প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বায়োমেট্রিক হাজিরা! - মতামত - Dainikshiksha

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বায়োমেট্রিক হাজিরা!

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

শিক্ষা অফিস, হাই স্কুল ও কলেজসহ সরকারি অফিসগুলোতে বায়োমেট্রিক হাজিরা চালু না করে সর্বপ্রথম এবং সার্বিকভাবে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বায়োমেট্রিক হাজিরা চালু করার সিদ্ধান্ত প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য অপমানজনক। বুধবার (১২ জুন) ইত্তেফাক পত্রিকায় প্রকাশিত এক নিবন্ধে এ তথ্য জানা যায়। নিবন্ধটি লিখেছেন মাহফিজুর রহমান মামুন।

মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা অর্জন করতে হলে সর্বপ্রথম শিক্ষকদের মধ্যে বিদ্যমান হতাশা দূর করে তাঁদের পাঠদানে আরো আন্তরিকতা সৃষ্টি করতে হবে। আর শিক্ষকদের উত্সাহ দেওয়ার জন্য সবার আগে তাঁদের দীর্ঘদিনের ন্যায্য দাবিগুলো পূরণ করা উচিত। যেমন প্রধানশিক্ষকদের ১০ম ও সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডসহ সহকারী শিক্ষককে এন্ট্রিপদ ধরে সিনিয়রিটি ও বিভাগীয় পরীক্ষার মাধ্যমে অন্তত পরিচালক পর্যন্ত শতভাগ পদোন্নতি প্রদান করা। পাশাপাশি বিদ্যালয়ের দীর্ঘ সময়সূচি কমিয়ে সকাল ১০টা থেকে ৩টা পর্যন্ত নির্ধারণ। তারপরে বায়োমেট্রিক হাজিরা চালু করা হলে কোনো শিক্ষক সামান্যতম আপত্তি করবেন না, বরং শিক্ষকরা মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা অর্জন করতে নিজেরাই ১০০% সচেষ্ট থাকবেন। কর্তৃপক্ষকে এটা বুঝতে হবে যে, শিক্ষকদের মধ্যে হতাশা থাকলে যত কিছুই করা হোক না কেন কোনোদিন মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করা সম্ভব নয়।


সহকারী শিক্ষক, বোদা, পঞ্চগড়

একাদশে ভর্তি: ২য় দফার আবেদন শুরু - dainik shiksha একাদশে ভর্তি: ২য় দফার আবেদন শুরু বিসিএসেও তৃতীয় পরীক্ষক চালু - dainik shiksha বিসিএসেও তৃতীয় পরীক্ষক চালু ডিগ্রি ২য় বর্ষ পরীক্ষার ফরম পূরণের সময় বাড়লো - dainik shiksha ডিগ্রি ২য় বর্ষ পরীক্ষার ফরম পূরণের সময় বাড়লো জিপিএ-৫ বিলুপ্তির পর যেভাবে হবে নতুন গ্রেড বিন্যাস - dainik shiksha জিপিএ-৫ বিলুপ্তির পর যেভাবে হবে নতুন গ্রেড বিন্যাস পাবলিক পরীক্ষার গ্রেড: যা আছে আর যা হবে - dainik shiksha পাবলিক পরীক্ষার গ্রেড: যা আছে আর যা হবে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় কঠোর নজরদারির নির্দেশ গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় কঠোর নজরদারির নির্দেশ গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর শিক্ষক নিবন্ধন: ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিষয়ের নতুন সিলেবাস দেখুন - dainik shiksha শিক্ষক নিবন্ধন: ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিষয়ের নতুন সিলেবাস দেখুন সার্টিফিকেট ছাপার আগেই ২ কোটি টাকা তুলে নিলেন ছায়েফ উল্যাহ - dainik shiksha সার্টিফিকেট ছাপার আগেই ২ কোটি টাকা তুলে নিলেন ছায়েফ উল্যাহ রাজধানীর সকল ফার্মেসি থেকে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ এক মাসের মধ্যে সরিয়ে নিতে হবে: হাইকোর্ট - dainik shiksha রাজধানীর সকল ফার্মেসি থেকে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ এক মাসের মধ্যে সরিয়ে নিতে হবে: হাইকোর্ট জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া  - dainik shiksha please click here to view dainikshiksha website