প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ - বিবিধ - Dainikshiksha

সহকারী গ্রন্থাগারিক পদে নিয়োগপ্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

নড়াইল প্রতিনিধি |

নড়াইলের জুড়ালিয়া জেবিএম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মোটা অঙ্কের অর্থের বিনিময়ে ভুয়া সনদে সহকারী গ্রন্থাগারিক পদে সবুজ বিশ্বাসকে নিয়োগ দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। সে নড়াইল সদর উপজেলার মাইজপাড়া ইউনিয়নের কোদলা গ্রামের সুকুমার বিশ্বাসের ছেলে। সবুজ খুলনার ইন্সটিটিউট অব এডুকেশন লাইব্রেরি অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট (ইলাম) নামের প্রতিষ্ঠানে লাইব্রেরি সায়েন্সে ভর্তি হয়েছে। ম্যানেজিং কমিটির সদস্যসহ এলাকাবাসী ভুয়া সনদে এ নিয়োগ দেয়ার ব্যাপারে যথাযথ কর্তৃপক্ষের তদন্ত সাপেক্ষে প্রধান শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

জানা গেছে, প্রধান শিক্ষক মোসলেহ উদ্দিন অর্থের বিনিময়ে সবুজ বিশ্বাস নামে এক ব্যক্তিকে সহকারী গ্রন্থাগারিক পদে নিয়োগ দিয়েছেন। সবুজ বিশ্বাস খুলনার ইন্সটিটিউট অব এডুকেশন লাইব্রেরি অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট (ইলাম) নামের প্রতিষ্ঠানে ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে লাইব্রেরি সায়েন্সে ভর্তি হয়েছে। সে প্রথম বর্ষের একজন ছাত্র বলে গুঞ্জন উঠেছে। প্রধান শিক্ষক মোসলেহ তাকে রয়েল ইউনিভার্সিটির একটি সনদ জোগাড় করে দিয়েছেন। মোটা অঙ্কের অর্থের বিনিমিয়ে ভুয়া সনদে সহকারী গ্রন্থাগারিক পদে এ নিয়োগ দিয়েছেন।

নিয়োগে আবেদনকারী নড়াইল পৌরসভার মহিষখোলা এলাকার হাবিবা সুলতানা ও সদরের মালিডাঙ্গা গ্রামের জাহিদ হোসেন জানান, দুর্নীতিবাজ প্রধান শিক্ষক তাদেরসহ অনেককে ইন্টারভিউ কার্ড দেননি। আবার অনেককে আবেদন করতে নিষেধ করেছেন। তার বিরুদ্ধে ম্যানেজিং কমিটির আইনগত ব্যবস্থা নেয়া উচিত। এ নিয়োগে ১৩ লাখ টাকা লেনদেন করা হয়েছে বলে তাদের অভিযোগ।

ম্যানেজিং কমিটির সদস্য জুড়ালিয়া গ্রামের বাসিন্দা মিকাইল হোসেন মোল্যা জানান, ২৫ মে সহকারী গ্রন্থাগারিক পদে নিয়োগ পরীক্ষা হওয়ার ব্যাপারে তিনি কিছুই জানেন না। নিয়োগ সংক্রান্ত ম্যানেজিং কমিটির সভায় সব সদস্যকে অবহিত করা হয়নি। প্রধান শিক্ষক অনিয়ম করে নিয়োগ দেয়ার জন্যই কমিটির সবাইকে নিয়োগের বিষয়ে অবগত করেননি। প্রধান শিক্ষক মোটা অঙ্কের টাকায় নিয়োগ বোর্ডকে ম্যানেজ করে সবুজকে নিয়োগ পরীক্ষায় প্রথম করিয়েছেন। প্রধান শিক্ষক মোসলেহ উদ্দিন এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘বিধি মোতাবেক নিয়োগ পরীক্ষা হয়েছে। যিনি পরীক্ষায় প্রথম হয়েছেন তাকে নিয়োগ দেয়া হচ্ছে। তার সনদ ভুয়া কিনা, এ বিষয়ে কিছুই জানি না। তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।’

চলতি দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকদের ভাতা দেয়ার আদেশ জারি - dainik shiksha চলতি দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকদের ভাতা দেয়ার আদেশ জারি এইচএসসির ফল প্রকাশ হতে পারে ২১ জুলাই - dainik shiksha এইচএসসির ফল প্রকাশ হতে পারে ২১ জুলাই বরিশাল বোর্ডে কর্মচারীদের দুই গ্রুপের হাতাহাতি - dainik shiksha বরিশাল বোর্ডে কর্মচারীদের দুই গ্রুপের হাতাহাতি রায় অমান্য করে মাছুমকে টাইমস্কেল: বরিশাল বোর্ড কর্মচারীদের বিক্ষোভ - dainik shiksha রায় অমান্য করে মাছুমকে টাইমস্কেল: বরিশাল বোর্ড কর্মচারীদের বিক্ষোভ ৩০ জুলাইয়ের মধ্যে তুলতে হবে উচ্চ মাধ্যমিকের উপবৃত্তি - dainik shiksha ৩০ জুলাইয়ের মধ্যে তুলতে হবে উচ্চ মাধ্যমিকের উপবৃত্তি প্রকল্পের ৬৩ কর্মচারীকে রাজস্বখাতে পদায়ন - dainik shiksha প্রকল্পের ৬৩ কর্মচারীকে রাজস্বখাতে পদায়ন শিক্ষকের বেতের আঘাতে চোখ হারাল মাদরাসাছাত্র - dainik shiksha শিক্ষকের বেতের আঘাতে চোখ হারাল মাদরাসাছাত্র জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স ভর্তির যোগ্যতা নির্ধারণ - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স ভর্তির যোগ্যতা নির্ধারণ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website