বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে শিক্ষাবান্ধব সরকার - মতামত - দৈনিকশিক্ষা

বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে শিক্ষাবান্ধব সরকার

মো. মোস্তাফিজুর রহমান সোহাগ |

১৯৭২ খ্রিষ্টাব্দের ১০ জানুয়ারি স্বাধীনতার তৃপ্তি মূলত বাঙালি জাতি উপভোগ করেছিল জাতির পিতার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের মাধ্যমে। পলাশীর প্রান্তরে নবাব সিরাজুদ্দৌলার নির্মম হত্যা আর ৭৫ এর ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুর পরিবারে হত্যা একসূত্রে গাঁথা। জাতির পিতার দূরদর্শী ও সাহসী নেতৃত্বে বাঙালি জাতি পরাধীনতার শৃঙ্খল ভেঙে ছিনিয়ে এনেছিল স্বাধীনতার রক্তিম সূর্য। বাঙালি পেয়েছে স্বাধীন রাষ্ট্র, নিজস্ব পতাকা ও জাতীয় সংগীত। যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশে বঙ্গবন্ধু যখন সমগ্র জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করে সোনার বাংলা গড়ায় নিয়োজিত, তখনই স্বাধীনতাবিরোধী-যুদ্ধাপরাধী চক্র তাকে হত্যা করে। বঙ্গবন্ধু  স্বপ্ন দেখেছিলেন একটি সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ । তিনি বলতেন, ‘সোনার বাংলা গড়তে হলে সোনার মানুষ চাই।’ আর তার জন্য প্রয়োজন সত্যিকার মানুষ গড়ার সুশিক্ষা।

প্রাথমিক শিক্ষায় তৃণমূলের দুঃখী মানুষের সুযোগ নিশ্চিত করার জন্য ১৯৭৩ খ্রিষ্টাব্দে প্রাথমিক শিক্ষাকে সরকারিকরণ করেন বঙ্গবন্ধু।  ১৯৯৬ খ্রিষ্টাব্দে প্রথমবার ক্ষমতা গ্রহণ করার পর বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা শিক্ষাকে সবচেয়ে গুরূত্ব দিয়ে বাজেট প্রণয়ন করেন। অবহেলিত প্রাথমিক শিক্ষাব্যবস্থায় হয় প্রাণের সঞ্চার, মানোন্নয়নে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নেয়া হয়।

অতপর ২০০৯ খ্রিষ্টাব্দে দ্বিতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় এসে বঙ্গবন্ধু সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০ প্রণয়ন করেন।
তিনি জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০ এর আলোকে একটি আধুনিক, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিজ্ঞান সম্পন্ন জাতি গঠনের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নপূরণে ‘ভিশন ২০২১’ শীর্ষক লক্ষ্য নির্ধারণ করেন। এই ‘ভিশন ২০২১’-এ দেশকে একটি মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করার লক্ষ্য
নির্ধারণ করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর ধারাবাহিকতায় ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে বঙ্গবন্ধু কন্যা বর্তমান সরকারের
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৩ খ্রিষ্টাব্দ ২৬ হাজার ১৯৩টি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে সরকারিকরণ করে প্রাথমিক শিক্ষা ক্ষেত্রে আরও একটি মাইলফলক স্থাপন করেছেন। জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০ এর আলোকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত
উন্নীত করেন। এ সবই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বির্নিমাণে সবার জন্য মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিতকরণে সহায়ক হবে।

শিক্ষার্থীর মেধা বিকাশের সাথে সাথে তার শারীরিক ও মানসিক উৎকর্ষ সাধনে ও নেতৃত্ব বিকাশে শেখ হাসিনা সরকার বহুমুখী
পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। এগুলোর মধ্যে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শতভাগ উপবৃত্তি প্রদান, মিড ডে মিল চালুকরণ, স্টুডেন্ট
কাউন্সিল গঠন, কাব-স্কাউট দল গঠন, ক্ষুদে ডাক্তার দল গঠন, প্রাক্তন শিক্ষার্থী অ্যালামনাই এসোসিয়েশন গঠন, বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা
বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ড কাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট উল্লেখযোগ্য।

২০১৪ খ্রিষ্টাব্দে জাতিসংঘের শিক্ষা সংক্রান্ত অধিবেশনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সুনির্দিষ্টভাবে বলেছেন- ‘মানসম্মত শিক্ষার জন্য প্রয়োজন মানসম্মত শিক্ষক’ এবং বিশ্ব নেতাদের বলেছেন- ‘অস্ত্র নয়, শিক্ষায় বিনিয়োগ করুন।’ জাতিসংঘে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যে সরকারের যে রাজনৈতিক অঙ্গীকার প্রতিফলিত হয়েছে তা আমাদের দেশের শিক্ষা ও শিক্ষকদের মান উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে।

নারীর ক্ষমতায়ন ও জেন্ডার সমতা বৃদ্ধির জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইউনেস্কো পুরস্কার ‘শান্তি বৃক্ষ’ লাভ করেছেন, যা আমাদের  জন্য অত্যন্ত গর্বের বিষয়। প্রাথমিক শিক্ষা দেশের অতিগুরুত্বপূর্ণ সম্ভাবনার ক্ষেত্র, প্রতিটি নাগরিককে সুশিক্ষিত হিসেবে গড়ে তোলার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন সম্ভব হবে। এ রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব পালনে শিক্ষক, এসএমসি সদস্য, জনপ্রতিনিধি, এলাকাবাসীসহ সমাজের প্রতিটি নাগরিককে এগিয়ে আসতে হবে। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় সবার জন্য মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত হবে।

শীঘ্রই বাংলাদেশ বিশ্বের বুকে উন্নত টেকসই রাষ্ট্রের মর্যাদা পাবে। আজকের শিশুরা তাদের ত্যাগ-তিতিক্ষা, অধ্যবসায় ও দেশপ্রেমের
অনির্বাণ শিখা প্রজ্জ্বলিত করে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করবে এমনটাই আমাদের প্রত্যাশা। পরিশেষে, বঙ্গবন্ধু প্রাথমিক শিক্ষা
ও গবেষণা পরিষদের কর্মকাণ্ডে শিশু শিক্ষায় তাঁর আদর্শ বাস্তবায়ন হবে দৃঢ় শপথে।

লেখক : মো. মোস্তাফিজুর রহমান সোহাগ, তথ্য, গবেষণা ও প্রকাশনা সম্পাদক, বঙ্গবন্ধু প্রাথমিক শিক্ষা গবেষণা পরিষদ।

[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন।]

জেএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে বিভ্রান্তি না ছড়ানোর আহ্বান শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের - dainik shiksha জেএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে বিভ্রান্তি না ছড়ানোর আহ্বান শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের স্কুল খুললে সীমিত পরিসরে পিইসি, অটোপাস নয় : গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha স্কুল খুললে সীমিত পরিসরে পিইসি, অটোপাস নয় : গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাতীয়করণ: ফের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত সেলিম ভুইঁয়া, কর্মসূচির হুমকি - dainik shiksha জাতীয়করণ: ফের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত সেলিম ভুইঁয়া, কর্মসূচির হুমকি একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করবেন যেভাবে - dainik shiksha একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করবেন যেভাবে please click here to view dainikshiksha website