প্রধান শিক্ষক পদায়নে জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘনের অভিযোগ - স্কুল - Dainikshiksha

প্রধান শিক্ষক পদায়নে জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘনের অভিযোগ

নীলফামারী প্রতিনিধি |

নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে পদায়নের জন্য সুপারিশ করতে গিয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছে। বঞ্চিত সহকারী শিক্ষকরা বলেছেন, তালিকার প্রথম দিকে নাম থাকলেও ঠুনকো অজুহাতে তাদের বাদ দিয়েও নিজের পছন্দ মতো একজনের নাম প্রধান শিক্ষক হিসেবে সুপারিশ করে পাঠিয়েছেন শিক্ষা কর্মকর্তা। 

সহকারী শিক্ষকের জ্যেষ্ঠতার তালিকায় ৫ নম্বরে থাকা চিকনমাটি দোলাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সুরাইয়া বিলকিস বলেন, আমার নাম বাদ দেয়া হয়েছে আর আমার নামের পাশে মন্তেব্যের ঘরে লেখা হয়েছে, ‘ইতিপূর্বে একাধিকবার দায়িত্ব নিতে অসম্মতি জানিয়েছেন সুরাইয়া বিলকিস।’
সুরাইয়া বিলকিস বলেন, ‘একটা সময় আমার সাময়িক অসুবিধা থাকায় দায়িত্ব নিতে চাইনি। তবে পরবর্তী সময়ে তা প্রত্যাহার করে দায়িত্ব নেওয়ার বিষয়ে সম্মতি জানিয়েছি। চলতি দায়িত্বে প্রধান শিক্ষকের পদ থেকে আমাকে বাদ দেওয়ার জন্য শিক্ষা কর্মকর্তা ওই মনগড়া কথাটি লিখেছেন। এ ব্যাপারে গত ২৮ আগস্ট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে আমি অভিযোগ দাখিল করেছি।’

একই ধরনের অভিযোগ করেন তালিকার ৭ নম্বরে থাকা হলহলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নূরজাহান বেগম ও ১১ নম্বরে থাকা মিরজাগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মাগফেরা বেগম।

তাঁরা বলেন, সাময়িক অসুবিধার জন্য তাঁরা একটা সময় দায়িত্ব নিতে অসম্মতি জানিয়েছিলেন। এখন সে সমস্যা কেটে গেছে। এরপর এ বিষয়ে আবেদন করলে ২০১৭ সালের ৪ জুনের জ্যেষ্ঠতার তালিকায় ‘পূর্বের অসম্মতি এবং পরবর্তীতে সম্মতি’ কথাটি উল্লেখসহ তাঁদের নাম আসে। এর পরও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা চলতি দায়িত্বে প্রধান শিক্ষক হিসেবে পদায়নে তাঁদের তালিকা থেকে বাদ দিয়েছেন।

বঞ্চিতরা জানান, উপজেলা থেকে ১৩৩ জন জ্যেষ্ঠ সহকারী শিক্ষকের নাম পাঠানো হয়। এর মধ্যে ৬৫ জনের চলতি দায়িত্বে প্রধান শিক্ষকের পদে পদায়নের অনুমতি আসে।

এ বিষয়ে গত বৃহস্পতিবার উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আমির হোসেন বলেন, ‘আমি মিটিংয়ে আছি, পরে কথা বলব।’ পরে তাঁর মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ওসমান গণি বলেন, ‘অভিযোগের বিষয়টি মন্ত্রণালয়কে জানানো হবে। আশা করি, পরবর্তী সময়ে তাঁদের দায়িত্ব পাওয়ার সুযোগ থাকবে।’

এইচএসসির টেস্ট পরীক্ষার ফল ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকাশের নির্দেশ - dainik shiksha এইচএসসির টেস্ট পরীক্ষার ফল ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকাশের নির্দেশ ১ জুলাই থেকে পাঁচ শতাংশ ইনক্রিমেন্ট কার্যকরের আদেশ অর্থ মন্ত্রণালয়ের - dainik shiksha ১ জুলাই থেকে পাঁচ শতাংশ ইনক্রিমেন্ট কার্যকরের আদেশ অর্থ মন্ত্রণালয়ের বিজয় দিবসে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার নির্দেশ - dainik shiksha বিজয় দিবসে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার নির্দেশ স্ত্রীর মৃত্যুতে আজীবন পেনশন পাবেন স্বামী - dainik shiksha স্ত্রীর মৃত্যুতে আজীবন পেনশন পাবেন স্বামী বদলে যাচ্ছে বাংলা বর্ষপঞ্জি - dainik shiksha বদলে যাচ্ছে বাংলা বর্ষপঞ্জি ২০ হাজার টাকায় শিক্ষক নিবন্ধন সনদ বিক্রি করতেন তারা - dainik shiksha ২০ হাজার টাকায় শিক্ষক নিবন্ধন সনদ বিক্রি করতেন তারা অকৃতকার্য ছাত্রীকে ফের পরীক্ষায় বসতে দেয়ার নির্দেশ - dainik shiksha অকৃতকার্য ছাত্রীকে ফের পরীক্ষায় বসতে দেয়ার নির্দেশ আইডিয়াল স্কুলে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু - dainik shiksha আইডিয়াল স্কুলে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু নির্বাচনের সঙ্গে পেছাল সরকারি স্কুলের ভর্তি - dainik shiksha নির্বাচনের সঙ্গে পেছাল সরকারি স্কুলের ভর্তি শিক্ষকদের অন্ধকারে রেখে দেড় লাখ কোটি টাকার প্রকল্প! - dainik shiksha শিক্ষকদের অন্ধকারে রেখে দেড় লাখ কোটি টাকার প্রকল্প! দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website