন্য মানসম্মত শিক্ষা ও সবার জন্য স্বাস্থ্য সুবিধা নিশ্চিত করার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছেন বিশ্বনেতারা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও ইউনিসেফের রিপোর্ট মতে, সেসব প্রতিশ্রুতি খাতা আর কলমেই সীমাবদ্ধ রয়েছে।

‘শিক্ষকদের অবসর-কল্যাণ সুবিধার তহবিল বন্ধ করে পেনশন চালু করতে হবে’ - dainik shiksha ‘শিক্ষকদের অবসর-কল্যাণ সুবিধার তহবিল বন্ধ করে পেনশন চালু করতে হবে’ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রথম ধাপের পরীক্ষা ১০ মে - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রথম ধাপের পরীক্ষা ১০ মে এসএসসির ফল ৫ বা ৬ মে - dainik shiksha এসএসসির ফল ৫ বা ৬ মে চাঁদা বৃদ্ধির পরও ২১৬ কোটি টাকা বার্ষিক ঘাটতি : শরীফ সাদী - dainik shiksha চাঁদা বৃদ্ধির পরও ২১৬ কোটি টাকা বার্ষিক ঘাটতি : শরীফ সাদী একাদশে ভর্তির নীতিমালা জারি, আবেদন শুরু ১২ মে - dainik shiksha একাদশে ভর্তির নীতিমালা জারি, আবেদন শুরু ১২ মে সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি - dainik shiksha সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website