পাঠ্যবইয়ে ট্রাফিক নিয়মের পাঠ কতটা আছে? - বিবিধ - Dainikshiksha

পাঠ্যবইয়ে ট্রাফিক নিয়মের পাঠ কতটা আছে?

দৈনিক শিক্ষা ডেস্ক |

নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন শেষে আবার আগের চিত্রে ফিরে গেছে ঢাকা। রাস্তা জুড়ে আগের মতোই যানবাহনগুলোর এলোমেলো চলাফেরা, বাস ও গাড়িগুলোর অযথা হর্ন বাজানো তারমধ্যে পথচারীদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পার হওয়া তো আছেই।

অন্যান্য দেশে ট্রাফিক নিয়ম কানুনের বিষয়টি তাদের স্কুল পাঠ্যসূচীতে অন্তর্ভুক্ত থাকলেও বাংলাদেশের স্কুলের বইগুলোতে সেটা কতোটা আছে?

জানতে গিয়েছিলাম ঢাকার আজিমপুরের অগ্রণী স্কুল ও কলেজে। বাংলামাধ্যম এই স্কুলটির শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সড়কে নিরাপদ চলাচলের বিষয়ে তৃতীয় শ্রেণীতে একটি বিশেষ অধ্যায় এবং চতুর্থ শ্রেণীর ইংরেজি বইয়ে একটি ছড়া রয়েছে। এছাড়া অন্য ক্লাসগুলোর পাঠ্য বইয়ে এ সংক্রান্ত আর কোন বিষয়ে কিছুই উল্লেখ নেই।

রাস্তায় চলাচলের ক্ষেত্রে কি কি নিয়ম মানতে হবে সে বিষয়ে ক্লাস নিচ্ছিলের শিক্ষিকা আফরোজা আক্তার। তবে ট্রাফিক আইন মানতে শিশুদের ছোটবেলা থেকেই সচেতন করে তোলার ক্ষেত্রে এই শিক্ষা যথেষ্ট নয় বলে মনে করেন তিনি।

এতো ছোট বয়সে বাচ্চাদের এ বিষয়ে শেখানো হচ্ছে যে, সেই বিষয়গুলো বুঝে সেটা বাস্তবে প্রয়োগ করার মতো ম্যচুরিটি তাদের আসেনি। এ ব্যাপারে সচেতনতা সৃষ্টির জন্য ক্লাস টেন পর্যন্ত এই বিষয়গুলো বইয়ে থাকা উচিত।
আর শিক্ষকদেরও উচিত সচেতনতার সাথে সেগুলো পড়ানো।

এ ব্যাপারে স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ: রেজাউজ্জামান ভুইঁয়া জানান,  ট্রাফিক আইন সম্পর্কে জ্ঞান সবার কাছে পৌঁছাতে ক্ষেত্রে স্কুলের পাঠ্যপুস্তকে ট্রাফিক-সংক্রান্ত নিয়ম-কানুনগুলো সংযোজন করা জরুরি।

বাংলাদেশের বোর্ডের বইগুলোতে ট্রাফিক সংক্রান্ত পাঠ অনেক সীমিত।
তবে, এর চেয়ে কঠোর আইন প্রণয়নের পাশাপাশি আইনের সঠিক প্রয়োগ আরো বেশি জরুরি বলে মনে করেন তিনি। 
এই শিক্ষক আরো বলেন, ছোটবেলা থেকেই শিশুদের মূল্যবোধ শানিত করতে হয়। তাই ছোট থাকতেই যদি তাদের ট্রাফিকে এই নিয়ম কানুন সর্ম্পকে জানানো হয়, তাহলে সচেতনতা তার মগজে ঢুকে যাবে। তবে সরকারের পক্ষ থেকে কঠোর আইন প্রয়োগ করাটা এক্ষেত্রে আরো বেশি কাজে দেবে। যারা শহরের মধ্যে ইচ্ছামত গাড়ি চালাচ্ছে, রাস্তা পার হচ্ছে তারাই কিন্তু ক্যাটনমেন্ট এলাকায় আইন মেনে চলে। কারণ সেখানে নিয়ম ভাঙলে শাস্তি পেতে হয়।
কথা হয় গৃহিনী আঞ্জুমান আরার সঙ্গে। গৃহিনী এই নারী ট্রাফিকের নিয়ম কানুনের ব্যাপারে তার স্কুল জীবনে বইয়ে কিছু পড়েছিলেন কিনা এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি কিছুটা দ্বিধায় পড়ে যান। 
তিনি বলেন, অনেক আগের কথা মনে নাই। হয়তো ছিল, খেয়াল নেই। তবে আমি মনে করি এই বিষয়গুলো বইয়ে আরো বেশি করে রাখা উচিত ছিল। তাহলে হয়তো ভুলে যেতাম না।

ট্রাফিক নিয়মকানুন মেনে চলার বিষয়ে তার সঙ্গে কথা বলার এক পর্যায়ে তিনি নিজেই দেখিয়ে দেন জেব্রা ক্রসিং দিয়ে রাস্তা পার হওয়ার কথা বলা থাকলেও শহরের বেশিরভাগ জেব্রা ক্রসিং চলে যায় যানবাহনের চাকার নীচে।

এক্ষেত্রে তিনি নিজের মনে করেন মানুষকে সচেতন করে তুলতে ট্রাফিক নিয়ম মানার আগে নিয়ম জানাটা জরুরি।

এদিকে, স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ট্রাফিকের নিয়ম সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা দিতে বিষয়টি পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্তির নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এ ব্যাপারে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরে চিঠি দেয়া হয়েছে বলেও জানা গেছে।

সূত্রঃ বিবিসি বাংলা। 

মহাপরিচালকের চিকিৎসায় মানবিক সাহায্যের আবেদন - dainik shiksha মহাপরিচালকের চিকিৎসায় মানবিক সাহায্যের আবেদন সরকারি সুবিধা চান ৫৯ অতিক্রান্ত কলেজ শিক্ষকরা - dainik shiksha সরকারি সুবিধা চান ৫৯ অতিক্রান্ত কলেজ শিক্ষকরা সদ্য সরকারিকৃত ২৯৮ কলেজে সমন্বিত পদ সৃজনের সিদ্ধান্ত - dainik shiksha সদ্য সরকারিকৃত ২৯৮ কলেজে সমন্বিত পদ সৃজনের সিদ্ধান্ত বড় নিয়োগ আসছে প্রাক প্রাথমিকে - dainik shiksha বড় নিয়োগ আসছে প্রাক প্রাথমিকে একীভূত শিক্ষাব্যবস্থা: ৬৪ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তালিকা - dainik shiksha একীভূত শিক্ষাব্যবস্থা: ৬৪ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তালিকা একাডেমিক স্বীকৃতি পেল ৩০ প্রতিষ্ঠান - dainik shiksha একাডেমিক স্বীকৃতি পেল ৩০ প্রতিষ্ঠান পাঠ্যসূচিতে ট্রাফিক আইন থাকা উচিত: মুহম্মদ জাফর ইকবাল - dainik shiksha পাঠ্যসূচিতে ট্রাফিক আইন থাকা উচিত: মুহম্মদ জাফর ইকবাল চলতি দায়িত্বে থাকা প্রধান শিক্ষকদের পদোন্নতি শিগগিরই - dainik shiksha চলতি দায়িত্বে থাকা প্রধান শিক্ষকদের পদোন্নতি শিগগিরই দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website