বন্ধ ক্যাম্পাসেই আমরণ অনশনে বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা - বিশ্ববিদ্যালয় - দৈনিকশিক্ষা

বন্ধ ক্যাম্পাসেই আমরণ অনশনে বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি |

গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে আমরণ অনশন চালিয়ে যাচ্ছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। গত বুধবার আন্দোলন শুরুর পর বৃহস্পতিবার থেকে আমরণ অনশন কর্মসূচি শুরু করেন তারা। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে গত শনিবার সকালে আগামী ৩ অক্টোবর পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ। শিক্ষার্থীদের শনিবার সকাল ১০টার মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। এরই মধ্যে সকাল ১১টার দিকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায় বহিরাগতরা। এতে অন্তত ২০ শিক্ষার্থী আহত হন। এ ঘটনার পর উত্তাল হয়ে ওঠে ক্যাম্পাস। বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হলেও  আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা গতকাল রোববার চতুর্থ দিনের মতো অনশন কর্মসূচি অব্যাহত রাখেন। হল ছেড়ে যাননি তারা। উপাচার্য অধ্যাপক ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিনের পদত্যাগ দাবিতে তারা গণস্বাক্ষর সংগ্রহ করেন। শিক্ষার্থীরা এতে স্বাক্ষর করছেন। গতকাল প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে আন্দোলনকারীরা উপাচার্যবিরোধী স্লোগান দেন।

এদিকে শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেছেন, আন্দোলন থেকে সরে যেতে শনিবারের হামলার পর এবার তাদের ভয়-ভীতি দেখানো হচ্ছে। তারা বলেন, উপাচার্য সমর্থিত শিক্ষকরা তাদের ব্যক্তিগতভাবে ডেকে নিয়ে আন্দোলন থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা বলছেন। তা না হলে তাদের সার্টিফিকেট আটকে রাখা, ক্লাস ও পরীক্ষার সময় 'দেখে নেওয়ার' হুমকি দিচ্ছেন। বহিরাগতদের হামলার পর উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা, অজানা আতঙ্ক আর হুমকির মুখে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন বলে তারা জানান। এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন তারা।

তবে উপাচার্য খোন্দকার নাসিরউদ্দিন এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, শিক্ষার্থীদের ব্যক্তিগতভাবে ডেকে নিয়ে আন্দোলন থেকে সরে যাওয়ার জন্য কোনো শিক্ষক হুমকি দিচ্ছেন না। এমনটি হওয়ার সুযোগ নেই। বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, স্থানীয় সংসদ সদস্য, শিক্ষামন্ত্রী, শিক্ষা মন্ত্রণালয়, জেলা প্রশাসন, জেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগকে জানানো হয়েছে। এ সমস্যার শান্তিপূর্ণ সমাধানের চেষ্টা করা হচ্ছে বলে উপাচার্য জানান।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান চৌধুরী এমদাদুল হক, সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলী খান গতকাল বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার নিন্দা জানান। আন্দোলনকারীদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করে তারা বলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম ও দলের হাইকমান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তাদের নির্দেশনা দিয়ে পাঠিয়েছেন। এ ব্যাপারে তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। প্রধানমন্ত্রীর কাছেও বিষয়টি তুলে ধরা হবে।

এ সময় আওয়ামী লীগ নেতাদের কয়েকজন শিক্ষার্থীদের একটি আলটিমেটাম দিয়ে আন্দোলন প্রত্যাহারের অনুরোধ জানান। তবে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের দু'জন সোহাগ হোসেন ও ইয়াসিন মোল্লা বক্তব্য দিয়ে এ অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করে তাদের আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন।

এ সময় টুঙ্গিপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান সোলায়মান বিশ্বাস, গোপালগঞ্জ পৌরসভার মেয়র কাজী লিয়াকত আলী লেকু, জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এম বদরুল আলম বদর, আওয়ামী লীগ নেতা রফিকুল ইসলাম মিটু, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আবদুল হামিদসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে, শিক্ষার্থীদের ওপর শনিবারের হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন উপাচার্য খোন্দকার নাসিরউদ্দিন। আহত শিক্ষার্থীদের চিকিৎসার ব্যয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র কল্যাণ ফান্ড থেকে বহন করার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। হামলার ঘটনা তদন্তে উপাচার্য তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করেছেন। আগামী পাঁচ কর্মদিবসের মধ্যে কমিটিকে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। প্রতিবেদন পাওয়ার পর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। গতকাল উপাচার্য স্বাক্ষরিত একটি চিঠিতে এ তথ্য জানানো হয়। কোনো সহিংসতা না করার জন্য আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ধন্যবাদ জানান উপাচার্য। তিনি বলেন, কেউ নাশকতা করার জন্য শিক্ষার্থীদের ওপর এ হামলা করে থাকতে পারে।

শনিবারের ওই হামলার জন্য উপাচার্য সমর্থিত বহিরাগতদের দায়ী করেছেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। তবে উপাচার্য এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী সম্রাট বিশ্বাস বলেন, ২০১৬ খ্রিষ্টাব্দে তিনিসহ চার শিক্ষার্থীকে অন্যায়ভাবে বহিষ্কার করেন উপাচার্য। পরে তারা হাইকোর্টে রিট করে ছাত্রত্ব ফিরে পান। স্বৈরাচারী এ উপাচার্য বিশ্ববিদ্যালয়কে দুর্নীতি, অনিয়ম, অন্যায়, অত্যাচার, নির্যাতন ও লুটপাটের কারখানায় পরিণত করেছেন। সরকার তদন্ত কমিটি গঠন করে তদন্ত করলে উপাচার্যের এসব কর্মকাণ্ডের সত্যতা পাওয়া যাবে।

স্থানীয় গোবরা ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান চৌধুরী টুটুল বলেন, শনিবারের হামলার ঘটনায় তার ইউনিয়নের কেউ জড়িত নয়। ফের বহিরাগতরা শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার চেষ্টা করলে প্রতিহত করা হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শামস আরা খান বলেন, শিক্ষার্থীদের ওপর বহিরাগতরা যাতে হামলা করতে না পারে, সে বিষয়টি আমরা পর্যবেক্ষণ করছি।

উপাচার্যের নির্দেশেই শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার অভিযোগ :এদিকে শনিবার শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার নির্দেশ উপাচার্য ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দিয়েছিল বলে অভিযোগ করেছেন সদ্য পদত্যাগকারী সহকারী প্রক্টর মো. হুমায়ুন কবির। তিনি দাবি করেন, যে বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়েছে সেখানে তিনি নিজেও উপস্থিত ছিলেন। হুমায়ুন কবির বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করে দেয়ার পর আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা যেন ক্যাম্পাসের ভেতরে আসতে না পারে সেজন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে সিদ্ধান্ত হয় যারাই ভেতরে আসবে, তাদের যে কোনো মূল্যে ফেরাতে হবে।

তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করে উপাচার্য খোন্দকার নাসিরউদ্দিন বলেছেন, এ অভিযোগ আন্দোলনকে উস্কে দেয়ার চেষ্টা। এ ধরনের কোনো বৈঠক হয়নি।

গত ১১ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ও ডেইলি সানের ক্যাম্পাস প্রতিনিধি ফাতেমা-তুজ-জিনিয়াকে বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এর প্রতিবাদে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকরা আন্দোলন শুরু করেন। গত বুধবার জিনিয়ার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করা হয়। এরপর উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে ক্যাম্পাসে আন্দোলন শুরু হয়। গতকাল সকালে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিবচর ক্যাম্পাসের শিক্ষার্থীরা আন্দোলনকারীদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য দেন।

হামলার বিচার দাবিতে ঢাবিতে মানববন্ধন : বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক জানান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার বিচার এবং অবিলম্বে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবি জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা। গতকাল দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে এসব দাবি জানান তারা। মানববন্ধনে তারা বশেমুরবিপ্রবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেন। মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রাক্তন শিক্ষার্থী কামরুল হাসান, শশী প্রসাদ, প্রভাত বিশ্বাস, ভবতোষ বৈরাগী, আবদুল্লাহ আল নোমান, ফয়সাল হোসেন আরিফ, শিপন ভূঁইয়াসহ অন্য শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে, বশেমুরবিপ্রবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে গতকাল দুপুরে রাজু ভাস্কর্যের সামনে মানববন্ধন করেছে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ ঢাবি শাখা। এতে বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক খোন্দকার নাসিরউদ্দিনের কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়। মানববন্ধনে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের আহ্বায়ক অধ্যাপক আ ক ম জামাল উদ্দিন, ঢাবি শাখার সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল, সাধারণ সম্পাদক আল মামুনসহ মঞ্চের নেতা ও সাধারণ শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্যকে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অবাঞ্ছিত ঘোষণা :বরিশাল ব্যুরো জানায়, বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্যকে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। তার পদত্যাগও দাবি করা হয়েছে। বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে গতকাল বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত মানববন্ধনে এ দাবি জানানো হয়। মানববন্ধনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরাও সংহতি প্রকাশ করেন।

চবিতে মানববন্ধন :চবি সংবাদদাতা জানান, বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে গতকাল চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) শহীদ মিনার চত্বরে মানববন্ধন করেন শিক্ষার্থীরা। এতে চবির সমাজতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষক মাইদুল ইসলামসহ অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। তারা বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার ঘটনায় জড়িতদের শাস্তির দাবি জানান।

ঢাবির ক ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষার ফল স্থগিত - dainik shiksha ঢাবির ক ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষার ফল স্থগিত এমপিওভুক্তিতে রাজনৈতিক বিবেচনার সুযোগ নেই : শিক্ষামন্ত্রী (ভিডিও) - dainik shiksha এমপিওভুক্তিতে রাজনৈতিক বিবেচনার সুযোগ নেই : শিক্ষামন্ত্রী (ভিডিও) প্রাথমিক শিক্ষকদের গ্রেড পরিবর্তন: ফের প্রস্তাব যাচ্ছে অর্থ মন্ত্রণালয়ে - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষকদের গ্রেড পরিবর্তন: ফের প্রস্তাব যাচ্ছে অর্থ মন্ত্রণালয়ে শিক্ষামন্ত্রীর যেসব যুক্তি খণ্ডন করতে পারেননি ননএমপিও শিক্ষক নেতারা - dainik shiksha শিক্ষামন্ত্রীর যেসব যুক্তি খণ্ডন করতে পারেননি ননএমপিও শিক্ষক নেতারা ব্যক্তিগত কর্মকর্তার ওপর দায় চাপালেন এমপি বুবলী - dainik shiksha ব্যক্তিগত কর্মকর্তার ওপর দায় চাপালেন এমপি বুবলী ডিগ্রি ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত - dainik shiksha ডিগ্রি ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website