বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে বৈষম্যহীন দেশের স্বপ্নকে হত্যা করা হয়েছিল : শিক্ষামন্ত্রী - বিবিধ - দৈনিকশিক্ষা

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে বৈষম্যহীন দেশের স্বপ্নকে হত্যা করা হয়েছিল : শিক্ষামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক |

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করার মাধ্যমে শোষণ-বৈষম্যহীন অসাম্প্রদায়িক দেশের যে স্বপ্ন নিয়ে বাংলাদেশকে স্বাধীন করা হয়েছিল সে স্বপ্নকে হত্যা করা হয়েছিল। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেই তারা ক্ষান্ত হননি সংবিধান পরিবর্তন করে তারা বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনিদেরকে বাংলাদেশে রাজনীতি করার সুযোগ করে দিয়ে বহুদলীয় গণতন্ত্রের লেবাস দিয়েছিলেন। মানুষের সব অধিকার সেদিন কেড়ে নেয়া হয়েছিল। স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সাথে সম্পর্কিত সবকিছুকে সেদিন নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। জয় বাংলা, বঙ্গবন্ধু ও ৭ ই মার্চের ভাষণ সেদিন নিষিদ্ধ ছিল। আজকে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে তাদের মায়াকান্না সত্যিই হাস্যকর।

আজ শনিবার (১৫ আগস্ট) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাত বার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শাখা কৃষক লীগ আয়োজনে স্বেচ্ছায় রক্তদান ও মৌসুমী ফল বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী।

তিনি আরও বলেন, সামরিক শাসক আইয়ুব খানের অত্যাচার নির্যাতনের বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্য বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করেছিল। জিয়াউর রহমান আবার সেই বাংলাদেশে সেনা শাসনের জগদ্দলের পাথর চাপিয়ে দিয়েছিল। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগকে নেতৃত্বশূন্য করতে বারবার ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল, ষড়যন্ত্র এখনো চলছে। বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ২১ বার হত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছে। 

কৃষি ক্ষেত্রে আওয়ামী লীগের সাফল্যের কথা বলতে গিয়ে ডা. দীপু মনি বলেন, সাড়ে সাত কোটি মানুষের বাংলাদেশে যখন জমি ছিল বেশি তখন প্রয়োজনের মাত্র ৬০ শতাংশ খাদ্য আমরা উৎপাদন করতে পারতাম। কিন্তু আজ আমাদের জমি কমে গেছে। মানুষ হয়েছে দ্বিগুণ। তারপর লও জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা আজ নিজেদের খাদ্য চাহিদা মিটিয়ে খাদ্য উদ্বৃত্ত দেশে পরিণত হয়েছি।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ বাংলাদেশ দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। করোনার এই মহামারীর সময়ে ও আমাদের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ নেই। অনলাইনের মাধ্যমে শিক্ষা মন্ত্রণালয় শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। দেশে বর্তমানে সাক্ষরতার হার ৭৩ শতাংশ। তিনি বলেন, ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্টের সুবিধা নিতে সরকার কারিগরি শিক্ষাকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিচ্ছে। 

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ কৃষকলীগের সভাপতি হাজী আব্দুস সালাম বাবুর সভাপতিত্বে ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী আব্দুল রবের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষক লীগের সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দসহ কৃষক লীগের নেতারা।

লোকসমাগম হয় এমন স্থানে কেউ মাস্ক ছাড়া যাবেন না : প্রধানমন্ত্রী - dainik shiksha লোকসমাগম হয় এমন স্থানে কেউ মাস্ক ছাড়া যাবেন না : প্রধানমন্ত্রী ইএফটির মাধ্যমে শিক্ষকদের বেতন দিতে কাজ চলছে - dainik shiksha ইএফটির মাধ্যমে শিক্ষকদের বেতন দিতে কাজ চলছে যেভাবে হতে পারে অনলাইনে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা - dainik shiksha যেভাবে হতে পারে অনলাইনে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা এসএসসি-এইচএসসির ফলের ভিত্তিতেই জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি - dainik shiksha এসএসসি-এইচএসসির ফলের ভিত্তিতেই জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি ছোট ভাইয়ের সনদে মাদরাসায় চাকরির অভিযোগ - dainik shiksha ছোট ভাইয়ের সনদে মাদরাসায় চাকরির অভিযোগ শিক্ষানীতি সংশোধনে উদ্যোগ নিয়েছে সরকার: শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha শিক্ষানীতি সংশোধনে উদ্যোগ নিয়েছে সরকার: শিক্ষামন্ত্রী দুই মাস ধরে বেতন বন্ধ সহকারি উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের - dainik shiksha দুই মাস ধরে বেতন বন্ধ সহকারি উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের please click here to view dainikshiksha website