please click here to view dainikshiksha website

প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় স্কুল ছাত্রীকে পিটিয়ে আহত

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি | ডিসেম্বর ১১, ২০১৭ - ১০:২৮ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

প্রেমের প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় বগুড়ার ধুনট উপজেলায় এক স্কুলছাত্রীকে জোর করে তুলে নিয়ে গিয়ে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে মাদকাসক্ত এক বখাটে যুবকের বিরুদ্ধে।

আজ সোমবার (১১ই ডিসেম্বর) বিকেল তিনটার দিকে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে। এ সময় বখাটে যুবক ওই ছাত্রীর বাড়িতে ভাঙচুর করে বলে জানা গেছে। ঘটনার আধা ঘণ্টা পর গ্রামবাসীর সহযোগিতায় বখাটের হাত থেকে স্কুলছাত্রীকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

স্কুলছাত্রীর পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ভুতবাড়ি গ্রামের হবিবর রহমানের মাদকাসক্ত ছেলে আকুল হোসেন (১৯) চার বছর আগে ওই ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দেন। তাঁর প্রস্তাবে সাড়া না দেওয়ায় ওই ছাত্রীকে নানাভাবে উত্ত্যক্ত করতে থাকেন আকুল হোসেন। একপর্যায়ে আকুলের অত্যাচারে ওই ছাত্রীকে লেখাপাড়ার জন্য নানার বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। পরীক্ষা শেষ করে পাঁচ দিন আগে সে বাবার বাড়িতে এলে আবারও আকুল উত্ত্যক্ত করা শুরু করেন। সোমবার বিকেলে ওই ছাত্রীর মা-বাবার অনুপস্থিতির সুযোগ নিয়ে আকুল কয়েকজন সহযোগী নিয়ে ওই ছাত্রীর বাড়িতে গিয়ে ভাঙচুর করে তাকে তুলে নিজ বাড়িতে নিয়ে আটকে রেখে মারধর ও শ্লীলতাহানির চেষ্টা চালান। এ সময় ছাত্রীর চিৎকারে গ্রামবাসী ছুটে গিয়ে জিম্মিদশা থেকে মেয়েটিকে উদ্ধার করে। আকুলের মারপিটে আহত হওয়ায় তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তাসনিম আহাদ সুলতানা বলেন, ওই ছাত্রীর শরীরে মারধর ও আঘাতের চিহ্ন আছে। তাকে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ওই ছাত্রীর বাবা বলেন, ‘আকুলের অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে লেখাপড়ার জন্য মেয়েকে তার নানার বাড়িতে পাঠিয়েছি। সেখানে গিয়েও আকুল তাকে উত্ত্যক্ত করত। এ বিষয়ে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কাছে অভিযোগ দিয়েছিলাম। কিন্তু তার বিচার করতে পারেনি। এ জন্য গোপনে অন্য একটি ছেলের সঙ্গে মেয়ের বিয়ে দিয়েছি। তবে আনুষ্ঠানিকতা করিনি। দুজনের লেখাপড়া শেষে সব আনুষ্ঠানিকতা করা হবে। বিয়ের কথার শোনার পর আকুল ক্ষুব্ধ হয়ে আমার মেয়েকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে মারধর করেছে এবং ঘরবাড়ি ভেঙে দিয়েছে।’

ইউপি চেয়ারম্যান বেলাল হোসেন তালুকদার বলেন, এ ব্যাপারে তাঁকে এখনো কেউ কিছু জানায়নি। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখা হবে।

ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, এ ধরনের ঘটনার কথা আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে দোষীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ঘটনার পর থেকে আকুল পলাতক রয়েছে বলে জানা গেছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


আপনার মন্তব্য দিন