পা দিয়ে লিখে জিপিএ-৫ - জেএসসি/জেডিসি - Dainikshiksha

পা দিয়ে লিখে জিপিএ-৫

কলাপাড়া প্রতিনিধি |

Belalদুই হাত নেই জন্ম থেকে। তারপরও সেই বেলাল আকন পা দিয়ে লিখে জেডিসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়েছে। পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণার পর বেলালের সাফল্যে এখন উচ্ছ্বসিত তার পরিবারসহ মাদ্রাসার শিক্ষক ও  সহপাঠীরা।

পটুয়াখালীর কলাপাড়ার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের উমেদপুর দাখিল মাদ্রাসা থেকে বেলাল জেডিসি পরীক্ষায় অংশ নেয়।

বেলালের পিতা খলিলুর রহমান আকন জানান, এই ছেলে তাদের গর্বিত করেছে। প্রতিবন্ধকতার কারনে যারা তাকে ঘরে রেখে যতœ করতে বলেছে, তারাই এখন বেলালের সাফল্যে আনন্দিত হয়ে মিষ্টি খাওয়াচ্ছে।

দূরের গ্রাম থেকে মানুষ বেলালকে দেখতে আসছে। সন্তানের সাফল্যে এর চেয়ে একজন বাবার কাছে আর কি খুশির খবর হতে পারে। কিন্তু ছেলের সাফল্যে মুখে হাসি ফুটে উঠলেও তার উচ্চ শিক্ষা নিয়ে চিন্তিত তিনি।

তিনি বলেন, এ্যাহনতো বাজানে বড় ক্লাসে ওডছে। অর এই ল্যাহাপড়ার খরচ মুই জোগামু ক্যামনে। আর মুইওতো বুড়া হইছি। কয়দিন আর কান্দে কইর‌্যা অরে মাদ্রাসায় লইয়া যামু। একটা ঠ্যালা চেয়ার (হুইলচেয়ার) কেনতে পারলে ভালো হইতো। কিন্তু হেইয়ার তো অনেক দাম হুনছি,কিনমু ক্যামনে।

জন্ম থেকেই দুই হাত নেই। বেলালের বয়স যখন চার তখন পায়ের আঙ্গুলের ফাঁকে চক গুঁজে কাঠের পিড়িতে অ আ ক খ লেখা শেখানের চেষ্টা করেন তার মা হোসেনেয়ারা বেগম।

প্রতিবন্ধকতা থাকলেও পা দিয়েই দ্রুত আদর্শলিপি শিখে ফেলায় তাকে স্কুলে ভর্তি করানোর উদ্যেগ নেয়া হয়। মায়ের ইচ্ছা ও কষ্টের ফল হিসেবে বেলাল জেডিসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়েছে এ অভিমত মাদ্রাসার শিক্ষক ও এলাকাবাসীর।

বেলালের মা হোসেনেয়ারা বেগম জানান,“ বেলাল মোর কুদরতি পোলা। খোদার রহমত আছে দেইখ্যা মোর বাজান এ্যাতো ভালো পাস করছে। সবাই অরে ভালো পায়। অরে সব ল্যাহাপড়া শেখানোর ইচ্ছা। কিন্তু ভয় হয়,অরে কিছু না কইর‌্যা যাইতে পারলে ও ক্যামনে চলবে”।

উমেদপুর ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাওলানা হাবিবুর রহমান জানান, বেলাল এই মাদ্রাসার সুনাম বৃদ্ধি করেছে। আমাদের গর্বিত করেছে। বেলালের কারনে দেশ-বিদেশের মানুষ এই মাদ্রাসার নাম জানে।

পত্রিকায় অনেক নিউজ হইছে বেলালকে নিয়ে। তারাও খুব যতœ নিয়ে বেলালকে উচ্চ শিক্ষার সিড়ি বেয়ে উঠতে সহায়তা করছেন। তবে আর্থিক সংকটে বেলালের পরিবার আর কত দূর তাকে পড়াতে পারবে তার উপর নির্ভর করছে বেলালের ভবিষত।


মহাপরিচালকের চিকিৎসায় মানবিক সাহায্যের আবেদন - dainik shiksha মহাপরিচালকের চিকিৎসায় মানবিক সাহায্যের আবেদন সরকারি সুবিধা চান ৫৯ অতিক্রান্ত কলেজ শিক্ষকরা - dainik shiksha সরকারি সুবিধা চান ৫৯ অতিক্রান্ত কলেজ শিক্ষকরা সদ্য সরকারিকৃত ২৯৮ কলেজে সমন্বিত পদ সৃজনের সিদ্ধান্ত - dainik shiksha সদ্য সরকারিকৃত ২৯৮ কলেজে সমন্বিত পদ সৃজনের সিদ্ধান্ত বড় নিয়োগ আসছে প্রাক প্রাথমিকে - dainik shiksha বড় নিয়োগ আসছে প্রাক প্রাথমিকে একীভূত শিক্ষাব্যবস্থা: ৬৪ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তালিকা - dainik shiksha একীভূত শিক্ষাব্যবস্থা: ৬৪ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তালিকা একাডেমিক স্বীকৃতি পেল ৩০ প্রতিষ্ঠান - dainik shiksha একাডেমিক স্বীকৃতি পেল ৩০ প্রতিষ্ঠান পাঠ্যসূচিতে ট্রাফিক আইন থাকা উচিত: মুহম্মদ জাফর ইকবাল - dainik shiksha পাঠ্যসূচিতে ট্রাফিক আইন থাকা উচিত: মুহম্মদ জাফর ইকবাল চলতি দায়িত্বে থাকা প্রধান শিক্ষকদের পদোন্নতি শিগগিরই - dainik shiksha চলতি দায়িত্বে থাকা প্রধান শিক্ষকদের পদোন্নতি শিগগিরই দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website