ঠিকাদারের খামখেয়ালিতে ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীরা - স্কুল - Dainikshiksha

ঠিকাদারের খামখেয়ালিতে ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক |

ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলা সদরের টিঅ্যান্ডটি সড়ক ও স্থানীয় মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রবেশের প্রধান সড়কটি প্রায় দুই মাস ধরে চলাচলের অনুপযোগী করে রাখা হয়েছে। এ দুর্ভোগের জন্য ঠিকাদারের খামখেয়ালিপনাকেই দায়ী করছেন এলাকাবাসী। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন টিঅ্যান্ডটি সড়ক এলাকার দুই শতাধিক পরিবার ও বিদ্যালয়ের আড়াই হাজার শিক্ষার্থী।

স্থানীয়রা জানায়, উপজেলা সদরের টিঅ্যান্ডটি সড়কটি গত আড়াই মাস আগে মেরামতের জন্য স্থানীয় সরকার ও প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) দরপত্র আহ্বান করে। লটারির মাধ্যমে কাজ পায় ঝালকাঠির মো. সিদ্দিকুর রহমান নামের এক ঠিকাদার। তাঁর কাছ থেকে রাজাপুর সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আনোয়ার হোসেন মজিবর কাজটি কিনে নেন। এরপর ঠিকাদারের নির্দেশে প্রথমে আরসিসি ঢালাই সড়কটি ভাঙতে শুরু করে শ্রমিকরা। এ সময় এলাকাবাসী ভোগান্তির কথা চিন্তা করে ঠিকাদারকে বর্ষার পরে সড়কটি খোঁড়ার অনুরোধ করেন। এলাকাবাসীর কথা পাত্তা না দিয়ে ঠিকাদার সড়কটি ভেঙে ফেলেন। ভাঙা সড়কের সব কংক্রিটের টুকরা ট্রাকে করে ঠিকাদার অন্যত্র নিয়ে যান। এখন সড়কটি জল-কাদায় একাকার। এ ছাড়া এই কাজের সঙ্গেই সংযুক্ত করা হয় রাজাপুর মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রবেশের ৬০ ফুট সড়ক। বিদ্যালয়ের সড়কটিও একই অবস্থা হওয়ায় শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি এখন চরমে।

সরেজমিনে দেখা যায়, টিঅ্যান্ডটি সড়কটি খুঁড়ে রাখায় বৃষ্টির পানি জমে আছে। কোথাও আবার কম দামের  ইট এনে ফেলে রাখা হয়েছে। ফলে স্থানীয় বাসিন্দারা ওই সড়ক দিয়ে যাতায়াত করতে পারছেন না। রাজাপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান ফটক থেকে ভেতরে প্রবেশের সড়কটিও খুঁড়ে রাখায় পানি ও কাদা জমে আছে। শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের কাদাপানি পেরিয়ে বিদ্যালয়ে যেতে হচ্ছে। সড়ক সংস্কারের নামে দুই মাস ধরে এভাবে ফেলে রাখায় ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে পথচারীদের। এ অবস্থা থেকে উত্তরণের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

টিঅ্যান্ডটি সড়কের বাসিন্দা মো. রুবেল তালুকদার বলেন, ‘সড়কের নির্মাণকাজ বর্ষার পরে শুরু করার জন্য আমরা এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে অনুরোধ করেছিলাম। কিন্তু ঠিকাদার আমাদের কথা শোনেনি। তাই গত দুই মাসের বর্ষায় আমাদের এই নাজেহাল।’ রাজাপুর মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র ইয়াসির আরাফাত বলেন, ‘সামনের গেট থেকে বিদ্যালয়ের সিঁড়ি পর্যন্ত রাস্তা খুঁড়ে ফেলা হয়েছে। ফলে সেখানে সামান্য বর্ষাতেই পানি জমে যায়। আমাদের বিদ্যালয়ে আসা যাওয়া করতে প্রায়ই বই-খাতা ও পোশাক নষ্ট হয়ে যায়।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঠিকাদার আনোয়ার হোসেন মজিবর বলেন, ‘খুব শিগগিরই সড়কের কাজ শুরু করা হবে। প্রথমেই বালি দিয়ে সড়ক উঁচু করে চালাচলের উপযোগী করে দেওয়া হবে।’

এইচএসসির টেস্ট পরীক্ষার ফল ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকাশের নির্দেশ - dainik shiksha এইচএসসির টেস্ট পরীক্ষার ফল ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকাশের নির্দেশ ১ জুলাই থেকে পাঁচ শতাংশ ইনক্রিমেন্ট কার্যকরের আদেশ অর্থ মন্ত্রণালয়ের - dainik shiksha ১ জুলাই থেকে পাঁচ শতাংশ ইনক্রিমেন্ট কার্যকরের আদেশ অর্থ মন্ত্রণালয়ের বিজয় দিবসে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার নির্দেশ - dainik shiksha বিজয় দিবসে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার নির্দেশ স্ত্রীর মৃত্যুতে আজীবন পেনশন পাবেন স্বামী - dainik shiksha স্ত্রীর মৃত্যুতে আজীবন পেনশন পাবেন স্বামী বদলে যাচ্ছে বাংলা বর্ষপঞ্জি - dainik shiksha বদলে যাচ্ছে বাংলা বর্ষপঞ্জি ২০ হাজার টাকায় শিক্ষক নিবন্ধন সনদ বিক্রি করতেন তারা - dainik shiksha ২০ হাজার টাকায় শিক্ষক নিবন্ধন সনদ বিক্রি করতেন তারা অকৃতকার্য ছাত্রীকে ফের পরীক্ষায় বসতে দেয়ার নির্দেশ - dainik shiksha অকৃতকার্য ছাত্রীকে ফের পরীক্ষায় বসতে দেয়ার নির্দেশ আইডিয়াল স্কুলে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু - dainik shiksha আইডিয়াল স্কুলে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু নির্বাচনের সঙ্গে পেছাল সরকারি স্কুলের ভর্তি - dainik shiksha নির্বাচনের সঙ্গে পেছাল সরকারি স্কুলের ভর্তি শিক্ষকদের অন্ধকারে রেখে দেড় লাখ কোটি টাকার প্রকল্প! - dainik shiksha শিক্ষকদের অন্ধকারে রেখে দেড় লাখ কোটি টাকার প্রকল্প! দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website