please click here to view dainikshiksha website

পঞ্চম বারের মত হা-মীম জেএসসিতে প্রথম

মোঃ নাজমুল আযম, লালমোহন প্রতিনিধি | ডিসেম্বর ৩১, ২০১৫ - ১০:০৫ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

HAMIMএবারো ভোলা জেলায় শীর্ষ স্থান ধরে রেখেছে লালমোহন হা-মীম রেসিডেন্সিয়াল একাডেমি। পর পর পঞ্চম বারের মতো ভোলা জেলায় প্রথম স্থান অর্জনকারী লালমোহন হা-মীম রেসিডেন্সিয়াল একাডেমিতে এ বছর জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭৪ জন।

এ প্রতিষ্ঠান থেকে এ বছর ৮৪ জন পরীক্ষা দিয়েছে। বাকী ১০ জন এ গ্রেড অর্জন করে শতভাগ পাস নিশ্চিত করে। হা-মীম রেসিডেন্সিয়াল একাডেমীর পরিচালক মোঃ রুহুল আমিন প্রতিষ্ঠানের ধারাবাহিক সাফল্যে গর্বিত।

লালমোহন বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ১২৬ জন পরীক্ষা দিয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫২ জনে। ৬৯ জন এ গ্রেড পেয়ে এ প্রতিষ্ঠানও শতভাগ উত্তীর্ণ হয়। লালমোহন মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ১৩৬ জন পরীক্ষা দিয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪৩ জন। ৮০ জন এ গ্রেড পেয়ে এ প্রতিষ্ঠানের পাসের ৯৯.২৬ ভাগ।

লালমোহন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ রফিকুল ইসলাম জানান, জেএসসিতে এ বছর লালমোহনে পাসের হার ৯৯.৩৪ এবং জেডিসিতে ৯৪.২২। জেএসসির ৬টি কেন্দ্রে এ বছর পরীক্ষা দেয় ২৫৮১ জন। এর মধ্যে পাস করে ২৫৬৪ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে মোট ৫৪০ জন।

অন্যদিকে জেডিসিতে ২টি কেন্দ্রে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১১৫৯ জন। পাস করেছে ১০৯২ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২১ জন।

রায়চাঁদ উদয়চন্দ্র মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি আনোয়ার রাব্বী জানান, তার বিদ্যালয়ে ১২৭ পরীক্ষা দিয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৯ জন। ৮৫ জনে এ গ্রেড পেয়ে শতভাগ পাস করেছে এ প্রতিষ্ঠান। উত্তর রমাগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ২৬ জন পরীক্ষা দিয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ টি। মহেষখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ৪৯ জন পরীক্ষা দিয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫ টি। রমাগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয় এন্ড কলেজ থেকে ১২০ জন পরীক্ষা দিয়ে ২৫ টি জিপিএ-৫ পেয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠান প্রধান মোঃ জামাল উদ্দিন। এ কেন্দ্রে দক্ষিণ লালমোহন মাধ্যমিক বিদ্যালয় পরীক্ষা দিয়ে ৪৩ জনের মধ্যে ৮ জনে জিপিএ-৫ পেয়েছে। এছাড়া গজারিয়া বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ৮০ জন পরীক্ষা দিয়ে ৩৩ টি জিপিএ-৫ ও গজারিয়া বালক মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ৯৪ জন পরীক্ষা দিয়ে ১৯ টি জিপিএ-৫ পেয়েছে। লালমোহন আশ্রাফনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয় এর প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান কামরুল জানান, তার প্রতিষ্ঠানে ৫৫ জন পরীক্ষা দিয়ে ৩৬ টি জিপিএ-৫ পেয়ে শতভাগ পাস করে।

লালমোহন ইসলামিয়া কামিল মাদ্রাসায় ৪৩ জন জেডিসি পরীক্ষা দিয়ে ৬টি জিপিএ-৫ পেয়েছে।

অন্যদিকে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা পিএসসিতে উপজেলায় ৫৫৩৬ জন পরীক্ষা দিয়ে ১৮৩ জনে জিপিএ-৫ পেয়েছে। ছাত্র ২৩৪৯ জনের মধ্যে ৯১ জন এবং ছাত্রী ৩১৮৭ জনের মধ্যে ৯২ জন জিপিএ-৫ পায়। পাসের হার উপজেলায় ৯৮.২২। এর মধ্যে ছাত্র- ৯৮.৩০ এবং ছাত্রী- ৯৮.১৫ ভাগ। লালমোহন হাই এটাস্ট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ৮৯ জন পরীক্ষা দিয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৯ জন। লালমোহন মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ৮১ জনে পরীক্ষা দিয়ে ১৩ জন জিপিএ-৫ পেয়েছে।

এবতেদায়ী পরীক্ষায় ৯৫৭ জন পরীক্ষা দিয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭ জন। ছাত্র ৪০০ এবং ছাত্রী ৫৫৭ জন পরীক্ষা দিয়ে ৫ জন ছাত্র ও ২ জন ছাত্রী জিপিএ-৫ পায়। পাসের হার উপজেলায় ৯৯.১৪ ভাগ। এর মধ্যে ছাত্র- ৯৯.৫০ ও ছাত্রী ৯৮.৭৯ ভাগ।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


আপনার মন্তব্য দিন