please click here to view dainikshiksha website

নিষিদ্ধ গাইড বইয়ের জমজমাট ব্যবসা জলঢাকায়

জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি | ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮ - ৫:৫১ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলা সদরের বইয়ের দোকানগুলোতে নিষিদ্ধ নোট গাইড বইয়ের জমজমাট ব্যবসা চলছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের হাতে লিস্ট ধরিয়ে দিয়ে গাইড বই কিনতে বাধ্য করছেন বলে অভিযোগ এনেছেন অভিভাবকরা।

অভিযোগ রয়েছে, বছর শুরুর আগ থেকেই এসব নোট গাইড বইয়ের পরিবেশকরা ও উপজেলা লাইব্রেরি সমিতির সভাপতি-সম্পাদক তাদের প্রতিনিধির দ্বারা উপজেলার সকল প্রাইমারি,কেজি স্কুল এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এসব নিষিদ্ধ নোট গাইড বই চালাতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানদেরকে মোটা অংকের বকশিস ও উপঢৌকন দিয়ে ম্যানেজ করে ব্যবসা করে আসছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, লেকচার, জুপিটার, অনুপম, ক্লাসফ্রেন্ড, পাঞ্জেরী, প্রফেসরস, নবদূত, আইকনসহ বিভিন্ন প্রকাশনীর প্রতিনিধিরা উপজেলায় তাঁদের প্রকাশনার এসব নিম্নঃমানের নোট গাইড বই শিক্ষার্থীদের কিনতে বাধ্য করতে লাখ লাখ টাকা বিনিয়োগ করছে শিক্ষকসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে।

মৃত্যুঞ্জয় নামের এক অভিভাবক বলেন, আমার সপ্তম শ্রেনিতে পড়া মেয়েরে জন্য ১ হাজার ২০০ টাকা দিয়ে নোট বই কিনে দিতে বাধ্য করা হয়েছে।

পঞ্চম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক মাসুদ রানা বলেন, বাধ্যতামূলকভাবে ১ হাজার ১০০ টাকার নোট বই কিনে দিতে হয়েছে আমার মেয়েকে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক সহকারি শিক্ষক বলেন, লাইব্রেরির মালিকরা প্রকাশনীর প্রতিনিধিদের সাথে নিয়ে এসে প্রতিষ্ঠান প্রধানদের মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ম্যানেজ করে নোট ও গাইড বইয়ের ব্যবসা চালাচ্ছেন।

নিষিদ্ধ নোট গাইড বই বিক্রির বিষয়ে উপজেলা লাইব্রেরি মালিক সমিতির সভাপতি ও নিউ সিদ্দিকীয়া লাইব্রেরির মালিক আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, ‘এসব বই বিক্রি করার পেপার্স আছে আমাদের কাছে।’

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কাজল কুমার সরকার বলেন, কোন প্রাথমিক বিদ্যালয় নোট গাইড ব্যবহার করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

জানতে চাইলে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা চঞ্চল কুমার ভৌমিক বলেন, নোট গাইড বই বিক্রি এবং বাজারজাত করা আইন অনুযায়ী বৈধ নয়। এদের বিরুদ্ধে অচিরেই আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


পাঠকের মন্তব্যঃ ১টি

  1. sohrabhossain says:

    গাইড য়দি নিষিদ্ধহয় সব কোম্পানি কে ধরাহোক।বাজারে তল্লাশি চালিয়ে সকল গাইডজব্দ করা হোক।

আপনার মন্তব্য দিন