পাঁচ শিক্ষকের সন্দেহজনক বদলির আদেশ - বদলি - Dainikshiksha

পাঁচ শিক্ষকের সন্দেহজনক বদলির আদেশ

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি |

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে চট্টগ্রামের পাঁচ সহকারী শিক্ষককে বদলির সন্দেহজনক আদেশ দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। আদেশ হাতে পেয়ে শিক্ষকরা কর্মরত বিদ্যালয় থেকে ছাড়পত্র নিয়ে গত ১৫ দিনেও কোনো বিদ্যালয়ে যোগদান করতে পারেননি। আদেশের সঠিকতা যাচাইয়ের জন্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর চিঠি দিয়েছে চট্টগ্রাম জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস।

জানা গেছে, ১০ এপ্রিল প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পলিসি ও অপারেশনের পরিচালকের অফিসিয়াল ই-মেইল থেকে চট্টগ্রামের আঞ্চলিক উপপরিচালকের কার্যালয়ের অফিসিয়াল ই-মেইলে পাঁচ সহকারী শিক্ষকের বদলির আদেশ পাঠানো হয়। আদেশ পাওয়া শিক্ষকদের মধ্যে চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার সুখছড়ি রহমানিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রিমা দাসকে বদলি করা হয়েছে পাঁচশাইল উপজেলায় (যে কোনো স্কুলে)। ফটিকছড়ি উপজেলার পূর্ব ফরহাদাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক হাসিনা বেগমকে ডবলমুরিং উপজেলার মাদারবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। আনোয়ারা উপজেলার পূর্ব বোয়ালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক তাহমিনা ফেরদৌসীকে পাহাড়তলীর যে কোনো স্কুলে। বোয়ালখালী উপজেলার ২৮ নম্বর শাকপুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক বিলকিস আরা বেগমকে বদলি করা হয়েছে বন্দর উপজেলার দরবেশিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। এ ছাড়া আরও একজন শিক্ষককে বদলির আদেশ দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে চট্টগ্রাম জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নাসরিন সুলতানা বলেন, পাঁচ শিক্ষকের আদেশ উপপরিচালকের দপ্তরে পাঠানো হলেও জেলা এবং উপজেলা শিক্ষা অফিসে পাঠানো হয়নি। এ পরিস্থিতিতে শিক্ষকরা বদলির আদেশ নিয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে গেলে তাদের সন্দেহ হয়। তারা বিষয়টি জেলায় অবহিত করেন ও শিক্ষকদের যোগদান করতে দেননি। এর পর বদলির সঠিকতা যাচাইয়ের জন্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর চিঠি দিয়েছি এবং বিষয়টি নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাও গ্রহণের অনুরোধ জানানো হয়েছে।

চট্টগ্রামের আঞ্চলিক উপপরিচালক সুলতান মিয়া বলেন, ই-মেইল পেয়েছি। এই ই-মেইলের বিষয় নিয়ে অধিদপ্তরকে জানানো হয়েছে।

মেয়েদের কর্মসংস্থানে কারিগরি শিক্ষায় গুরুত্বারোপ প্রধানমন্ত্রীর - dainik shiksha মেয়েদের কর্মসংস্থানে কারিগরি শিক্ষায় গুরুত্বারোপ প্রধানমন্ত্রীর ৮৪১ তৃতীয় শিক্ষক এমপিওভুক্তিতে ২৫ কোটি টাকার চাহিদা - dainik shiksha ৮৪১ তৃতীয় শিক্ষক এমপিওভুক্তিতে ২৫ কোটি টাকার চাহিদা সরকারি চাকরি মেধাবীদের কাছে আকর্ষণীয় করতে বাজেটে বরাদ্দ বাড়ছে - dainik shiksha সরকারি চাকরি মেধাবীদের কাছে আকর্ষণীয় করতে বাজেটে বরাদ্দ বাড়ছে স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের মে মাসের এমপিওর চেক ব্যাংকে - dainik shiksha স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের মে মাসের এমপিওর চেক ব্যাংকে নতুন সূচিতে কোন জেলায় কবে প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা - dainik shiksha নতুন সূচিতে কোন জেলায় কবে প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি - dainik shiksha সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website