বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারে শিক্ষার্থীদের দিয়ে অবৈধ আন্দোলন - স্কুল - Dainikshiksha

মাধবপুরে ছাত্রীকে মারধরে শিক্ষক বহিষ্কারবহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারে শিক্ষার্থীদের দিয়ে অবৈধ আন্দোলন

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি |

বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করতে রাতের বেলা ছাত্র-ছাত্রীদের ‘অবৈধ’ আন্দোলনে নামিয়েছেন হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার দশম শ্রেণির ছাত্রীকে বেধড়ক মারপিটকারি শিক্ষক হাবিবুর রহমান। এ ঘটনায় অভিভাবক মহলে ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। 

গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টা থেকে ১১টা পর্যন্ত শাহজিবাজার বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সামনে অবস্থান করে শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা অভিযুক্ত শিক্ষকের শাস্তি প্রত্যাহারের দাবি জানান। পরবর্তীতে পুলিশ ও বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির নেতৃবৃন্দের অনুরোধে তারা আন্দোলন প্রত্যাহার করে।

ব্যবহারিক পরীক্ষায় বেশি নাম্বার দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে শিক্ষার্থীদের এই আন্দোলনে নামানো হয়েছে বলে অভিযোগ অভিভাবক ও এলাকাবাসীর। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষার্থী ও অভিভাবক জানান, একজন শিক্ষক ছাত্রীকে অমানুষিক নির্যাতন করার পরও ক্ষ্যান্ত হননি। রাতের বেলা অবৈধভাবে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে নামিয়ে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করেছেন। যা কোনোভাবেই কাম্য নয়। এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের প্রতি অনুরোধ জানান তারা।

শাহজিবাজার বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি প্রকৌশলী মো. কামাল হোসেন জানান, রাত সাড়ে ৯টা থেকে ১১টা পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করে। এ ব্যাপারে সঠিক ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস জানালে ফিরে যায় তারা।

তিনি আরও জানান, আমরা তাৎক্ষণিকভাবে অভিযুক্ত এই শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করি। পরবর্তী সময়ে কর্মচারী পরিদপ্তর থেকে তাকে চট্টগ্রামের রাউজানে সংযুক্তি বদলি করা হয়। এরপরই শিক্ষার্থীরা আন্দোলনে নামে।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মর্জিনা খাতুন বলেন, একজন শিক্ষকের নিকট থেকে এ ধরনের কর্মকাণ্ড আশা করা যায় না। তার বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

প্রসঙ্গত, গত মঙ্গলবার দুপুরে টিফিন বিরতিতে শ্রেণিকক্ষ থেকে বের হয়ে যায় ওই স্কুলের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাবিকুন নাহার মীম এবং তার সহপাঠীরা। নির্দিষ্ট সময়ের ৪ মিনিট দেরিতে ক্লাসে ফেরায় তাদের ওপর চড়াও হন সহকারী শিক্ষক হাবিবুর রহমান। এক পর্যায়ে তিনি বেত ও ডাস্টার দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করতে থাকলে অচেতন হয়ে পড়ে মীম। পরে সহপাঠী ও অভিভাবকরা তাকে হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেটে রেফার করেন। ওইদিন রাতেই অভিযুক্ত শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করেন ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি।

‘শিক্ষকদের অবসর-কল্যাণ সুবিধার তহবিল বন্ধ করে পেনশন চালু করতে হবে’ - dainik shiksha ‘শিক্ষকদের অবসর-কল্যাণ সুবিধার তহবিল বন্ধ করে পেনশন চালু করতে হবে’ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রথম ধাপের পরীক্ষা ১০ মে - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রথম ধাপের পরীক্ষা ১০ মে এসএসসির ফল ৫ বা ৬ মে - dainik shiksha এসএসসির ফল ৫ বা ৬ মে চাঁদা বৃদ্ধির পরও ২১৬ কোটি টাকা বার্ষিক ঘাটতি : শরীফ সাদী - dainik shiksha চাঁদা বৃদ্ধির পরও ২১৬ কোটি টাকা বার্ষিক ঘাটতি : শরীফ সাদী একাদশে ভর্তির নীতিমালা জারি, আবেদন শুরু ১২ মে - dainik shiksha একাদশে ভর্তির নীতিমালা জারি, আবেদন শুরু ১২ মে সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি - dainik shiksha সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website