প্রকৃত শিক্ষার্থীদের জন্য সহজ হচ্ছে বৃটেন - বিবিধ - Dainikshiksha

প্রকৃত শিক্ষার্থীদের জন্য সহজ হচ্ছে বৃটেন

দৈনিক শিক্ষা ডেস্ক |

বৃটেনে বাংলাদেশ থেকে যাওয়া প্রকৃত শিক্ষার্থীরা ‘সুদিন’ ফিরে পাওয়ার অপেক্ষায় প্রহর গুনতে শুরু করেছেন। সম্প্রতি দেশটির পরিবর্তনশীল নেতৃত্ব প্রকৃত শিক্ষার্থীদের ভিসা সহজীকরণ এবং অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা বাড়ানোর অঙ্গীকার করছেন। আদতে এটি হলে ফের শিক্ষার্থীরা পড়াশোনা শেষে দু’বছর পর্যন্ত দেশটিতে থাকা এবং কর্মের সুবিধা পাবেন। এটি বাংলাদেশসহ এ অঞ্চলের শিক্ষার্থীরাই বেশি লাভবান হবেন। বৃটেনও ভিন দেশি মেধাবীদের কাজে লাগানোর সূযোগ নিতে চাইছে। সূত্র মতে, বৃটেনের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে থাকা দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ এরইমধ্যে বিদেশি শিক্ষার্থীদের ভিসা সহজীকরণের অঙ্গীকার করেছেন। তার মন্তব্যটি ছিল এমন ‘বৃটেনের বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়াশোনা শেষ করা বিদেশি শিক্ষার্থীদের কাজ করতে বাধা দেয়ার কোনো মানে নেই।’ গত শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে দলীয় নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে। নতুন নেতা নির্বাচিত না হওয়া পযন্ত প্রধানমন্ত্রী পদে বহাল থাকলেও ব্রেক্সিট প্রশ্নে তার কোনও নিয়ন্ত্রণ থাকবে না।

থেরেসার স্থলাভিষিক্ত হওয়ার দৌড়ে ১১ জন কনজারভেটিভ এমপির মধ্যে এগিয়ে রয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ। ফিন্যানসিয়াল টাইমসে প্রকাশিত এক রিপোর্ট বলছে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তাদের বলেছেন, বিশ্বের অন্যতম মেধাবী ও সম্ভাবনাময় মানুষগুলোকে পড়াশোনার পর দেশে পাঠিয়ে দেয়ার কোনো মানে হয়না। এছাড়া গবেষণ। প্রতিষ্ঠান বৃটিশ ফিউচার আয়োজিত এক অনুষ্ঠানেও তিনি প্রায় অভিন্ন মন্তব্য করেছেন। বিদেশী শিক্ষার্থীদের তিনি বৃটেনে পড়াশোনা ও কাজ করার ব্যাপারে উৎসাহিত করে চলেছেন। সাজিদ জাভিদ বলেন, আমি চাই আমাদের দেশে আরও বিদেশি শিক্ষার্থী আসুক। তারা আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ভর্তি হয়ে পড়াশোনা করুক এবং এরপর কাজ করুক।

আমাদের তাদের থাকা ও কাজের পরিবেশ সহজ করা উচিত। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ওই বক্তব্যকে সাবেক মন্ত্রী জো জনসন স্বাগত জানান। তিনি ও গত এপ্রিলে এমন আইন করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন যেন বিদেশি শিক্ষার্থীরা পড়াশোনা শেষে কাজ করতে পারে। পড়াশোনার পর শিক্ষার্থীদের বাড়তি ২ বছর সময় দেয়ার প্রস্তাবও দেন তিনি। এক টুইটবার্তায় তিনি বলেন, অভিবাসন বিল নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আমার প্রস্তাবে সাড়া দিয়েছেন। কতৃপক্ষ নমনীয় হলেই প্রকৃত জয় আসবে। এদিকে জো জনসনের ভাই বরিস জনসনও প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌঁড়ে রয়েছেন। তবে তারা এই সংশোধনী প্রস্তাবে ইউরোপীয় শিক্ষার্থীদের কথা নির্দিষ্ট করে বলা থাকলেও বিশেষজ্ঞরা মনে করেন এই সুবিধা সব শিক্ষার্থীরাই পাবেন। ইউনিভার্সিটিস ইউকে ইন্টারন্যাশনালের পরিচালক ভিভিয়েন স্টার্ন বলেন, এই বিল অনুযায়ী শুধু ইউরোপের শিক্ষার্থদের কথা বলা হলেও ব্রেক্সিট কার্যকর হলে সব দেশের শিক্ষার্থীই এ সুবিধা পাবে। তিনি বলেন, বৃটেনে সবসময়ই শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার বিষয় অনুযায়ী তালিকা করে। তাদের থাকার সুবিধা বাড়ানো হলে নিশ্চিতভাবেই এই সংখ্যা আরও বাড়বে। ২০১২ সালে তেরেসা মে যখন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন তখন পড়াশোনার পর দুই বছর বাড়তি থাকার এই সুবিধা বাতিল করা হয়। তখন থেকেই বিদেশি শিক্ষার্থীদের সংখ্যা কমতে থাকে। বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জাভিদের সামপ্রতিক বক্তব্য থেকে এটা স্পষ্ট যে কনজারভেটিভ নেতার মতো করে তিনি ভাবতে চান না। তেরেসা মে ভিসার ওপর কড়াকড়ি করার নীতি অবলম্বন করলেও তিনি একমত নন। তিনি আশা করেন ভিসা সহজ করলে আবারও দেশটিতে বিদেশি শিক্ষার্থীর সংখ্যা বাড়তে শুরু করবে। 

মাদরাসা শিক্ষকদের নতুন এমপিওভুক্তির কার্যক্রম স্থগিত - dainik shiksha মাদরাসা শিক্ষকদের নতুন এমপিওভুক্তির কার্যক্রম স্থগিত প্রাথমিকের বেতন বৈষম্য : প্রধানমন্ত্রীই একমাত্র ভরসা - dainik shiksha প্রাথমিকের বেতন বৈষম্য : প্রধানমন্ত্রীই একমাত্র ভরসা বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা ১৪ অক্টোবর - dainik shiksha বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা ১৪ অক্টোবর এইচএসসি পরীক্ষার সূচি প্রকাশ - dainik shiksha এইচএসসি পরীক্ষার সূচি প্রকাশ কোন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কবে ভর্তি পরীক্ষা, এক নজরে - dainik shiksha কোন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কবে ভর্তি পরীক্ষা, এক নজরে শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website