please click here to view dainikshiksha website

বইমেলায় দর্শনার্থী বাড়লেও ক্রেতা কম

নিজস্ব প্রতিবেদক | ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৮ - ৯:৩০ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

অমর একুশে গ্রন্থমেলায় দর্শনার্থীর সংখ্যা বাড়লেও ক্রেতার সংখ্যা কম। তবে প্রতিদিনই নতুন নতুন বই আসছে। গ্রন্থমেলায় ১২তম দিনে নতুন বই এসেছে ১২৮টি। বইয়ের সংখ্যা বাড়লেও সে অনুপাতে বাড়ছেনা বেচাকেনা। এমনটাই জানিয়েছেন প্রকাশকরা।

জোনাকী প্রকাশনার কর্ণধার মনজুরুল ইসলাম জানান, ‘মানুষ আসছে ঠিকই কিন্তু সবাই বই কিনছেন না। তিনি আরও বলেন, বইমেলায় এসেও বইয়ের পরিবর্তে সবাই স্মার্ট ফোন নিয়ে ব্যস্ত।’

পার্ল প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী হাসান জাহাদী বলেন, ‘মেলার ১২তম দিনেও বেচাকেনা দেখে মনে হচ্ছে মেলা এখনও প্রাণ ফিরে পায়নি। তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন, ধীরে ধীরে মেলায় বেচাকেনা বাড়বে। ইত্যাদি প্রকাশনীর বিক্রয়কর্মী মিজানও বললেন একই কথা।

নতুন বই: গ্রন্থমেলায় ১২তম দিনে নতুন বই এসেছে ১২৮টি। এগুলোর মধ্যে গল্পের বই ৬টি, উপন্যাস ৮টি, প্রবন্ধ ২টি, কবিতার বই ১৫টি, গবেষণা গ্রন্থ ২টি, ছড়ার বই ৩টি, শিশুতোষ ৫টি, জীবনীগ্রন্থ ২টি, রচনাবলী ১টি, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক বই ২টি, বিজ্ঞানের বই ৩টি, ভ্রমণ সাহিত্য ২টি, ইতিহাস গ্রন্থ ৫টি, রাজনীতির বই ১টি, চিকিৎসার বই ২টি, রম্য রচনা ১টি, অনুবাদ গ্রন্থ ৩টি, সায়েন্স ফিকশন ৩টি এবং অন্যান্য বই ১০টি। এরমধ্যে বাংলা একাডেমী এনেছে মন্জরুল হকের “পূর্ব বাংলার সাত দশকের কমিউনিস্ট রাজনীতি”, ড. মাহফুজুর রহমানের “রোহিঙ্গা সমস্যা ও বাংলাদেশ”, অনিমেষ আইচের ‘শহরের বারে একদল মাতাল’ম কাজী ফজলুর রহমানের ‘ স্মৃতি অমলিন’, অরপি আহমেদের ‘আগুনমুখা’।

মোড়ক উম্মোচন: মেলায় আজ ৩০টি বইয়ের মোড়কে উম্মোচন করা হয়েছে। এগুলোর মধ্যে প্রিন্সিপাল মোনায়েমের ‘মনোবিজ্ঞানীর মতে ভালো ছাত্র হওয়ার কৌশল’, আনোয়ার কবিরের ‘নিষিদ্ধ বাতাস’, মাহমুদা খানমের ‘তুমি রবে নিরবে’, অনুপ বড়ুয়ার ‘প্রজন্ম তোমার জন্য’, অ্যাডভোকেট তানজিনা আক্তারের ‘নারী এগিয়ে যাচ্ছে’। অ্যাডভোকেট তানজিনা আক্তারের ‘নারী এগিয়ে যাচ্ছে’ বইটির মোড়ক উম্মোচন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন তাজুল ইসলাম এমপি।

মূলমঞ্চের আয়োজন: মেলা চলে বিকেল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত। বিকেল ৪টায় গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় শিক্ষা শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আবুল মোমেন। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন রাশেদা কে চৌধুরী, আতিউর রহমান ও এ এম মাসুদুজ্জামান। মূল প্রবন্ধ পাঠের সময় আবুল মোমেন বলেন, শিক্ষা প্রতিনিয়ত নবায়িত হচ্ছে। এর পরিধি ব্যপক। তিনি আরও বলেন, শিক্ষা মানুষের মৌলিক অধিকার। এ অধিকার থেকে যাতে কেউ বঞ্চিত না হয় সেদিকে দৃষ্টি দিতে হবে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মনজুর আহমেদ। সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


আপনার মন্তব্য দিন