please click here to view dainikshiksha website

ঢাবির ঐতিহ্য অনুযায়ী শিক্ষক নিয়োগ হচ্ছে না: প্রধান বিচারপতি

ঢাবি প্রতিনিধি | আগস্ট ৩, ২০১৭ - ৩:২৮ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহা বলেছেন, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটা ঐতিহ্য রয়েছে। সেই ঐতিহ্য অনুযায়ী বর্তমানে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে না।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) দর্শন বিভাগের শিক্ষক তোফায়েল আহমেদের নিয়োগ অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে আবেদনের শুনানিতে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমকে উদ্দেশ্য করে একথা বলেন প্রধান বিচারপতি।

প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘একজন ভিসি (নাম উল্লেখ করেননি) পর্যন্ত ঐতিহ্য বজায় রেখে শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। তখন বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে যারা প্রথম শ্রেণিতে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় হতেন তাদের শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হতো। কিন্তু এখন আর সেটি হচ্ছে না। এটা অ্যালার্মিং।’

আদালতে শিক্ষক তোফায়েল আহমেদের পক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, তোফায়েল আহমেদ এসএসসি পরীক্ষায় মার্ক কম পেয়েছেন। হাইকোর্ট তার নিয়োগ অবৈধ করায় তাকে ক্লাস করতে দেওয়া হচ্ছে না।

হাইকোর্টের রায় স্থগিতের আবেদন জানান তিনি। তবে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের তিন সদস্যদের বেঞ্চ রায় স্থগিত না করে ‘নো অর্ডার’ দেন।

এই আদেশের ফলে তোফায়েল আহমেদের নিয়োগ অবৈধ থাকল বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


পাঠকের মন্তব্যঃ ১০টি

  1. মোঃ আবুল হাসান তারেক, প্রভাষক, হোসেন আলী ডিগ্রি কলেজ, বেলাব, নরসিংদী। says:

    শিক্ষক নিয়োগে সচ্ছতা জরুরী

  2. Md. Mosharof Hossain says:

    আপনার মন্তব্য valo marks r merit student takte eto kom markrser luk niyuger darker ki.

  3. Md. Abdul Baten Faruki, HT, Syed Habibul Huq High School, Kishoreganj Sadar. says:

    আপনার মন্তব্য Correct you are. Nation will remember you. You represent the nation. Go ahead.

  4. মোঃ হবিবর রহমান says:

    বোঝা গেল দেশে একজনই মানুষ আছেন। যার হৃদপিণ্ড এবং মেরুদন্ড দুটোই আছে।

  5. মোঃ মোজাফ্ফর হোসেন says:

    মাননীয় প্রধান বিচারপতি, এদেশের মানুষ আপনাকে চিরদিন শ্রদ্ধাভরে স্মরণ রাখবে। আপনার দীর্ঘায়ু কামনা করি।

  6. আইনে নকলবাজ শিক্ষক ,ছাত্রের শাস্তির বিধান চাই । says:

    প্রধান বিচারপতিকে ধন্যবাদ ।এমন সত্য উচ্চারণ করা বিচারপতি আগে দেখা যায়নি ।

  7. subhas chandra chowdhury says:

    মেধার ভিত্তিতে নিয়োগ দিলে সজনপ্রীতি ও রাজনৈতিক উদ্দ্যেশ্য হাসিল করা যায় না।কারন শুধু রাজনীতি করেতো আর ১ম, ২য় বা ৩য় হওয়া যায় না।

  8. আমিরুল আলম খান says:

    আদালত যেন জনগণের শেষ ভরসাস্থল হিসেবে চিরভাস্বর হয়ে থাকে, স্বাধীন দেশের মানুষের এই একটাই আকাঙ্ক্ষা।

  9. মোঃ হবিবর রহমান, প্রভাষক, বীরগঞ্জ ডিগ্রী কলেজ, দিনাজপুর says:

    জি.পি.এ -3 কে যখন ফাষ্ট ক্লাস এর সমমান ঘোষণা করা হলো তখনই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগের ঐতিহ্য জলাঞ্জলি দেয়া হলো।

  10. মো: মমতাজ হোসেন, প্রভাষক, পুরাতন ঠাকুরগাও বিএম কলেজ,ঠাকুরগাও। says:

    মাননীয় প্রধান বিচারপতি, আমাদের দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি স্যাররা যদি আপনার মতো নির্ভীক,সত্যবাদী ও ন্যায়নিষ্ঠ হতেন তাহলে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে প্রকৃত মেধাবি ছাত্ররাই শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পেত।

আপনার মন্তব্য দিন