please click here to view dainikshiksha website

সাভারের মীরপুর মফিদ-ই-আম স্কুল অ্যান্ড কলেজ

পরীক্ষায় প্রথম হয়েও নিয়োগ পাচ্ছেন না শিক্ষক

নিজস্ব প্রতিবেদক | আগস্ট ১৪, ২০১৭ - ৯:০১ পূর্বাহ্ণ
dainikshiksha print

সব আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হওয়ার পরও ঢাকার সাভারে মীরপুর মফিদ-ই-আম স্কুল অ্যান্ড কলেজের সহকারী প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী রবীন্দ্রনাথ দাস ৩ আগস্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

কলেজ সূত্রে জানা গেছে, সহকারী প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ পূরণের জন্য প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে গত বছরের ২১ অক্টোবর পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। কাঙ্ক্ষিত প্রার্থী না পেয়ে কর্তৃপক্ষ পুনরায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর গত ১৩ মে সাভারের কোন্ডা উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রবীন্দ্রনাথ দাসসহ ১৯ জন প্রার্থী চূড়ান্ত নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নেন। তাঁদের মধ্যে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় প্রথম হন রবীন্দ্রনাথ দাস। এরপর নিয়োগ কমিটির পক্ষ থেকে রবীন্দ্রনাথ দাসকে নিয়োগ দেওয়ার জন্য সুপারিশ করা হয়। এরপর তিন মাস পেরিয়ে গেছে। কিন্তু পরিচালনা কমিটি তাঁকে নিয়োগ দিচ্ছে না।

রবীন্দ্রনাথ দাস বলেন, পরিচালনা কমিটির অনেক সদস্যের মতামত এবং নিয়োগ কমিটির সুপারিশ উপেক্ষা করে স্কুল ও কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি দীন মোহাম্মদ ও অধ্যক্ষ আব্দুল মালেক অসৎ উদ্দেশ্যে তাঁর নিয়োগ আটকে রেখেছেন।

কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল মালেক সম্প্রতি বলেন, নিয়োগ কমিটির সুপারিশের পর কত দিনের মধ্যে নিয়োগ দিতে হবে, এ রকম কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। নিয়োগের ক্ষমতা পরিচালনা কমিটির হাতে। প্রথম হোক আর দ্বিতীয়, পরিচালনা কমিটি যে সিদ্ধান্ত নেবে সেটাই চূড়ান্ত। তিনি বলেন, উদ্দেশ্যমূলকভাবে রবীন্দ্রনাথ দাসের নিয়োগ আটকে রাখা হয়নি। নিয়োগ পরীক্ষার পর পরিচালনা কমিটির কোনো সভা হয়নি। এ কারণে নিয়োগের বিষয়টি ঝুলে আছে। দীন মোহাম্মদ বলেন, কোরবানির ঈদের পর স্থানীয় সাংসদ ও খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলামের উপস্থিতিতে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

সাভার উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কামরুন্নাহার বলেন, রবীন্দ্রনাথ দাস ইউএনওর কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তদন্তে পরিচালনা কমিটির কোনো ত্রুটি পাওয়া গেলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে সুপারিশ করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


পাঠকের মন্তব্যঃ ২টি

  1. বিধান সরকার says:

    শিক্ষাখাতকে বাঁচাতে হলে সব ধরনের নিয়োগে পরিচালনা কমিটির ক্ষমতা তুলে দিতে হবে ।

  2. saiful islam, santhia, pabna says:

    the power of managing committee should be controlled. every kind of appointment (headteacher, assistant headteacher etc)should be given by government .

আপনার মন্তব্য দিন